চিনির স্বাস্থ্যকর বিকল্প কী হতে পারে?

মিষ্টি খাওয়া যেতে পারে তবে পরিমাণের দিকে নজর দিতে হবে।

লাইফস্টাইল ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 12 Feb 2024, 07:16 AM
Updated : 12 Feb 2024, 07:16 AM

মিষ্টি খাবার সবারই পছন্দ। তবে সে মিষ্টি যেন স্বাস্থ্যকর হয় সেদিকে খেয়াল রাখা প্রয়োজন।

কেক, ব্রাউনি, চা, কফি কিংবা আইসক্রিমের সাথে অনেক চিনি খাওয়া হয়ে যায়। যেখানে কিনা সারা দিনে ছয় থেকে নয় চা-চামচ চিনি খাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়। 

এই বিষয়ে রিয়েলসিম্পল ডটকমে প্রকাশিত প্রতিবেদনে মার্কিন খাদ্য পরিকল্পক ও পুষ্টিবিদ প্রশিক্ষক কিম শাপিরা বলেন, “চিনি প্রদাহ বাড়ায় এবং নির্ভরশীলতা সৃষ্টি করে। আবার অনেকেই সেটা খেতে পছন্দ করেন না। তবে চিনি দৈনিক খাবার তালিকার একটা অংশ যা পরিমিত গ্রহণ করা উচিত।”

চিনি প্রদাহ বাড়ায়

শাপিরা, একবারে সকল চিনি-জাতীয় খাবার বন্ধ না করার পরামর্শ দেন। এসব খেতে হবে পরিমিত।

“জন্মদিনে কেক খাওয়া বেশ মজাদার ব্যাপার। তবে দৈনিক খাবার তালিকার অংশ হয়ে যাওয়াটা বা অভ্যাস করে নেওয়াটা সমস্যা”- বলেন তিনি।

তিদিন বেশি করে ফল, সবজি, আঁশ এবং গাঁজানো খাবার খাওয়ার পরামর্শ দেন- এই পুষ্টিবিদ।

চিনির পরিবর্তে ফলের চাটনি ব্যবহার

বেইকিং করার সময় স্বাস্থ্যকর শর্করা হিসেবে ফলের চাটনি ব্যবহারে করতে হবে। পেষানো কলা, টিনজাত কুমড়া মিষ্টি খাবার, পুষ্টি ও স্বাদ বর্ধক হিসেবে কাজ করে।

ম্যাপল সিরাপ ও মধু

শাপিরা বলেন, “চিনির বিকল্প হিসেবে ম্যাপল সিরাপ ও মধু গ্রহণ করা যায়। এগুলো কম প্রক্রিয়াজাত এবং খনিজ, ভিটামিন ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ।”

“এতে গ্লাইসেমিক ইন্ডেক্স পরিশোধিত চিনির তুলনায় কম। অন্যকথায় বলা যায়, এই বিকল্পগুলো চিনির তুলনায় রক্তে শর্করার পরিমাণ ধীর-স্থিরভাবে বৃদ্ধি করে।”

মধুর কি স্বাস্থ্য উপকারিতা আছে?

পরিশোধিত চিনির চেয়েও মধুতে ক্যালরির পরিমাণ বেশি। এক টেবিল-চামচ মধুতে ৬৩ ক্যালরি, এক টেবিল-চামচ ম্যাপল সিরাপে ৫২ ক্যালরি এবং এক টেবিল-চামচ পরিশোধিত চিনিতে ৪৩ ক্যালরি পাওয়া যায়।

শাপিরা বলেন, “এদের প্রত্যেকেরই স্বাদ ভিন্ন যা পানীয়ের স্বাদ ভিন্নভাবে বৃদ্ধি করে। এসব উপাদান পরিমিত গ্রহণ করা উচিত।”

কৃত্রিম মিষ্টি সম্পর্কে দ্বিতীয়বার চিন্তা করুন

কৃত্রিম মিষ্টিগুলো এমন লোকদের জন্য তৈরি যারা শর্করার মাত্রা বৃদ্ধি ছাড়াই মিষ্টি কিছু খেতে চান। তবে কৃ্ত্রিম চিনির সাথে সম্পর্কিত স্বাস্থ্যসমস্যাগুলো বিগত কয়েক বছর ধরে উদ্বেগ সৃষ্টি করে চলেছে বলে জানা যায়।

গবেষণায় দেখা গেছে, কৃত্রিম মিষ্টি চিনি বা মিষ্টি টাইপ-২ ডায়াবেটিস বা হৃদসংক্রান্ত রোগ সৃষ্টিতে ভূমিকা রাখে।

শাপিরা বলেন, “অনেক গবেষণা ও সমীক্ষায় দেখা গেছে ‍কৃত্রিম মিষ্টি ওজন বৃদ্ধি, বিপাকে জটিলতা ও ক্যান্সারের সাথে সম্পর্কিত।”

“আরও অনেক গবেষণায় প্রয়োজন রয়েছে। তবে এখনকার পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে বলা যায়, ‘আর্টিফিশিয়াল সুইটনার’ বিপাকে বাধার সৃষ্টি করে যা অধিভোজনের ঝুঁকি বাড়ায় এবং ওজন বৃদ্ধি করে”- বলেন শাপিরা।

মোদ্দা কথা হল

চিনির স্বাস্থ্যকর বিকল্প খুঁজে পেতে চাইলে এমন কিছু বাছাই করতে হবে যা প্রাকৃতিক উপাদান থেকে আসে যেমন-ফল বা মধুর তৈরি সিরাপ।

তবে এই ধরনের খাবার বাছাই করার আগে ভালোভাবে এসবে থাকা উপাদানের তালিকা দেখে নিতে হবে।

শাপিরা বলেন, “চিনি খেলে সাথে এমন খাবার খুঁজে বের করতে হবে যা নিজে থেকেই দেহকে আরোগ্য লাভে সহায়তা করে। সবকিছুই পরিমিত গ্রহণ করা স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী।”

আরও পড়ুন

কৃত্রিম চিনির প্রভাব

Also Read: কৃত্রিম চিনি থেকে ডায়াবেটিসের ঝুঁকি

Also Read: চিনি নিয়ে ভুল সত্যি