রুবেলকে আর বিয়ে নয়: হ্যাপী

ডাক্তারি পরীক্ষার পরেও বিয়ে করার শর্তে ক্রিকেটার রুবেল হোসেনকে সমঝোতার প্রস্তাব দিলেও এখন সে অবস্থান থেকে সরে এসেছেন চিত্রনায়িকা নাজনীন আক্তার হ্যাপী। 

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 16 Dec 2014, 12:58 PM
Updated : 16 Dec 2014, 07:38 PM

‘প্রতারক’ রুবেলকে আর বিয়ে করবেন না জানিয়ে এই অভিনেত্রী বলছেন মামলার ‘শেষ’ দেখে ছাড়বেন তিনি।

হ্যাপী মঙ্গলবার বিকালে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “রুবেল সম্পর্কের নামে আমার সঙ্গে প্রতারণা করেছে। আমার সরলতার সুযোগ নিয়ে সম্পর্কের নামে রুবেল মিথ্যার আশ্রয় নিয়েছে। এমন প্রতারককে বিয়ে করা আসলে সম্ভব নয়।”

জাতীয় দলের পেসার রুবেলকে হয়রানি করা তার উদ্দেশ্য নয় মন্তব্য করে হ্যাপী বলেন, “রুবেলকে হয়রানি করা আমার টার্গেট নয়। কারও প্ররোচনা কিংবা কারও সঙ্গে আলোচনা নয়, আমি নিজেই এ মামলা দায়েরের সিদ্ধান্ত নিয়েছি।”

রুবেলের সঙ্গে সম্পর্কের একাধিক ‘প্রমাণ’ এরইমধ্যে মিরপুর থানায় জমা দিয়েছেন বলে জানান হ্যাপী।

রুবেলের জামিনের খবরে ‘ক্ষুব্ধ’ হ্যাপী এই ক্রিকেটারের বিরুদ্ধে শারীরিক নির্যাতনেরও অভিযোগ করেছেন।

শনিবার মিরপুর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা দায়েরের পর রুবেল তার বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করার হুমকি দিয়েছেন বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

“রুবেল আমাকে বলেছে, মামলা করে তার কিছুই করতে পারব না। শেখ হেলাল, আন্দালিব রহমান পার্থের সঙ্গে তার খুব ভালো পরিচয় আছে। তাদের দিয়ে সে মামলা তুলে নেবে। প্রয়োজন হলে প্রধানমন্ত্রীর ছেলের কাছেও যাবে সে। আমি জানি না সত্যি তাদের সঙ্গে রুবেলের ভালো সম্পর্ক রয়েছে কি না।”

তবে শেষ পর্যন্ত মামলা চালিয়ে যাবেন জানিয়ে হ্যাপী বলেন, “প্রতারক রুবেলের বিরুদ্ধে মামলাটির শেষ দেখে ছাড়ব আমি।”

‘কিছু আশা কিছু ভালবাসা’ চলচ্চিত্রের নায়িকা হ্যাপী বলেন, “ফেইসবুকে আলাপচারিতার সূত্র ধরেই ‍রুবেলের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে আমার। নয় মাসের এই সম্পর্কে রুবেল বিভিন্ন সময় আমাকে বিয়ে করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল।”

৫৩ ওয়ানডেতে ৬৯ উইকেটশিকারী রুবেলদের মিরপুর কমার্স কলেজ রোডের  বাসায় তার নিয়মিত যাতায়াত ছিল বলেও দাবি করেন হ্যাপী।

তিনি বলেন, “রুবেলের পরিবারের সদস্যদের সঙ্গেও আমার পরিচয় ছিল। তার বাবা-মায়ের সঙ্গে আমার পরিচয় ছিল।

“রুবেল আমাকে তার খুব ভালো বন্ধু বলে পরিচয় করে দিয়েছিল। সে বলেছিল, তার বাবা-মাকে আমাদের বিয়ের ব্যাপারে রাজি করাবে। কিন্তু সে তা করেনি। আমি অনেকবার জানতে চেয়েছিলাম এ ব্যাপারে। সে নানা অজুহাতে বিষয়টি এড়িয়ে যেত।”

সর্বশেষ গত ৩ ডিসেম্বর বিকালে রুবেলের বাসায় গিয়েছিলেন জানিয়ে তিনি বলেন, “ঘরে অচেনা দুই মেয়ের সঙ্গে রুবেলকে ‘অন্তরঙ্গ’ অবস্থায় দেখতে পাই। এ নিয়ে ঝগড়ার এক পর্যায়ে রুবেল আমাকে মারধর করে। এতে আমি আহত হই।”

এ ঘটনার পর তিনি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিলে রুবেল সমঝোতার চেষ্টা করেছিলেন বলে দাবি করেন হ্যাপী।

তিনি বলেন, “জাতীয় ক্রিকেট দলের ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা, শফিউল ইসলাম, নাসির হোসেন, নাঈম ইসলামসহ আরও দুজন নবাগত ক্রিকেটার বিষয়টি মেটানোর চেষ্টা করেন।

“মাশরাফি ভাই দুজনকেই ব্যাপারটি মিটিয়ে নিতে বলেছিলেন। রুবেলকে বলেছিলেন, সম্পর্ক যে পর্যায়ে গড়িয়েছে এখন বিয়ে করে নেওয়াটাই শ্রেয়। বাকিরাও রুবেলকে বুঝিয়েছিল।

“তখন রুবেল তার মত পরিবর্তন করেছিল। সে আমাকে বলেছিল, ভেবে দেখবে। কিন্তু পরবর্তীতে শেষ কথা জানিয়ে দেয় সে। সাফ বলেছে, আমাকে বিয়ে করতে পারবে না।”

এ পরই তিনি থানায় মামলা করেন বলে জানান হ্যাপী।

একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিবিএ দ্বিতীয় সেমিস্টারের ছাত্রী হ্যাপীকে মামলার পরপরই পুলিশের ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারে নিয়ে যাওয়া হয়। রোববার ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তার ডাক্তারি পরীক্ষা হয়। তবে পরীক্ষার প্রতিবেদন এখনও তার হাতে এসে পৌঁছায়নি বলে জানিয়েছেন তিনি।

২১ বছর বয়সী হ্যাপীর মামলায় সোমবার হাই কোর্ট থেকে চার সপ্তাহের আগাম জামিন নিয়েছেন ২৫ এ পা দিতে যাওয়া রুবেল।

হ্যাপীর মামলা করার আগের দিনই মিরপুর থানায় এই অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে ব্ল্যাকমেইলিংয়ের অভিযোগ এনে রুবেল একটি জিডি করেন বলে তার আইনজীবীরা জানিয়েছেন।

আর রুবেল বলেছেন, দুই/একদিনের মধ্যেই সংবাদ সম্মেলন করে ‘সব প্রশ্নের’ জবাব দেবেন তিনি।

তরুণ তারকা রুবেলের বিরুদ্ধে উঠতি অভিনেত্রী হ্যাপীর এই মামলার বিষয়টি গত চার দিন ধরেই সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ও গণমাধ্যমের অন্যতম আলোচিত বিষয়।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক