ইজতেমা: গাড়ি পার্কিং ও চলাচলে পুলিশের নির্দেশনা

পুলিশ জানিয়েছে, ইজতেমা চলাকালে খিলক্ষেত থেকে আব্দুল্লাহপুর হয়ে ধউর ব্রিজ পর্যন্ত রাস্তার দুই পাশে কোনো যানবাহন পার্কিং করা যাবে না।

গাজীপুর প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 30 Jan 2024, 05:53 PM
Updated : 30 Jan 2024, 05:53 PM

গাজীপুরের টঙ্গীর তুরাগ নদীর তীরে অনুষ্ঠিতব্য বিশ্ব ইজতেমা উপলক্ষে গাড়ি পার্কিং ও চলাচলে বিশেষ নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। 

লাখ লাখ মানুষের সমাগম সামলাতে ঢাকা মহানগর পুলিশ এবং গাজীপুর মহানগর পুলিশ যৌথভাবে এই নির্দেশনা জারি করেছে।

মঙ্গলবার পুলিশ সদরদপ্তর থেকে এ ব্যাপারে বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছে, ইজতেমা চলাকালে খিলক্ষেত থেকে আব্দুল্লাহপুর হয়ে ধউর ব্রিজ পর্যন্ত রাস্তার দুই পাশে কোনো যানবাহন পার্কিং করা যাবে না।

তাবলিগ জামাতের দুই পক্ষের মধ্যে বিরোধের কারণে এবারও বিশ্ব ইজতেমা অনুষ্ঠিত হবে আলাদাভাবে। জুবায়েরের অনুসারীরা ইজতেমা পালন করবেন ২, ৩ ও ৪ ফেব্রুয়ারি। চার দিন বিরতির পর সাদ কান্ধলভীর অনুসারীরা ইজতেমা করবেন ৯, ১০ ও ১১ ফেব্রুয়ারি।

সে হিসাবে এখন মাঠ প্রস্তুতির কাজ করছেন জুবায়ের অনুসারীরা। অনেকে ময়দানে আসতে শুরু করেছেন। ইজতেমা শুরুর বাকি আর মাত্র দুদিন।

ইজতেমায় আগতদের যানবাহন রাখার ঢাকার স্থান-

১. ঢাকা ও চট্টগ্রাম বিভাগ পার্কিং: উত্তরা ১৫ নম্বর সেক্টর এলাকাধীন কদমতলী মার্কেট, ১৭ নম্বর সেক্টর উলুদাহ মাঠ, ৫ নম্বর ব্রিজের ঢাল।

২. সিলেট ও খুলনা বিভাগ পার্কিং: উত্তরার ১৫ নম্বর সেক্টরের লেকপাড় মাঠ।

৩. রাজশাহী, রংপুর ও ময়মনসিংহ বিভাগ পার্কিং: উত্তরার ১০ নম্বর ব্রিজ এবং ১১ নম্বর ব্রিজ লেকের পশ্চিম পাশ, ১৬ নম্বর সেক্টরের ভেতর এবং বউবাজার মাঠ।

৪. বরিশাল বিভাগ পার্কিং: ধউর ব্রিজ ক্রসিং সংলগ্ন বিআইডব্লিউটিএ ল্যান্ডিং স্টেশন।

৫. ঢাকা মহানগরী: ৩০০ ফিট রাস্তা এলাকায় স্বদেশ প্রোপার্টির খালি জায়গা।

গাজীপুর মহানগরে পার্কিংয়ের স্থান-

১. ময়মনসিংহ বিভাগ পার্কিং: চান্দনা উচ্চ বিদ্যালয়, চৌরাস্তা।

২. উত্তরবঙ্গ ও টাঙ্গাইল হতে আগত যানবাহন পার্কিং: ভাওয়াল বদরে আলম সরকারি কলেজ মাঠ ও চৌরাস্তা।

৩. মিরের বাজার রাস্তা দিয়ে গাজীপুরগামী যানবাহন পার্কিং: পুবাইল কলেজ।

৪. সরকারি যানবাহন পার্কিং: টঙ্গীর টেলিফোন শিল্প সংস্থা (টেশিস) এবং টঙ্গী সরকারি কলেজ মাঠ।

পুলিশের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, নির্ধারিত স্থানে যানবাহন পার্কিংয়ের সময় অবশ্যই গাড়ির চালক ও চালকের সহকারীকে (হেলপার) গাড়িতে অবস্থান করতে হবে। মালিক ও চালক একে অপরের মোবাইল নম্বর নিয়ে রাখবে যাতে বিশেষ প্রয়োজনে তাৎক্ষণিকভাবে পারস্পরিক যোগাযোগ করা যায়।

# আখেরি মোনাজাতের আগের রাত অর্থাৎ ৩ ফেব্রুয়ারি রাত ১০টা থেকে ৪ ফেব্রুয়ারি দুপুর ২টা পর্যন্ত এবং ১০ ফেব্রুয়ারি রাত ১০টা থেকে ১১ ফেব্রুয়ারি দুপুর ২টা পর্যন্ত আব্দুল্লাপুর হতে ভোগড়া বাইপাস এবং মিরের বাজার হতে স্টেশন রোড পর্যন্ত উভয়মুখী রাস্তায় যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকবে।

# ইজতেমার শুরুর দিন হতে অর্থাৎ প্রথম পর্বের ২ ফেব্রুয়ারি হতে ৪ ফেব্রুয়ারি এবং দ্বিতীয় পর্বের ৯ ফেব্রুয়ারি হতে ১১ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত মন্নু গেইট হতে কামারপাড়া রোড বন্ধ থাকবে।

# ইজতেমায় অংশগ্রহণকারী ভিআইপি/ভিভিআইপি/বিদেশি অতিথিদের বহনকারী যানবাহনগুলো উত্তরার বিএনএস টাওয়ার হতে টঙ্গী ফ্লাইওভার হয়ে স্টেশন রোডে নেমে মন্নু গেইট কামারপাড়া রোড ব্যবহার করবে।

# আখেরি মোনাজাতের দিন ভোর ৪টা হতে আন্তঃজেলা বাস, ট্রাক, কাভার্ড ভ্যান ও অন্যান্য ভারী যানবাহন আব্দুল্লাহপুর, ধউর ব্রিজ মোড় পরিহার করে মহাখালী-বিজয় সরণি-গাবতলী হয়ে চলাচল করবে।

# অনুরূপভাবে নবীনগর, বাইপাইল, আশুলিয়া হয়ে উত্তরবঙ্গ হতে আগত যানবাহন কামারপাড়া/আব্দুল্লাপুর ক্রসিং পরিহার করে সাভার-গাবতলী দিয়ে চলাচল করবে। অথবা ধউড় ব্রিজ ক্রসিং দিয়ে মিরপুর বেড়িবাঁধ দিয়ে চলাচল করবে।

# ঢাকা থেকে এয়ারপোর্ট রোড দিয়ে আগত যানবাহন কুড়িল ফ্লাইওভারের উপর দিয়ে প্রগতি সরণী হয়ে অথবা বিশ্বরোড ক্রসিং (নিকুঞ্জ-১ ক্যাচি গেইট) দিয়ে ইউটার্ন করে চলাচল করবে।

# আখেরি মোনাজাতের দিন ভোর ৪টা হতে ৩০০ ফিট দিয়ে আগত যানবাহন কুড়িল ফ্লাইওভার লুপ-২ (এয়ারপোর্টগামী) পরিহার করে প্রগতি সারণী এবং কুড়িল ফ্লাইওভার লুপ-৪ (কাকলী-মহাখালীগামী) ব্যবহার করবে। কোনোভাবেই বিমানবন্দর সড়ক ব্যবহার করা যাবে না।

# উত্তরার বাসিন্দা, বিমানযাত্রী, বিমান অপারেশনাল যানবাহন ও বিমান ক্রু বহনকারী যানবাহন ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর গাড়ি ও অ্যাম্বুলেন্স ব্যতীত সব যানবাহনকে বিমানবন্দর সড়ক পরিহার করে বিকল্প হিসেবে মহাখালী বিজয়সরণী হয়ে মিরপুর-গাবতলী সড়ক ব্যবহার করার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।

# ঢাকা মহানগর থেকে যারা হেঁটে ইজতেমাস্থলে যাবেন তাদের তুরাগ নদীর উপরে বেইলি ব্রিজ অথবা কামারপাড়া ব্রিজ দিয়ে টঙ্গী ইজতেমা ময়দানে যাতায়তের জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।

# বিদেশগামী যাত্রীদের বিমানবন্দরে আনা-নেওয়ার জন্য আখেরি মোনাজাতের দিন পদ্মা ইউলুপ এবং কুড়াতলী লুপ-২ হতে ট্রাফিক উত্তরা বিভাগের ব্যবস্থাপনায় যাত্রীদের জন্য পরিবহন সেবা প্রদান করা হবে।

# আখেরি মোনাজাতের দিন ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের কাওলা/এয়ারপোর্টগামী এক্সিট পরিহার করতে বলা হয়েছে।

আরও পড়ুন:

Also Read: ইজতেমায় কোনো নিরাপত্তা হুমকি নেই: র‌্যাব

Also Read: ইজতেমা: শামিয়ানা অসম্পূর্ণ, আগতদের চট নিয়ে আসার পরামর্শ

Also Read: এবার ইজতেমায় হকার বসতে পারবে না: পুলিশ

Also Read: টঙ্গীতে স্বেচ্ছাশ্রমে চলছে বিশ্ব ইজতেমার প্রস্তুতি, প্রায় ৮০ ভাগ কাজ শেষ

Also Read: ইজতেমায় চলবে ১১ জোড়া বিশেষ ট্রেন

Also Read: ইজতেমা শেষে ‘ভাঙচুর ছাড়াই’ মাঠ বুঝিয়ে দেওয়ার আহ্বান

Also Read: বিশ্ব ইজতেমা শুরু ২ ফেব্রুয়ারি, এবারও হবে ২ পর্বে