যুদ্ধবিরতির সপ্তম দিন ৮ ইসরায়েলি জিম্মি ও ৩০ ফিলিস্তিনি বন্দি মুক্ত

গাজার স্থানীয় সময় শুক্রবার সকাল ৭টায় যুদ্ধবিরতি শেষ হয়ে যাওয়ার কথা। বিরতি আরও বাড়ানোর হবে কি না, তা পরিষ্কার হয়নি।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 1 Dec 2023, 04:43 AM
Updated : 1 Dec 2023, 04:43 AM

ইসরায়েল ও ফিলিস্তিনি স্বাধীনতাকামী গোষ্ঠী হামাসের মধ্যে যুদ্ধবিরতির সপ্তম দিনে আরও ৮ ইসরায়েলি জিম্মি ও ৩০ ফিলিস্তিনি বন্দি মুক্তি পেয়েছে।

এর আগে বুধবার মুক্তি পাওয়া দুই ইসরায়েলি জিম্মিকেও বৃহস্পতিবারের হিসাবে ধরা হয়েছে, তাতে এ দিনের মোট সংখ্যা ১০ জনে দাঁড়িয়েছে। মুক্তি পাওয়া ইসরায়েলি জিম্মিদের মধ্যে আটজন নারী ও দুই জন তরুণ ভাইবোন আছেন।

এদের বিনিময়ে ইসরায়েলের কারাগার থেকে মুক্তি পেয়েছে আরও ৩০ জন ফিলিস্তিনি। এদেরও সবাই নারী ও শিশু।

আল জাজিরা জানিয়েছে, শুক্রবার গাজার স্থানীয় সময় সকাল ৭টায় যুদ্ধবিরতির মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ার কথা। যুদ্ধবিরতি আরও বাড়ানোর হবে কি না, তা পরিষ্কার হয়নি। কাতার, মিশর ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যস্থতাকারীরা যুদ্ধবিরতির মেয়াদ আরেক দফা বৃদ্ধির জন্য চেষ্টা করে যাচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্র জানিয়েছে, যুদ্ধবিরতি বাড়ানোর জন্য আলোচনা চলমান আছে, তারা কাতার, মিশর ও ইসরায়েলকে নিয়ে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। 

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিনকেন এখন মধ্যপ্রাচ্যে আছেন। তিনি জানিয়েছেন, ইসরায়েল গাজায় হামলা ফের শুরু করার পরিকল্পনা করেছে। অবরুদ্ধ ফিলিস্তিনি ছিটমহলটিতে বেসামরিকদের জীবন বাঁচাতে ইসরায়েলকে ‘আরও কার্যকর পদক্ষেপ’ নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। 

ব্লিনকেন ইসরায়েল ও ইসরায়েল অধিকৃত ফিলিস্তিনের পশ্চিম তীর পরিদর্শন করেছেন।    

৭ অক্টোবর হামাসের যোদ্ধারা গাজা সংলগ্ন দক্ষিণ ইসরায়েলে নজিরবিহীন আক্রমণ চালিয়ে সবাইকে স্তম্ভিত করে দেয়। ইসরায়েল জানিয়েছে, হামাসের এই আক্রমণে ১২০০ জন নিহত হয়েছে। হামাসের যোদ্ধারা ইসরায়েল থেকে প্রায় ২৪০ জনকে ধরে গাজায় নিয়ে জিম্মি করে রাখে। 

এর প্রতিশোধ নিতে ওইদিন থেকেই গাজায় ভয়াবহ হামলা শুরু করে ইসরায়েল। সাত সপ্তাহ ধরে তাদের টানা ব্যাপক হামলায় ১৪৮০০ ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে বলে গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে। নিহতদের মধ্যে প্রায় ৬০০০ জন শিশু।

গাজায় টানা সাত সপ্তাহ ধরে ইসরায়েলে অবিরাম হামলার পর কাতার ও মিশরের মধ্যস্থতায় দুই পক্ষের মধ্যে চার দিনের এক অস্থায়ী যুদ্ধবিরতির বিষয়ে সমঝোতা হয়। যুদ্ধবিরতির শর্ত অনুযায়ী এই সময় প্রতিজন ইসরায়েলি জিম্মির বিনিময়ে তিনজন ফিলিস্তিনি বন্দিকে মুক্তি দিতে শুরু করে ইসরায়েল। এ সময় অবরুদ্ধ গাজায় জরুরি ত্রাণ ও জ্বালানি সরবরাহও শুরু হয়, যদিও তা প্রয়োজনের তুলনার খুব কম। 

চারদিনের যুদ্ধবিরতি সোমবার শেষ হওয়ার কথা থাকলেও মধ্যস্থাতাকারীদের প্রচেষ্টায় শেষ মুহূর্তে তা আরও দুই দিন বাড়ানো হয়। বাড়তি মেয়াদ বুধবার শেষ হওয়ার কথা ছিল, কিন্তু এদিনও শেষ মুহূর্তে যুদ্ধবিরতি আরও ২৪ ঘণ্টা বাড়ানোর বিষয়ে সম্মত হয়েছিল ইসরায়েল ও হামাস।

আরও পড়ুন:

Also Read: গাজায় আরও ২৪ ঘণ্টার যুদ্ধবিরতি