সেই হ্যান্ডবলের জন্য ক্ষমা চাইবেন না সুয়ারেস

অপরাধের শাস্তি মাঠেই পেয়েছেন বলে মনে করেন উরুগুয়ের এই স্ট্রাইকার।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 1 Dec 2022, 10:33 PM
Updated : 1 Dec 2022, 10:33 PM

কাতার বিশ্বকাপে ঘানা ও উরুগুয়ে ম্যাচের আগে ঘুরে-ফিরে আসছে ১২ বছর আগে লুইস সুয়ারেসের ইচ্ছাকৃত সেই হ্যান্ডবলের প্রসঙ্গ। ওই ঘটনায় অবশ্য অনুতপ্ত নন উরুগুয়ের এই স্ট্রাইকার। অপরাধের শাস্তি মাঠেই পেয়েছেন বলে মনে করেন তিনি। 

২০১০ বিশ্বকাপে কোয়ার্টার-ফাইনালে মুখোমুখি হয়েছিল ঘানা ও উরুগুয়ে। নির্ধারিত সময়ে ১-১ সমতার পর অতিরিক্ত ৩০ মিনিটের একেবারে শেষ মুহূর্তে গোল প্রায় পেয়েই যাচ্ছিল আফ্রিকার দেশটি। আদিয়াহর হেড যাচ্ছিল জালে, গোললাইন থেকে গোলরক্ষকের মতো হাত দিয়ে বল ফিরিয়ে দেন সুয়ারেস। ঘানা পেনাল্টি পেলেও আসামোয়া জিয়ানের শট লাগে ক্রসবারে। 

টানেলে যাওয়ার আগে সেই দৃশ্য দেখে বুনো উল্লাস করেন সুয়ারেস। প্রথম আফ্রিকান দল হিসেবে বিশ্বকাপের সেমি-ফাইনালে খেলার খুব কাছে গিয়েও টাইব্রেকারে হেরে বিদায় নেয় ঘানা।

সেই ম্যাচের এক যুগ পর শুক্রবার আবার মুখোমুখি হচ্ছে দল দুটি। ‘জি’ গ্রুপের এই ম্যাচ জিতলে শেষ ষোলোয় উঠে যাবে ঘানা। 

সংবাদ সম্মেলনে বৃহস্পতিবার সুয়ারেসকে হ্যান্ডবলের ওই ঘটনার কথা মনে করিয়ে দেন ঘানার এক সংবাদিক। ঘানার কেউ কেউ তাকে ‘শয়তান’ মনে করে, ওই ঘটনার জন্য তিনি দুঃখিত কি-না, জানতে চাওয়া হয় সাবেক বার্সেলোনা স্ট্রাইকারের কাছে। 

“ওই ঘটনায় আমি দুঃখিত নই। আমি ক্ষমা চাইতাম, যদি কোনো খেলোয়াড়কে আঘাত করতাম। হ্যান্ডবলের জন্য আমাকে লাল কার্ড দেখানো হয়েছিল। (তাদের জিততে না পারার পেছনে) আমার দোষ ছিল না, কারণ আমি তো পেনাল্টি মিস করিনি।” 

ঘানার কোচ আডো আগেই বলে দিয়েছেন, আসছে লড়াইয়ে প্রতিশোধের কোনো ভাবনা তাদের নেই। ২০১০ বিশ্বকাপের সেই স্কোয়াড থেকে এবারের দলে আছেন কেবল অধিনায়ক আন্দ্রে আইয়ু। তিনিও বললেন, অতীত নিয়ে ভাবছেন না তারা।

“আমাদের সবার খারাপ লেগেছিল তখন। প্রতিশোধ হোক বা না হোক, আমরা একই দৃঢ় সংকল্প এবং জয়ের আকাঙ্ক্ষা নিয়ে মাঠে নামব। আমি অতীতে ফিরে তাকাচ্ছি না, আমি অতীতে মনোযোগ দিতে চাই না।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক