জয়পুরহাটে হত্যা মামলায় ৩ জনের যাবজ্জীবন

এ ছাড়া প্রত্যেককে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়; যা অনাদায়ে তাদের আরও দুই বছর করে কারাবাসে থাকতে হবে।

জয়পুরহাট প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 28 Nov 2022, 02:16 PM
Updated : 28 Nov 2022, 02:16 PM

জয়পুরহাটে হত্যা মামলায় তিনজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। 

সোমবার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. নুরুল ইসলাম এ রায় ঘোষণা করেন বলে ওই আদালতের রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী (পিপি) নৃপেন্দ্রনাথ মণ্ডল জানান। 

এ ছাড়া প্রত্যেককে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়; যা অনাদায়ে তাদের আরও দুই বছর করে কারাবাসে থাকতে হবে। 

সাজাপ্রাপ্তরা হলেন, সদর উপজেলার রশিদার গ্রামের প্রয়াত সিরাজ প্রধানের ছেলে মদন (৩৫), একই গ্রামের বাচ্চা মিয়ার ছেলে সাদ্দাম হোসেন (৩২) এবং আব্দুল মোতালেবের ছেলে দেলোয়ার হোসেন (৩৮)।

ওই আদালত পুলিশের পরিদর্শক আব্দুল লতিফ খান জানান, রায় ঘোষণার সময় আসামিরা আদালতে হাজির ছিলেন। পরে তাদের জেলা কারাগারে পাঠানো হয়। 

মামলার নথির বরাত দিয়ে পিপি নৃপেন্দ্রনাথ বলেন, জয়পুরহাট সদর উপজেলার রশিদার গ্রামের ইউনুস আলী গভীর নলকূপের ‘ড্রেনম্যান’ হিসেবে কাজ করতেন। ২০০৯ সালের ২৭ ফেব্রুয়ারি রাতে খাবার খেতে তিনি নলকূপের ঘরের উদ্দেশে যান। পরদিন ভোরে এখানের একটি বাঁশ ঝাড়ের ভেতর খাড়ির পানিতে অর্ধেক নিমজ্জিত অবস্থায় ইউনুসের লাশ দেখতে পান স্থানীয়রা। 

এ ঘটনায় পর দিন নিহতের ছোট ভাই আলম হোসেন সরকার বাদী হয়ে চার জনকে আসামি করে সদর থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। 

পরে তিন আসামি আদালতে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন করলে আদালত  সেই আবেদনে সারা না দিয়ে তাদের কারাগারে পাঠায়। 

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সদর থানার এসআই রফিকুল ইসলাম একই বছরের ৩ সেপ্টেম্বর ওই তিনজন এবং একই গ্রামের তছির উদ্দিনের ছেলে নাসির উদ্দিনের নামে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। 

তবে নাসির উদ্দিন বিচার চলা অবস্থায় মারা যান। 

রায়ে পুরোপুরি সন্তুষ্ট নন জানিয়ে পিপি নৃপেন্দ্রনাথ বলেন, “যেহেতু আসামিরা দোষ স্বীকার করে বিচারিক হাকিম আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন, তাই তাদের মৃত্যুদণ্ড কাম্য ছিল।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক