৫ গোলের রোমাঞ্চে ঘানাকে হারাল পর্তুগাল

নিষ্প্রভ প্রথমার্ধের পর দ্বিতীয়ার্ধে হলো ৫ গোল।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 24 Nov 2022, 04:59 PM
Updated : 24 Nov 2022, 04:59 PM

ম্যাচের অন্তিম সময়। দিয়োগো কস্তা খেয়ালই করলেন না, পেছনে রয়ে গেছেন ইনাকি উইলিয়ামস। পর্তুগাল গোলরক্ষক বল রাখতেই পিছন থেকে ছুটে এসে কেড়ে নিলেন ঘানার এই ফরোয়ার্ড। কিন্তু শেষ সময় ভারসাম্য রাখতে পারলেন না, তাই শটেও থাকল না তত জোর। মন্থর গতিতে জালের দিকে যাওয়া বল থামালেন পর্তুগালের একজন। সম্ভাবনা জাগিয়েও হার এড়াতে পারল না ঘানা। পাঁচ গোলের রোমাঞ্চকর লড়াইয়ে জিতে কাতার বিশ্বকাপে শুভ সূচনা করল পর্তুগাল।

দোহার স্টেডিয়াম ৯৭৪-এ ‘এইচ’ গ্রুপের ম্যাচে ৩-২ গোলে জিতেছে ফের্নান্দো সান্তোসের দল। সব কটি গোল হয়েছে দ্বিতীয়ার্ধে।

রেকর্ড গড়া গোলে ‘ডেডলক’ ভাঙেন ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো। আন্দ্রে আইয়ু সমতা ফেরানোর পর তিন মিনিটের মধ্যে দুটি গোল করে দলকে ভালো জায়গায় নিয়ে যান জোয়াও ফেলিক্স ও রাফায়েল লেয়াও। ৮৮তম মিনিটে ব্যবধান কমিয়ে নাটকীয়তার আশা জাগায় ঘানা। কিন্তু শেষ রক্ষা করতে পারেনি আফ্রিকার দলটি।

প্রথমার্ধে যেন খুঁজেই পাওয়া যায়নি তাদের। নিজেদের অর্ধ থেকেই বের হতে পারেনি ঘানা। সেই সময়ে রাজত্ব করেন রোনালদো। একটি সুযোগ হাতছাড়া করেন, একটি চমৎকার হেড নেন। একবার বল জালেও পাঠান, কিন্তু ফাউলের জন্য পাননি গোল।

সব রোমাঞ্চ যেন অপেক্ষা করছিল দ্বিতীয়ার্ধের জন্য। আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণে দারুণ জমে ওঠা ম্যাচে ফিনিশিংয়ে কার্যকারিতাই শেষ পর্যন্ত ব্যবধান গড়ে দিল। সেখানে এগিয়ে থাকা পর্তুগালই পেল ৩ পয়েন্ট।  

Also Read: পেলে-মেসিদের ছাড়িয়ে রোনালদোর নতুন ইতিহাস

আক্রমণাত্মক শুরুর পর দশম মিনিটেই এগিয়ে যেতে পারত পর্তুগাল। রুবেন নেভেসের থ্রু বল ডি-বক্সে পেয়ে প্রথম ছোঁয়ায় একটু গড়বড় করে ফেলেন তিনি; ওয়ান-অন-ওয়ানে তারপরও সুযোগ ছিল। ঠিক সময়ে গোলরক্ষক এগিয়ে এসে ঘানাকে বিপদমুক্ত করেন।

তিন মিনিট পর আবারও হতাশ হতে হয় রোনালদোকে। এবার বাঁ দিক থেকে সতীর্থের বাড়ানো ক্রসে দুরূহ কোণে লাফিয়ে উঠে বলে মাথাও ছোঁয়ান তিনি; কিন্তু লক্ষ্যে রাখতে পারেননি।

৩১তম মিনিটে এগিয়ে যেতে পারত পর্তুগাল। দারুণ দক্ষতায় বল বাড়ান জোয়াও ফেলিক্স। দুই জনের পাহারায় থাকার পরও পায়ের কারিকুরিতে বল নিয়ন্ত্রণে নিয়ে এগিয়ে যান পর্তুগাল অধিনায়ক। পরে চমৎকার কোনাকুনি শটে বল পাঠান জালে। তবে গোলের নয়, রেফারি বাজান ফাউলের বাঁশি! রোনালদোর মৃদু ধাক্কাতেই পড়ে গিয়েছিলেন ঘানার ডিফেন্ডার আলেকজান্ডার জিকু।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে অন্য চেহারায় দেখা যায় ঘানাকে। বিশেষ করে প্রতি-আক্রমণে গতি বাড়ায় আফ্রিকায় দলটি। ৫৩তম মিনিটে গোলের জন্য একটি শটও নেয় তারা। সেটি ছিল বেশ দূরে। তবে পরের মিনিটে আলিডু সেইডুর বুলেট গতির শট যায় পোস্ট ঘেঁষে।

৬৫তম মিনিটে সফল স্পট কিকে দলকে এগিয়ে নেন রোনালদো। তাকেই ফাউল করায় পেনাল্টি পেয়েছিল পর্তুগাল। মোহামেদ সালিসুর ধাক্কা ততটা জোরাল মনে হয়নি।

চারটি আসরে গোল করে এতদিন পেলে, মিরোস্লাভ ক্লোসা, উয়ি সিলার ও লিওনেল মেসির পাশে ছিলেন রোনালদো। এবার সবাইকে ছাড়িয়ে পাঁচবারের বর্ষসেরা ফুটবলার উঠে গেলেন নতুন উচ্চতায়।

৭২তম মিনিটে মোহাম্মেদ কুদুসের বুলেট গতির শট গোলরক্ষক বরাবর যাওয়ায় বিপদ হয়নি। পরের মিনিটে আয়াক্সের এই মিডফিল্ডারের ক্রসে আন্দ্রে আইয়ু খুব কাছ থেকে খুঁজে নেন জাল। কিছুই করার ছিল না গোলরক্ষকের। ক্রস ফেরানোর সুযোগ ছিল দানিলো পেরেইরার সামনে। কিন্তু পারেননি পিএসজি ডিফেন্ডার, বল বেরিয়ে যায় তার দুই পায়ের ফাঁক গলে।

চলতি আসরে আফ্রিকার কোনো দলের এটাই প্রথম গোল।

৭৮তম মিনিটে প্রতি-আক্রমণ থেকে দলকে আবার এগিয়ে নেন ফেলিক্স। মাঝমাঠ থেকে ব্রুনো ফের্নান্দেসের বাড়ানো বল পেয়ে, দ্রুত গতিতে এগিয়ে আগুয়ান গোলরক্ষকের পাশ দিয়ে কোনাকুনি শটে ঠিকানা খুঁজে নেন তিনি।   

দুই মিনিট পর স্কোর লাইন ৩-১ করে ফেলেন লেয়াও। প্রতি-আক্রমণ থেকে ফের্নান্দেস বাঁয়ে বল বাড়ান এসি মিলানের এই ফরোয়ার্ডকে। বদলি নামার তিন মিনিটের কম সময়ের মধ্যে প্রথম আন্তর্জাতিক গোলের স্বাদ পেয়ে যান তিনি।    

রোনালদো, ফেলিক্সের সঙ্গে ৮৮তম মিনিটে বের্নার্দো সিলভাকে তুলে নেন পর্তুগাল কোচ। পরের মিনিটেই ওসমান বুকারির চমৎকার হেডে ব্যবধান কমায় ঘানা! গোল হজমের পর বেঞ্চে ভীষণ ক্ষুব্ধ দেখায় রোনালদোকে। মাথায় হাত উঠে যায় পেপের।

এরপর তো শেষ মিনিটে উইলিয়ামসের ওই চেষ্টা! কত বড় বাঁচা বেঁচে গেছেন বুঝতে পেরে মাথায় হাত দিতে দেখা যায় রোনালদোকেও।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক