বুয়েটে ছাত্র রাজনীতির বাধা কাটল

বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মুখে ২০১৯ সালে ক্যাম্পাসে ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধ করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 1 April 2024, 08:13 AM
Updated : 1 April 2024, 08:13 AM

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বুয়েট) ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধ করে ২০১৯ সালে জারি করা বিজ্ঞপ্তির কার্যকারিতা স্থগিত করে দিয়েছে হাই কোর্ট।

এক রিট আবেদনের শুনানি নিয়ে বিচারপতি মো. খসরুজ্জামান ও বিচারপতি কে এম জাহিদ সারওয়ারের হাই কোর্ট বেঞ্চ সোমবার এই আদেশ দেয়।

এর ফলে দেশে প্রকৌশল শিক্ষার শীর্ষ এ বিদ্যাপীঠে ছাত্র রাজনীতি চর্চায় আর কোনো বাধা থাকছে না বলে আইনজীবীরা জানিয়েছেন।

নিষেধাজ্ঞার মধ্যে বুয়েট ক্যাম্পাসে সাংগঠনিক সমাবেশ ঘটানোর অভিযোগে হল থেকে বহিষ্কৃত ২১তম ব্যাচের ছাত্র ও ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ইমতিয়াজ হোসেন রাহিম রাব্বী হাই কোর্টে এই রিট আবেদন করেন।

তার পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট শাহ মঞ্জুরুল হক, তার সঙ্গে ছিলেন অ্যাডভোকেট হারুনুর রশিদ। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল সমরেন্দ্র নাথ বিশ্বাস ও সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল আবুল কালাম খান দাউদ।

অ্যাডভোকেট শাহ মঞ্জুরুল হক পরে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “২০১৯ সালের বিজ্ঞপ্তির কার্যকারিতা স্থগিত করায় বুয়েটে রাজনীতি করায় আর বাধা থাকল না।”

বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনার পর শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মুখে ২০১৯ সালের ১১ অক্টোবর এক ‘জরুরি বিজ্ঞপ্তিতে’ ক্যাম্পাসে ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধ করা হয়।

ওই নিষেধাজ্ঞার মধ্যেই বৃহস্পতিবার গভীর রাতে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতিসহ অনেকে বুয়েট ক্যাম্পাসে প্রবেশ করলে নতুন করে আন্দোলনে নামে শিক্ষার্থীরা।

তাদের ভাষ্য, বিশ্ববিদ্যালয়ের বিধিমালা লঙ্ঘন করে পুরকৌশল বিভাগের ২১তম ব্যাচের ছাত্র ও ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ইমতিয়াজ হোসেন রাহিম এ সমাগম ঘটান।

এ ঘটনায় শুক্রবার বিকালে বুয়েটের শহীদ মিনারের সামনে শিক্ষার্থীরা সংবাদ সম্মেলন করেন। তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রকল্যাণ পরিদপ্তরের পরিচালকের (ডিএসডব্লিউ) কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নিয়ে সন্ধ্যা পর্যন্ত বিক্ষোভ দেখান। পরে ক্লাস ও পরীক্ষা বর্জনের ঘোষণা দেন।

এরপর রাতে বুয়েটের রেজিস্ট্রার অধ্যাপক ফোরকান উদ্দিন স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে ইমতিয়াজ হোসেন রাহিমের হলের সিট বাতিল করা হয়। পাশাপাশি বিষয়টি তদন্তে কমিটি গঠন করে ৮ এপ্রিলের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়।

এর মধ্যে বুয়েটে ছাত্র রাজনীতি ফেরানোর দাবিতে পাল্টা কর্মসূচি দেয় ছাত্রলীগ। রোববার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সমাবেশ করে তারা অবিলম্বে বুয়েট ক্যাম্পাসে ছাত্র রাজনীতি চালুর অনুমতি দেওয়ার দাবি জানায়। পরে বুয়েট ক্যাম্পাসে গিয়ে শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন ছাত্রলীগের কয়েকশ নেতাকর্মী।

এ বিষয়ে প্রশ্ন করলে উপাচার্য অধ্যাপক সত্য প্রসাদ মজুমদার রোববার সাংবাদিকদের বলেন, ‘শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা চাইলে’ বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ক্যাম্পাসে আবারও ছাত্র রাজনীতি করার অনুমতি দেওয়া হবে।

“তখন যে পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছিল, সেই পরিস্থিতির উপর ভিত্তি করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা যে সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন, সেটা যদি পরিবর্তন করতে হয়, তাহলে তাদের আবার উদ্যোগী হতে হবে।”

এদিকে ছাত্র রাজনীতিতে নিষেধাজ্ঞার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে সোমবার হাই কোর্টে রিট মামলা করেন হল থেকে বহিষ্কৃত ইমতিয়াজ হোসেন রাহিম রাব্বী।

তার আবেদনের শুনানি করেই নিষেধাজ্ঞার আদেশ স্থগিত করার পাশাপাশি রুল জারি করে হাই কোর্ট বেঞ্চ। ছাত্র রাজনীতিতে নিষেধাজ্ঞা জারি করে ওই বিজ্ঞপ্তি কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চাওয়া হয় রুলে।

শিক্ষা সচিব, বুয়েটের উপাচার্যকে রুলের জবাব দিতে বলেছে হাই কোর্ট।

পুরনো খবর

Also Read: শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা চাইলে বুয়েটে ছাত্র রাজনীতির অনুমতি: উপাচার্য

Also Read: 'বুয়েটে হিজবুত তাহরীর, ছাত্রশিবির স্বার্থ হাসিল করছে'

Also Read: বুয়েটে ছাত্র রাজনীতির দাবিতে রোববার ছাত্রলীগের সমাবেশ

Also Read: নেতাকর্মীদের নিয়ে এবার প্রকাশ্যে বুয়েটে ঢুকল ছাত্রলীগ

Also Read: বুয়েটে জঙ্গিবাদীরা তৎপরতা চালাচ্ছে কি না, খতিয়ে দেখতে বললেন শিক্ষামন্ত্রী

Also Read: বুয়েটে ছাত্রলীগের প্রবেশ: এক শিক্ষার্থীর সিট বাতিল

Also Read: বুয়েটে গভীররাতে ছাত্রলীগের প্রবেশ, শিক্ষার্থীদের ক্ষোভ

Also Read: বুয়েটে ছাত্ররাজনীতির বিরুদ্ধে আবার শিক্ষার্থীদের শপথ

Also Read: বুয়েটে রাজনীতি নিষিদ্ধ, ১৯ আসামিকে বহিষ্কার