চুলের বৃদ্ধিতে রোজমেরি তেল

আগা-ফাটা, মলিন ও রুক্ষ চুলের সমস্যা কমাতে পারে রোজমেরি তেল।

লাইফস্টাইল ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 26 Nov 2023, 06:37 AM
Updated : 26 Nov 2023, 06:37 AM

এসেনশল তেলগুলো নানান রকম পুষ্টি উপাদান সমৃদ্ধ যা, চুলের জন্য উপকারী।

তবে কোনো তেলই রোজমেরি তেলের চেয়ে বেশি উপকারী নয়। চুলের বিভিন্ন প্রসাধনী তৈরিতে তাই রোজমেরির তেলের ব্যাপক ব্যবহার দেখা যায়।

নিউ ইয়র্ক’য়ের ত্বক বিশেষজ্ঞ মারিশা গার্শিক’য়ের মতে, “রোজমেরি তেল উদ্ভিজ্জ উৎস থেকে সংগ্রহ করা হয়, যা মূলত ভূমধ্যসাগরীয় অঞ্চলে পাওয়া যায়।

ইনস্টইল ডটকম’য়ে প্রকাশিত প্রতিবেদনে তিনি আরও বলেন “রোজমেরি তেলে আছে প্রদাহরোধী অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট যা জীবাণুনাশক উপাদান সমৃদ্ধ।”

রোজমেরি তেলের উপকারিতা

চুলের বৃদ্ধি এবং চুলের সার্বিক স্বাস্থ্যের জন্য রোজমেরি তেলের উপকারিতা পরীক্ষিত।

ডা. গার্শিক বলেন, “অনেক গবেষণায় দেখা গেছে, এটা চুলের বৃদ্ধিকারক ওষুধ ‘মিনোক্সিডিল’ ৬ মাস গ্রহণের ফলাফলের মতো কাজ করে।”

তিনি ব্যাখ্যা করেন, “এটা মাথার ত্বকে রক্ত সঞ্চালন বাড়ায়। যা চুলের বৃদ্ধিতে সহায়তা করে।”

রোজমেরি তেল চুলের ক্ষয় কমায় এবং চুলের ওপর প্রলেপ সৃষ্টি করে আগা ফাটা কমায় এবং চুলে মসৃণ ও কোমলভাব আনে।

নিউ ইয়র্কের আরেক ত্বক বিশেষজ্ঞ ডা. হ্যাডলি কিং এই তথ্য সমর্থন করে আরও যোগ করেন “রোজমেরি তেলে জীবাণু ও প্রদাহ রোধী উপাদান থাকায় মাথার ত্বকের খুশকি, ব্রণসহ অন্যান্য সমস্যা লালচেভাব ও জ্বলুনি কমাতে সহায়তা করে।”

সব ধরনের চুলে এই তেল ব্যবহার করা যায়। তবে ডা. গার্শিক বলেন, “যাদের চুল পড়া, আগা ফাটা ও টাক পড়ার সমস্যা রয়েছে এটা তাদের জন্য বিশেষ উপযোগী।”

রোজমেরি তেলের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া

ডা. কিং বলেন, “রোজমেরি তেল অনেক ক্ষেত্রে জ্বলুনি বা অস্বস্তি সৃষ্টি করে। আর সম্ভাবনা থাকতে পারে।”

ডা. গার্শিক আরও যোগ করেন, “ভালো ফলাফল পেতে নিয়মিত এদের ব্যবহার করতে হবে। অনেক গবেষণায় দেখা গেছে, এই তেলের ফলাফল পেতে প্রায় ছয় মাসের মতো সময় লাগে। যদিও এর সত্যতা প্রমাণের জন্য আরও বড় পরিসরে গবেষণার প্রয়োজন রয়েছে।”

এটা সব ধরনের চুলের ক্ষেত্রে উপযোগী। তবে বিশেষ করে পাতলা ও চিকন চুলের জন্য এটা বেশি কার্যকর।

নতুন প্রসাধনীর মতোই চুলের যত্নে রোজমেরি তেল ব্যবহারে কিছুটা সচেতন থাকার প্রয়োজন রয়েছে অন্যথায় পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া দেখা দিতে পারে।

এই দুই ত্বক বিশেষজ্ঞের মতে, যদি চুলের স্বাস্থ্য অথবা মাথার ত্বকে কোনো সমস্যা থাকে তবে ব্যবহারের আগে সতর্ক থাকতে হবে।

এই তেল শক্তিশালী এবং সংবেদনশীল ত্বকে জ্বলুনি সৃষ্টি করতে পারে। তাই ব্যবহারের আগে বিশেষজ্ঞের পরামর্শ গ্রহণ করে নেওয়া উচিত।

ব্যবহার পদ্ধতি

ভালো ফলাফল পেতে রোজমেরি তেল সরাসরি মাথার ত্বকে ব্যবহার করা যায়। নিরাপদ এবং কার্যকর উপায় হল সামান্য বাহক তেলের সঙ্গে কয়েক ফোঁটা রোজমেরি তেল নিয়ে মাথার ত্বকে মালিশ করা- পরামর্শ দেন এই দুই ত্বক বিশেষজ্ঞ।

বাহক তেল যেমন- আর্গন, জোজোবা অথবা নারিকেল তেলের সাথে এই তেল খুব ভালো কাজ করে। কেননা এটা অনেকের জ্বলুনী সৃষ্টি করতে পারে।

ডা. কিং আরও বলেন, “শ্যাম্পুর সময় দুদিন ফোঁটা রোজমেরি তেল মিশিয়ে শ্যাম্পু করা হলে চুল আর্দ্র থাকে ও রুক্ষভাব কমে। তেল হিসেবে ব্যবহার করলে চুলের শেষ প্রান্তে ‘লুব্রিক্যান্ট’ এবং উজ্জ্বলকারক উপাদান হিসেবে কাজ করে।”

আরও পড়ুন

Also Read: এসেনশল অয়েল ব্যবহার পদ্ধতি

Also Read: মাথার ত্বকের জন্য উপকারী সেরাম

Also Read: চুলের ক্ষয় প্রতিরোধে যেভাবে তেল দিতে হয়