উত্তরায় গার্ডার দুর্ঘটনা: রিট করতে বলল হাই কোর্ট

আসক ও ব্লাস্ট বলছে, পর্যাপ্ত ক্ষতিপূরণ এবং মানুষের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার আদেশ চাওয়া হবে রিটে।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 16 August 2022, 10:36 AM
Updated : 16 August 2022, 10:36 AM

ঢাকার উত্তরায় বিআরটি প্রকল্পের কংক্রিটের গার্ডার পড়ে হতাহতের ঘটনা হাই কোর্টের নজরে এনেছেন আইন ও সালিশ কেন্দ্র (আসক) এবং বাংলাদেশ লিগ্যাল এইড অ্যান্ড সার্ভিসেস ট্রাস্ট (ব্লাস্ট)।

তবে বিষয়টি রিট আকারে আনতে সংগঠন দুটির আইনজীবীদের নির্দেশনা দিয়েছেন বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি কাজী মো. ইজারুল হক আকন্দের হাই কোর্ট বেঞ্চ।

মঙ্গলবার সকালে আসক ও ব্লাস্টের পক্ষে সুপ্রিম কোর্টের তিন আইনজীবী মো. শাহিনুজ্জামান, সৈয়দ মাহসিব হোসাইন ও জামিউল হক ফয়সাল ওই দুর্ঘটনা নিয়ে প্রকাশিত সংবাদ হাই কোর্টের নজরে আনেন। আদালত তাদের বক্তব্য শুনে রিট আবেদনের পরামর্শ দেয়।

আসকের আইনজীবী শাহিনুজ্জামান বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, আমরা আইন ও সালিশ কেন্দ্র এবং ব্লাস্টের পক্ষে বিষয়টি নিয়ে গিয়েছিলাম আদালত, যেন স্বঃতপ্রণোদিত হয়ে আমলে নেয়।

“আদালত আমাদের বক্তব্য শুনলেন পরে বললেন, রিট পিটিশন আকারে আসেন। এখন আমরা রিট পিটিশন আকারেই যাব।”

আগামী বুধবার এই রিট ফাইল দাখিলের কথা জানিয়ে এই আইনজীবী বলেন, “রিটে হতাহতের পর্যাপ্ত ক্ষতিপূরণ চাওয়া হবে, পাশাপাশি মানুষের নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণসহ অন্যান্য বিষয় চাওয়া হবে।”

উত্তরার জসিম উদ্দীন রোডের মাথায় প্যারাডাইস টাওয়ারের সামনে সোমবার বিকালে বিশাল ওজন ও আকারের বিআরটি প্রকল্পের একটি বক্সগার্ডার তোলার সময় হঠাৎ ভারসাম্য হারিয়ে ক্রেনটি কাত হয়ে যায়; গার্ডারটি ট্রেইলরে না বসে সেটি আছড়ে পড়ে একটি প্রাইভেট কারের ওপর।

গার্ডার চাপায় প্রাইভেটকারের মধ্যে ঘটনাস্থলেই মারা যান দুই শিশু ও দুই নারীসহ পাঁচজন।

ওই পরিবারের আরও দুই সদস্যকে গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে, মাত্র দুদিন আগে বিয়ে হয়েছে তাদের।

চাপা পড়ে থাকার তিন ঘণ্টা পর গার্ডার সরিয়ে ও গাড়ি কেটে তাদের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

এ ঘটনায় ‘অবহেলাজনিত মৃত্যুর’ অভিযোগে ওই প্রকল্পের ঠিকাদার কোম্পানি, ক্রেইন চালক এবং প্রকল্পের নিরাপত্তার দায়িত্বপ্রাপ্তদের বিরুদ্ধে নিহতদের স্বজনদের পক্ষে উত্তরা পশ্চিম থানায় মামলা করা হয়েছে।

অন্যদিকে মর্মান্তিক ওই দুর্ঘটনার কারণে প্রকল্পের সব ধরনের কাজ আপাতত বন্ধ ঘোষণা করেছেন উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম।

দুর্ঘটনার পরদিন মঙ্গলবার ঘটনাস্থল পরিদর্শনে গিয়ে তিনি বলেন, “নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত ঢাকায় বিআরটিএ প্রকল্পের সব ধরনের কাজ বন্ধ থাকবে।”

আরও খবর

Also Read: নিরাপত্তা নিশ্চিত করা না পর্যন্ত বিআরটি প্রকল্পের কাজ বন্ধ: মেয়র আতিক

Also Read: গার্ডার দুর্ঘটনা: ক্রেইন চালক, ঠিকাদার কোম্পানির বিরুদ্ধে মামলা

Also Read: গার্ডারে গাড়ি চাপা পড়ে প্রাণহানি: নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন

Also Read: এক বিআরটিতেই বারবার গার্ডার দুর্ঘটনা

Also Read: গার্ডার চাপায় চিড়ে চ্যাপ্টা গাড়ি, ভেতরেই গেল ৫ প্রাণ

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক