শেষ পর্যন্ত এক্স-এ কনটেন্ট মডারেটর নিয়োগের পথে মাস্ক

টুইটার নামে পরিচিত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমটি কেনার পরপরই যে কয়টি বিভাগ থেকে কর্মী ছাঁটাই করেন মাস্ক, তার মধ্যে এই বিভাগটিও ছিল।

প্রযুক্তি ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 29 Jan 2024, 08:39 AM
Updated : 29 Jan 2024, 08:39 AM

সামাজিক মাধ্যম ‘এক্স’ মার্কিন অঙ্গরাজ্য টেক্সাসের শহর অস্টিনে নতুন অফিসের জন্য একশ কনটেন্ট মডারেটর নিয়োগের প্রক্রিয়ায় রয়েছে।

সে সময়ে টুইটার নামে পরিচিত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমটি কেনার পরপরই যে কয়টি বিভাগ থেকে কর্মী ছাঁটাই করেন মাস্ক, তার মধ্যে এই বিভাগটিও ছিল। সে সময় তার যুক্তি ছিল মেশিন লার্নিং পদ্ধতি বা এআই ব্যবহার করেই এর সমাধান সম্ভব।

নতুন এ সিদ্ধান্তের মাধ্যমে কার্যত আগের অবস্থান থেকে ইউটার্ন নিলেন মাস্ক।

নতুন সিয়োগ সম্পন্ন হওয়ার পর থেকে শিশুদের অবমাননা করে এমন কনটেন্টের বিরুদ্ধে নজর রাখবে ও নিয়ন্ত্রণ করবে মডারেটররা। বছরের শেষ নাগাদ এ লক্ষ্য পূরণ করার সম্ভাবনা রয়েছে কোম্পানিটির– গেল শনিবার এক্সের একজন নির্বাহী কর্মকর্তা এমন কথা বলেছেন বলে প্রতিবেদনে লিখেছে রয়টার্স।

অনলাইনে শিশুদের যৌন হয়রানির বিষয়ে আগামী ৩১ জানুয়ারি মার্কিন সিনেটের শুনানির আগে নতুন ‘ট্রাস্ট অ্যান্ড সেইফটি সেন্টার অফ এক্সিলেন্স’ ঘোষণা করেছে কোম্পানিটি৷ ওই শুনানিতে মেটা প্ল্যাটফর্ম, স্ন্যাপ, টিকটক ও ডিসকর্ডের সিইওদের সঙ্গে এক্সের প্রধান নির্বাহী লিন্ডা ইয়াকারিনোর সাক্ষ্য দেওয়ার কথা রয়েছে।

"দলটি বর্তমানে তৈরি করা হচ্ছে," – অস্টিন অফিসের কথা উল্লেখ করে বলেন কোম্পানির ব্যবসায়িক কার্যক্রমের প্রধান জো বেনারোচ। 

তবে, বছরের শেষ নাগাদ এসব পদ পূরণের লক্ষ্যটি উপযুক্ত লোকজন পাওয়ার ওপর নির্ভর করছে বলে লিখেছে রয়টার্স।

২০২২ সালে এ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমটি মাস্ক কিনে নেওয়ার পর থেকেই নিজের বিতর্কিত পোস্ট ও কনটেন্ট নিয়ন্ত্রণ নীতিগুলো সংশোধনের চেষ্টা করায় সমালোচিত হয়েছেন মাস্ক।

গত বছরে অন্তত ১২৪ লাখ অ্যাকাউন্ট বন্ধ করেছে এক্স, যা ২০২২ সালের ২৩ লাখের থেকে অনেক বেশি – শুক্রবার এক পোস্টে লিখেছে কোম্পানিটি।

অস্টিনে কোম্পানির নতুন অফিসটি অন্যান্য ক্ষতিকর কনটেন্টের বিরুদ্ধে লড়াই করতেও সাহায্য করবে বলেও উঠে এসেছে প্রতিবেদনে।