লকবিট হ্যাকারদের তথ্যের বিনিময়ে ‘পুরস্কার দেবে’ যুক্তরাষ্ট্র

তবে বিশ্লেষকরা বলছেন, এর মধ্যে অনেক শীর্ষস্থানীয় হ্যাকারই পশ্চিমা আইন প্রয়োগকারী সংস্থাগুলোর নাগালের বাইরে।

প্রযুক্তি ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 22 Feb 2024, 09:08 AM
Updated : 22 Feb 2024, 09:08 AM

কুখ্যাত সাইবার অপরাধী দল লকবিটের মূল হোতাদের তথ্যের বিনিময়ে দেড় কোটি ডলার পর্যন্ত আর্থিক পুরস্কারের ঘোষণা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

বুধবারের এ ঘোষণার আগে হ্যাকার দলটির সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকার অভিযোগে অভিযুক্ত এক বাবা ও ছেলেকে গ্রেপ্তারের কথা জানিয়েছে ইউক্রেইনের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

লকবিটের বিরুদ্ধে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক আইন প্রয়োগকারী সংস্থার লাগাতার অভিযান পরিচালনার সর্বশেষ পদক্ষেপ এটি, যারা বিভিন্ন অনলাইনভিত্তিক সাইবার অপরাধী দলের নেতৃত্ব দেয় ও ভুক্তভোগীদের তথ্য চুরি করে মুক্তিপণ দাবি করে থাকে।

এ সপ্তাহে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন ঘোষণা দেয়, হ্যাকার দলটির কর্মকাণ্ড বানচাল করতে তারা এমন এক বিরল আন্তর্জাতিক অভিযান পরিচালনা করেছেন, যেখানে দলটির সদস্যরা নিজেদের সাইটের নিয়ন্ত্রণই হারিয়ে ফেলেছে।

Also Read: কুখ্যাত লকবিট দমনে যৌথ অভিযান যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন ও ইইউ’র

এদিকে, জব্দ করা ওয়েব পেইজে আসন্ন তথ্য প্রকাশ করে হ্যাকারদের সঙ্গে উপহাসও করেছেন কর্মকর্তারা। পাশাপাশি, মুক্তিপণ সন্ধানী চক্রের শিকার হওয়া ভুক্তভোগীদের জন্য তারা এমন এক টুল প্রকাশ করেছেন, যেখানে বিনামূল্যেই ডেটা ডিক্রিপ্ট করার সুবিধা মিলবে।

এ ছাড়া, দলটির দুটি মূল কার্যক্রম নিয়ে অভিযোগ তুলে সেগুলোর বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞাও জারি করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

যুক্তরাষ্ট্রের ‘স্টেট ডিপার্টমেন্ট’ এক বিবৃতিতে বলেছে, র‍্যানসমওয়্যার দলটির মূল হোতাদের গ্রেপ্তার করে তাদেরকে বিচারের আওতায় আনা যায়, এমন তথ্য দিতে পারলে তারা দেড় কোটি ডলার পর্যন্ত আর্থিক পুরস্কার দেবেন।

ইউক্রেইনের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ওই বাবা-ছেলের পরিচয় প্রকাশ না করলেও দাবি করেছে, তারা নেদারল্যান্ডস, জার্মানি, ফিনল্যান্ড, ফ্রান্স, সুইজারল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, যুক্তরাষ্ট্র ও ব্রিটেনের দুইশ’র বেশি ক্রিপ্টো অ্যাকাউন্ট ও ৩৪টি সার্ভার জব্দ করেছে, যেগুলো ব্যবহার করত হ্যাকার দলটি।

জব্দ হওয়া সাইটটিতে হ্যাকাররা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ‘ট্রলিংয়ের’ শিকার হওয়ায় একে ‘স্মরণকালের সবচেয়ে রোমাঞ্চকর টেকডাউন’ বলে আখ্যা দিয়েছে রয়টার্স। তবে বিশ্লেষকরা বলছেন, এর মধ্যে অনেক শীর্ষস্থানীয় হ্যাকারই পশ্চিমা আইন প্রয়োগকারী সংস্থাগুলোর নাগালের বাইরে। আর লকবিট যে বিভিন্ন নতুন সাইবার অপরাধী দল নিয়ে নতুন করে নিজেদের কার্যক্রম শুরু করবে, সেটিও সময়ের ব্যপার মাত্র।

“কেউ কেউ গ্রেপ্তার হলেও এটা মূলত কারিগরি পর্যায়ের ব্যাঘাত,” বলেন সাইবার নিরাপত্তা কোম্পানি ‘সিকিওরওয়ার্কস’-এর থ্রেট রিসার্চ বিভাগের পরিচালক রেফ পিলিং।

তিনি আরও বলেন, লকবিটে যে ব্যাঘাত ঘটেছে, তা তাদের ‘সহযোগী’ ছোট ছোট হ্যাকার দলগুলোই সামাল দিয়েছে। তার দাবি, হ্যাকাররা ‘এখনও বহাল তবিয়তে আছে ও তাদের কর্মকাণ্ড চালিয়ে যাচ্ছে’।

“এমন হুমকি অস্থায়ীভাবে সমাধান করা হলেও দলের সহযোগীরা এখনও বড় ঝুঁকি,” বলেন পিলিং।