আয়োজকের বিপত্তি বোধ; নোরা ফাতেহির ঢাকায় আসা কি হবে?

নোরা ফাতেহিকে আনার পরিকল্পনা নেওয়ার পর থেকে নানা বিপত্তি মোকাবেলার কথা বলছেন অনুষ্ঠানের আয়োজক।

মুহাম্মাদ আসাদুল্লাহবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 15 Nov 2022, 06:59 PM
Updated : 15 Nov 2022, 06:59 PM

বিশ্বকাপে নাচতে কাতার যাওয়ার আগে বাংলাদেশ মাতিয়ে যাবেন নোরা ফাতেহি; এমন আশায় অনেকে টিকেট কিনলেও এই বলিউড তারকার আসা জটিল থেকে জটিলতর হয়েছে।

আয়োজকদের পরিকল্পনায় ছিল, নোরা ফাতেহি ঢাকায় এসে ৪০ মিনিটের অনুষ্ঠানে নাচবেন। কিন্তু তথ্য মন্ত্রণালয়ের শর্তে নোরাকে শুধু শুটিংয়ে অংশ নেওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

Also Read: ঢাকায় ৪০ মিনিটের জন্য মঞ্চ মাতাতে আসছেন নোরা ফাতেহি

এরপরও টিকেট বিক্রি করছেন আয়োজকরা; যা নিয়ে উঠেছে প্রশ্ন। এর মধ্যে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের একের পর এক চিঠিতে সার্বিক পরিস্থিতিতে বিপত্তি বোধ করার কথা জানিয়েছেন আয়োজক ওমেন্স লিডারশিপ কর্পোরেশনের প্রতিষ্ঠাতা ইশরাত জাহান মারিয়া (মারিয়া মৃত্তিকা স্বর্ণা)।

এত সব ঝামেলা দেখে ঢাকায় আসার ক্ষেত্রে নোরা অনীহা দেখাচ্ছেন বলে আয়োজনে সম্পৃক্ত এক ব্যক্তি জানিয়েছেন। নাম প্রকাশ না করার শর্তে তিনি বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “নোরার ঢাকায় না আসার সম্ভাবনা ৮০ শতাংশ।”

ঝামেলায় বিপত্তি বোধ করলেও এবিষয়ে কথা বলতে চাইছেন না মারিয়া। টিকেট বিক্রি এবং নোরার না আসার বিষয়ে কথা বলতে মঙ্গলবার তাকে একাধিক বার ফোন করা হলেও তিনি কল কেটে দেন। এসএমএসে জানতে চাইলেও প্রতি উত্তর দেননি। অথচ তার আগে এদিনই তিনি ফোন ধরে কথা বলেছেন বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের সঙ্গে, জানিয়েছেন ঝামেলা পোহানোর কথা।

দিলবারকন্যা নোরা ফাতেহিকে ঢাকায় আনা নিয়ে এর আগেও উদ্যোগ নেওয়া হয়েছিল; কিন্তু তা ভেস্তে যায় ডলার সঙ্কটসহ নানা জটিলতায়।

Also Read: ‘ডলার সঙ্কট’ আটকালো নোরা ফাতেহির ঢাকায় আসা

পরে ওমেন্স লিডারশিপ কর্পোরেশন ১৮ নভেম্বর ঢাকার একটি কনভেনশন সেন্টারে নোরাকে নিয়ে অনুষ্ঠানের পরিকল্পনা সাজায়। জানানো হয়, ‘গ্লোবাল এচিভারস অ্যাওয়ার্ড-২০২২’ এ অংশ নিতে ১৮ নভেম্বর ঢাকার একটি কনভেনশন সেন্টারে জমকালো মঞ্চে তিনি নাচবেন।

তবে গত ৮ নভেম্বর তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয় কেবল ‘উইমেন এমপাওয়ারমেন্ট ইন বাংলাদেশ’ শীর্ষক একটি তথ্যচিত্রের শুটিংয়ে অংশ নিতে ঢাকায় আসার অনুমতি দেয় নোরাকে।

তাতে দেওয়া হয় চারটি শর্তে বলা হয়, এক দিন বাংলাদেশে অবস্থান করে শুধু ডকুমেন্টরির শুটিংয়ে অংশ নিতে পারবেন এই বলিউড তারকা। এর বাইরে আর কোনো কাজ বা অনুষ্ঠানে অংশ নিতে পারবেন না। আর নোরার পেছনে যাবতীয় খরচের উপর ৩০ শতাংশ হারে দেওয়া অগ্রিম কর সরকারকে দিতে হবে। তা না হলে প্রামাণ্যচিত্রটি সেন্সর ছাড়পত্র দেওয়ার জন্য বিবেচনায় আনা হবে না।

Also Read: বাংলাদেশে আসতে নোরা ফাতেহিকে ৪ শর্ত

কিন্তু তারপরও দেখা যায়, ‘গ্লোবাল অ্যাচিভার্স অ্যাওয়ার্ড ২০২২’ এর টিকেট বিক্রি করা হচ্ছে নোরা ফাতেহির নামে।

এর মধ্যেই গত রোববার জাতীয় রাজস্ব বোর্ড-এনবিআর এক চিঠিতে জানায়, নোরার আসার কোনো খবর তাদের দেওয়া হয়নি, আর ৩০ শতাংশ উৎসে করও তারা পায়নি।

মারিয়া তখন বলেছিলেন যে তারা উৎসে কর পরিশোধ করেছেন এবং বিষয়টি এনবিআর কেন জানাল, তা বুঝতে পারছেন না।

এরপর অনুষ্ঠানের তিন দিন আগে মঙ্গলবার জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের ভ্যাট বাস্তবায়ন শাখা আরেক চিঠিতে আয়োজকদের হুঁশিয়ার করে, টিকেট বিক্রি করার ক্ষেত্রে অনুমতি না নিলে এবং ভ্যাট না দিলে ভিনদেশি এই শিল্পীকে নিয়ে অনুষ্ঠান করা যাবে না।

নোরার আসার খবর তাদেরও জানানো হয়নি উল্লেখ করে ভিনদেশী শিল্পীকে নিয়ে অনুষ্ঠানের জন্য ভ্যাট দপ্তরের অনুমতি নেওয়া এবং ব্যাংক গ্যারান্টি জমা দেওয়ার কথা স্মরণ করিয়ে দেওয়া হয় চিঠিতে।

Also Read: নোরা ফাতেহির পেছনে যত খরচ, তার ৩০% পেতে এনবিআরের চিঠি

Also Read: নোরা ফাতেহির খবর শুনে এবার ভ্যাট শাখার হুঁশিয়ারি

এই সব মিলিয়ে বড় ‘অনেক প্রবলেম ফেইস’ করতে হচ্ছে বলে জানান আয়োজক প্রতিষ্ঠানের কর্ণধার মারিয়া।

তিনি মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “প্রোগ্রামটা নিয়ে আমি অনেক ‘প্রবলেম ফেইস’ করতেছি। এটা যারা করতেছে, তারা আমার মানহানি করার চেষ্টা করতেছে। একটা চিঠি ইস্যু হওয়ার সাথে সাথে আমার কাছে আসার আগে মিডিয়াতে চলে যাচ্ছে কীভাবে?”

Also Read: এবারও অনুমতি পাননি নোরা ফাতেহি, ঢাকার অপেক্ষা বাড়ল

নোরাকে আনার পরিকল্পনা নেওয়ার শুরু থেকে নানা বিপত্তি মোকাবেলার কথা বলেন মারিয়া।

তিনি বলেন, “মৌখিক অনুমোদন পেয়ে চার মাস আগে নোরাকে অ্যাডভান্স করেছি। এরপর অনুমোদনের জন্য আবেদন করতে গিয়ে শুনি শিল্পীর এগ্রিমেন্ট ও পাসপোর্টের কপি জমা দিতে হবে। শিল্পীকে আরও অ্যাডভান্স না করলে এগ্রিমেন্ট ও পাসপোর্ট দেবে না। আরও অ্যাডভান্স দিয়ে তারপর অনুমোদনের জন্য আবেদন করি।” 

এনবিআরের রোবারের চিঠি নিয়ে মারিয়া সোমবার বলেছিলেন, তিনি উৎসে কর পরিশোধ করেছেন।

মঙ্গলবারের চিঠি নিয়ে তিনি বলেন, “এনবিআর আগে আমাকে এ বিষয়ে জানায়নি। আজ (মঙ্গলবার) বিকালে একটি চিঠি আমাকেও দেওয়া হয়েছে।

“চিঠি এবং করণীয় বিষয় নিয়ে আমি এনবিআরের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করেছি। তাদের পরামর্শ অনুযায়ী আগামীকাল (বুধবার) আমি প্রয়োজনীয় ব্যাংক গ্যারান্টিসহ ভ্যাট আইনের প্রয়োজনীয় সকল কিছু বাস্তবায়ন করব।”

উইমেন লিডারশিপ কর্পোরেশনের ফেইসবুক পাতায় আয়োজনের টিকেটিং পার্টনার হিসেবে মিনিসো বাংলাদেশের সঙ্গে চুক্তির ছবি দেওয়া হয়েছে। নোরার অনুষ্ঠানে ভিআইপি টিকেট ১৫ হাজার টাকা, গোল্ড ১০ হাজার ও সিলভার ৫ হাজার টাকায় বিক্রিও হচ্ছে।

এছাড়া কয়েকটি পোস্টে গ্লোবাল অ্যাচিভমেন্ট অ্যাওয়ার্ডে নোরার অংশগ্রহণের বিষয়েও ঘোষণা দেওয়া হয়।

নোরা কোনো অনুষ্ঠানের অনুমতি না পাওয়ার পরও টিকেট বিক্রি নিয়ে জানতে পরে মারিয়ারে ফোন করলে তার সাড়া পাওয়া যায়নি।

আগামী ২০ ডিসেম্বর কাতার বিশ্বকাপের উদ্বোধন হবে, এই আয়োজনের ‘থিম সং’য়ে নোরাও অংশ নেবেন। ফলে তার দুদিন আগে জটিলতার মুখে পড়া সফরে তিনি বাংলাদেশে আসবেন কি না, তা নিয়ে অনিশ্চয়তা থেকেই যাচ্ছে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক