বন্ধ হয়ে যাচ্ছে গুগলের ক্লাউড গেইমিং সেবা ‘স্টেডিয়া’

ওয়েব ব্রাউজার এবং গুগলের ক্রোমকাস্ট স্ট্রিমিং ডিভাইস ব্যবহার করে এমন প্ল্যাটফর্মেও শক্তিশালী হার্ডওয়্যার ছাড়াই গেইমিং কনসোল মানের অভিজ্ঞতা দিত সেবাটি।

প্রযুক্তি ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 1 Oct 2022, 07:10 AM
Updated : 1 Oct 2022, 07:10 AM

ক্লাউড গেইমিং সেবা ‘স্টেডিয়া’ বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে গুগল। ক্রেতাদের মধ্যে সেবাটি নিয়ে ‘আগ্রহ না থাকায়’ জানুয়ারিতে সেবাটি বন্ধ করে দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে ওয়েব জায়ান্ট।

গুগল স্টেডিয়া চালু করেছিল তিন বছরের কিছু বেশি সময় আগে। কিন্তু বৃহস্পতিবারে গুগলের ভাইস প্রেসিডেন্ট এবং ‘স্টেডিয়া’ মহাব্যবস্থাপক ফিল হ্যারিসন এক ব্লগ পোস্টে লিখেছেন, গ্রাহকভিত্তিক গেইমিং সেবাটি “ব্যবহারকারীদের কাছ থেকে আমাদের প্রত্যাশা অনুযায়ী সাড়া পায়নি।”

হ্যারিসন ব্লগ পোস্টে আরও জানিয়েছেন, স্টেডিয়া হার্ডওয়্যারের পেছনে ক্রেতারা যা খরচ করেছিলেন তার সবটাই গুগল স্টোরের মাধ্যমে ফেরত দেওয়ার পরিকল্পনা করেছেন তারা। এ ছাড়া, প্ল্যাটফর্মটির সকল গেইম এবং অন্যান্য সফটওয়্যার কনটেন্টের মূল্যও ফেরত পাওয়া যাবে স্টেডিয়া স্টোরের মাধ্যমে।

২০১৯ সালে স্টেডিয়া চালু করেছিল গুগল। ওই সময়ে গেইমিং বাজারের দিকে ঝুঁকেছিল একাধিক প্রযুক্তি জায়ান্ট। সে সময়ে গুগলের ক্লাউড গেইমিং সেবাটিকে ‘গেইমিং দুনিয়ার নেটফ্লিক্স’ বলে বর্ণনা করেছিলেন কেউ কেউ। স্মার্টফোন থেকেই ভিডিও গেইম স্ট্রিম করে খেলতে পারতেন এর ব্যবহারকারীরা।

এ ছাড়াও ওয়েব ব্রাউজার এবং গুগলের ক্রোমকাস্ট স্ট্রিমিং ডিভাইস ব্যবহার করতো এমন প্ল্যাটফর্মগুলোতেও চলতো স্টেডিয়া। শক্তিশালী হার্ডওয়্যার ছাড়াই গেইমিং কনসোল মানের অভিজ্ঞতা দিত সেবাটি।

তবে বিবিসি জানিয়েছে, শুরু থেকেই বাজারে সংগ্রাম করছিল স্টেডিয়া। ২০২১ সালে স্টেডিয়া প্ল্যাটফর্মের জন্য গেইম তৈরি বন্ধের ঘোষণা দিয়েছিল গুগল।

অন্যদিকে, বৈশ্বিক মন্দার শঙ্কায় বিনিয়োগ কমিয়ে আনছে এবং নতুন কর্মী নিয়োগের প্রক্রিয়া নিয়ে নতুন করে ভাবছে গুগলসহ বাজারের প্রভাবশালী প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলো। এ পরিস্থিতিতেই স্টেডিয়া বন্ধ করার ঘোষণা দিল গুগল।

স্টেডিয়া বন্ধ করে দিলেও গুগল এখনও গেইমিং খাতের প্রতি ‘প্রতিজ্ঞাবদ্ধ’ বলে জানিয়েছেন হ্যারিসন। কোম্পানিটি স্টেডিয়ার পর্দার পেছনের প্রযুক্তিগুলো অন্যান্য সেবায় ব্যবহার করবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

স্টেডিয়া গেইমাররা ২০২৩ সালের ১৮ জানুয়ারি পর্যন্ত তাদের গেইম লাইব্রেরিতে প্রবেশ করতে এবং গেইম খেলতে পারবেন বলে জানিয়েছেন হ্যারিসন। আর মূল্য ফেরতের প্রক্রিয়ার সিংহভাগ জানুয়ারি মাসের মাঝামাঝি সময়ে মধ্যে সম্পন্ন হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক