মেসির কাছে ক্ষমা চাইলেন সেই মেক্সিকান বক্সার

দেশের প্রতি আবেগের বশে বাড়াবাড়ি করে ফেলেছিলেন, উপলব্ধি করতে পারছেন কানসেলো আলভারেস।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 1 Dec 2022, 05:10 AM
Updated : 1 Dec 2022, 05:10 AM

লিওনেল মেসিকে হুমকি দিয়ে যে বেশ বাড়াবাড়িই করে ফেলেছিলেন, তা এখন বুঝতে পারছেন কানসেলো আলভারেস। মেক্সিকান এই বক্সার তাই ক্ষমা চাইলেন আর্জেন্টাইন মহাতারকার কাছে। এই বিতর্কে মুখ খুললেন স্বয়ং মেসিও। আর্জেন্টিনা অধিনায়ক বললেন, কাউকে তিনি অসম্মান করেননি।

কাতার বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বে মেক্সিকোর বিপক্ষে আর্জেন্টিনার ম্যাচের পর আলোচিত ওই ঘটনা ঘটে। আর্জেন্টিনার ২-০ গোলের জয়ে সেদিন দুর্দান্ত গোলে দলকে এগিয়ে নেন মেসি। ম্যাচের পর আর্জেন্টিনার ড্রেসিং রুমের একটি ভিডিও ভাইরাল হয়ে যায়। যেখানে দেখা যায়, আরও নানা কিছুর সঙ্গে মেক্সিকোর একটি জার্সি পড়ে আছে ড্রেসিং রুমে, ঠিক মেসির সামনেই। এক পর্যায়ে ওই জার্সিতে পায়ের সামান্য ছোঁয়া লাগে আর্জেন্টাইন তারকার।

মেক্সিকোর জার্সিতে মেসি ‘লাথি দিয়েছেন’, ‘পা দিয়েছেন মাড়িয়েছেন’, এরকম অনেক মন্তব্যসহ ভিডিওটি ছড়িয়ে পড়ে সামাজিক মাধ্যমে। সেই ভিডিও পোস্ট করেই কানসেলো আলভারেস টুইটারে হুমকি দেন মেসিকে দেখে নেওয়ার।

২২ লাখ ফলোয়ার সমৃদ্ধ আলভারেসের সেই হুমকিও তুমুল আলোচনার জন্ম দেয় বিশ্বজুড়ে। সের্হিও আগুয়েরোসহ আরও বেশ কজন তারকা সামাজিক মাধ্যমেই আলভারেসকে উদ্দেশ্যকে করে লেখেন যে, ফুটবলের ড্রেসিং রুমে ঘর্মাক্ত জার্সি এভাবেই ফেলে রাখা হয় এবং এখানে অসম্মান করার মতো কোনো ঘটনাই ঘটেনি।

অবশেষে বুধবার আলভারেস টুইট করেই জানান তার নতুন উপলব্ধির কথা।

“দেশের প্রতি আমার আবেগ ও তীব্র ভালোবাসা থেকে গত কয়েকদিনে আমি বাড়াবাড়ি করে ফেলেছি এবং এমন মন্তব্য করেছি, যা উচিত হয়নি। আমি তাই মেসির কাছে ও আর্জেন্টিনার মানুষের কাছে ক্ষমাপ্রার্থী। প্রতিদিনই আমরা নতুন কিছু শিখছি, এবার ছিল আমার পালা।”

পোল্যান্ডের বিপক্ষে বুধবার ২-০ গোলের জয়ের পর মেসিকে জিজ্ঞেস করা হয় এই বিতর্ক নিয়ে। আর্জেন্টাইন অধিনায়ক পরিষ্কার করে দেন নিজের অবস্থান।

“আমি দেখেছি সে কী বলেছে। তবে আমার মনে হয়, এটা স্রেফ ভুল বোঝাবুঝি। আমাকে যারা চেনে, তারা জানে যে আমি কাউকে অসম্মান করি না। আমার ক্ষমা চাওয়ার কিছু নেই, কারণ আমি মেক্সিকোর মানুষ, তাদের জার্সি বা কাউকে অসম্মান করিনি।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক