দুই জেলায় ডিসি রদবদল

সুনামগঞ্জে নতুন ডিসি নিয়োগ দেওয়া হয়েছে এবং এ জেলার ডিসিকে পাঠানো হয়েছে ময়মনসিংহে।

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 2 Dec 2023, 02:18 PM
Updated : 2 Dec 2023, 02:18 PM

নির্বাচনের আগের মাসে ময়মনসিংহ ও সুনামগঞ্জে নতুন ডিসি নিয়োগ দিয়েছে সরকার। 

শনিবার জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের পৃথক আদেশে এ দুই জেলার ডিসি পদে রদবদল করা হয়। 

সুনামগঞ্জের ডিসি দিদারে আলম মোহাম্মদ মাকসুদ চৌধুরীকে ময়মনসিংহে বদলি করা হয়েছে। 

উপসচিব ভাস্কর দেবনাথ স্বাক্ষরিত এ প্রজ্ঞাপনে জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের উপসচিব মোহাম্মদ রাশেদ ইকবাল চৌধুরীকে সুনামগঞ্জের ডিসি করা হয়েছে।

Also Read: মাঠের তথ্যের ভিত্তিতেই ওসি, ইউএনওদের বদলির সিদ্ধান্ত ইসির

Also Read: এক বছরের বেশি একই কর্মস্থলে-এমন ইউএনওদের বদলির প্রস্তাব

Also Read: ছয় মাসের বেশি দায়িত্বে থাকা ওসিদের বদলি চায় ইসি

অপরদিকে আরেক প্রজ্ঞাপনে ময়মনসিংহের ডিসি মোস্তাফিজার রহমানকে স্বাস্থ্য সেবা বিভাগে উপসচিব হিসেবে বদলি করা হয়েছে। 

৭ জানুয়ারি ভোটের দিন রেখে তফসিল ঘোষণার পর দুই জেলার ডিসি পরিবর্তন করা হলো। 

এর আগে বৃহস্পতিবার এক বছরের বেশি সময় ধরে বর্তমান কর্মস্থলে থাকা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের ভোট সামনে রেখে অন্য জেলায় বদলি চেয়েছে নির্বাচন কমিশন। 

একইভাবে যেসব ওসি বর্তমান কর্মস্থলে ছয় মাসের বেশি দায়িত্ব পালন করছেন, তাদেরকে অন্য জেলায় বদলির জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগে চিঠি দেওয়া হয়েছে।  

বৃহস্পতিবার জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিবের সঙ্গে নির্বাচন ভবনে ইসির বৈঠকের পর এ সংক্রান্ত চিঠি পাঠায় ইসি সচিবালয়। 

নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর দায়িত্বশীল কর্মকর্তাদের বদলির বিষয়ে কমিশনের সায় দেওয়ার বিধান রয়েছে। এবারের দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে ইউএনওরা সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তার দায়িত্ব পালন করছেন।  

শনিবার ওসি ও ইউএনওদের বদলির বিষয়ে জানতে চাইলে ইসির অতিরিক্ত সচিব অশোক কুমার দেবনাথ বলেছেন, চার নির্বাচন কমিশনার বিভিন্ন বিভাগ ও জেলায় গিয়ে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে যে তথ্য পেয়েছেন, সেটির ভিত্তিতেই থানার ওসি এবং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের (ইউএনও) বদলি চেয়েছে নির্বাচন কমিশন।  

তবে ডিসি ও পুলিশ সুপারদের (এসপি) বদলির বিষয়ে এখনও কোনো সিদ্ধান্ত নেয়নি ইসি বলে জানান তিনি। 

তিনি বলেন, এখন পর্যন্ত কোনো সিদ্ধান্ত আমার জানা নেই। পরবর্তীতে যদি কোনো সিদ্ধান্ত হয়, তখন বলতে পারব। যদি নির্বাচন কমিশন বসে কোনো সিদ্ধান্ত নেন, সেক্ষেত্রে এটা হতে পারে। এটা অস্বাভাবিক কিছু না।