ভোটের সময় ফেইসবুকে অপপ্রচার ঠেকাতে ইসিকে ‘সহযোগিতা দেবে’ মেটা

কমিশনের অতিরিক্ত সচিব অশোক কুমার দেবনাথ জানান, ভোটের তফসিল ঘোষণার পর থেকে ইসির সহায়তায় মেটা তাদের কার্যক্রম শুরু করবে।

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 3 August 2023, 09:28 AM
Updated : 3 August 2023, 09:28 AM

বাংলাদেশের দ্বাদশ সংসদ নির্বাচন ঘিরে ফেইসুকে ’সাম্প্রদায়িতকতা, বিদ্বেষ ও সহিংসতা’ ছড়ানো কন্টেন্ট ঠেকাবে সোশাল মিডিয়া কোম্পানি মেটা। 

বৃহস্পতিবার ফেইসবুকের এই মূল প্রতিষ্ঠানের তিন সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল নির্বাচন কমিশনের অতিরিক্ত সচিবের সঙ্গে এ নিয়ে বৈঠক করেন। 

বৈঠকে নির্বাচনের সময় ফেইসবুকে নানা ধরনের অপপ্রচার রোধে মেটার ভূমিকা কী হবে তা নিয়ে আলোচনা হয়। 

সভা শেষে ইসির অতিরিক্ত সচিব অশোক কুমার দেবনাথ বলেন, “আজকে আমরা ফেইসবুকের একটা টিমের সাথে মিটিং করেছি। আমাদের যে টেকনিক্যাল লোক আছে, তাদের নিয়ে প্রতিনিধি দলের সঙ্গে বসেছিলাম। কারণ এখানে কিছু টেকনিক্যাল ব্যাপার ছিল।  

“মূলত ব্যাপারটা ছিল ফেইসবুকে যেসব অপপ্রচার হয়, সেই অপপ্রচারগুলো কীভাবে রোধ করা যায়। বিশেষ করে ঘৃণাসূচক মন্তব্য, সাম্প্রদায়িকতা বা অন্যান্য যেসব ভায়োলেশন হয়। সেগুলো তারা (মেটা) ডিলিট করবে, রিমুভ করে দেবে, ব্লক করবে। মূলত এই ছিল মিটিং এর বিষয়।” 

নির্বাচন ভবনের ওই বৈঠকে বাংলাদেশে মেটার হেড অব পাবলিক পলিসি রওজন সারওয়ার, হেড অব এপিএসি গ্লোবাল রেসপন্স আইদান হয় এবং রেগুলেটরি স্পেশালিস্ট ইউজিন পোহ উপস্থিত ছিলেন। 

আর অতিরিক্ত সচিব অশোক কুমার দেবনাথের নেতৃত্বে আইডিইএ-২ প্রকল্প পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আবুল হাসনাত মো. সায়েম, এনআইডি সিস্টেম ম্যানেজার মো, আশরাফ হোসেন বৈঠকে অংশ নেন।

মেটার সঙ্গে এদিনের আলোচনাটি প্রাথমিক পর্যায়ের ছিল বলে জানান অশোক কুমার দেবনাথ। 

তিনি বলেন, “পরবর্তীতে নির্বাচন কমিশনের একজন ফোকাল পয়েন্ট নির্ধারণ করা হবে তাদের সাথে যোগাযোগ রাখার জন্য। তারা নির্বাচন কমিশনের সাথে যোগাযোগ করবে।“ 

এ বছরের ডিসেম্বরের শেষে বা জানুয়ারির শুরুতে দ্বাদশ সংসদ নির্বাচন হবে। তফসিল ঘোষণা হবে অক্টোবরের পরে। 

অতিরিক্ত সচিব অশোক কুমার দেবনাথ জানান, তফসিল ঘোষণার পর থেকে ইসির সহায়তায় মেটা তাদের কার্যক্রম শুরু করবে। 

“আমাদের কাছে যেটা নেগেটিভ প্রতীয়মান হবে, আমরা তাদেরকে জানাব; তারা সেটাকে রিমুভ করে দেবে। শুধুমাত্র নির্বাচনকেন্দ্রিক বিভিন্ন কনটেন্ট বিষয়ে এমন পদক্ষেপ নেওয়া হবে। তফসিল ঘোষণার পর এই কার্যক্রম শুরু হবে।” 

ফেইসবুক কর্তৃপক্ষের আগ্রহেই এ সভা হয়েছে জানিয়ে অতিরিক্ত সচিব বলেন, “আমরা না, ফেসবুক কর্তৃপক্ষই আমাদের সাথে যোগাযোগ করেছে। তারাই আমাদের কাছে সময় চেয়েছিল। তার পরিপ্রেক্ষিতে আজকে মিটিং হল।” 

মেটার প্রতিনিধি দলটি পরে প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী হাবিবুল আউয়ালের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করে। তবে সাংবাদিকদের সঙ্গে তারা কোনো কথা বলেননি। 

২০১৮ সালের একাদশ সংসদ নির্বাচনের সময় অপপ্রচার ঠেকাতে প্রশাসনের পাশাপাশি নির্বাচন কমিশনও সোশাল মিডিয়ায় নজরদারি করার কথা জানিয়েছিল। ভোটের কয়েক সপ্তাহ আগে ২৪ ঘণ্টা একটি টিম ফেইসবুকসহ বিভিন্ন সোশাল মিডিয়ায় নির্বাচনকে কেন্দ্র করে গুজব ও অপপ্রচার রোধে কাজ করে।

পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগের মহাপরিচালকের নেতৃত্বে ওই টিমে পুলিশ হেড কোয়ার্টার, পুলিশের স্পেশাল ব্রাঞ্চ, র‌্যাব, বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল (বিসিসি), বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন রেগুলেটরি কমিশন (বিটিআরসি) এবং ন্যাশনাল টেলিকমিউনিকেশন মনিটরিং সেন্টার (এনটিএমসি) থেকে একজন করে প্রতিনিধি এবং নির্বাচন কমিশনের সিনিয়র মেইনটেন্যান্স ইঞ্জিনিয়ার ছিলেন।

Also Read: সোশাল মিডিয়ায় নজরদারিতে ইসিও

Also Read: অপপ্রচার ঠেকাতে ‘কন্টেন্ট ফিল্টারিং’ হবে: জব্বার

Also Read: সামাজিক মাধ্যম তদারকিতে ইসির ৮ সদস্যের টিম