বগুড়ায় ‘কুড়াল’ নিয়ে ফিরলেন বিএনপির সাবেক নেতা জুয়েল, বাদল হাই কোর্টে

হিরো আলম জানিয়েছেন, তিনি এরই মধ্যে হাই কোর্টে আপিল করেছেন।

বগুড়া প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 16 Jan 2023, 12:23 PM
Updated : 16 Jan 2023, 12:23 PM

বগুড়া-৪ আসনের উপ-নির্বাচনের প্রার্থী বিএনপির সাবেক নেতা ও নন্দীগ্রাম পৌরসভার সাবেক মেয়র মো. কামরুল হাসান সিদ্দিকী জুয়েল নির্বাচন কমিশন থেকে প্রার্থিতা ফিরে পেয়েছেন। 

অপরদিকে বগুড়া-৬ আসনের প্রার্থী শাহজাহানপুর উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও সদর উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি সরকার বাদল প্রার্থিতা ফিরে না পেয়ে রিট করতে উচ্চ আদালতে গেছেন। 

ঢাকার আগারগাঁয়ের নির্বাচন কমিশনের উপ-সচিব আতিয়ার রহমান বলেন, আপিল শুনানিতে বগুড়া-৪ (কাহালু-নন্দীগ্রাম) ও বগুড়া-৬ (সদর) এর আসনের দুজনের প্রার্থিতা ফেরত চেয়ে আপিল আবেদন মঞ্জুর হয়েছে; আর দুজনের হয়নি। 

প্রার্থিতা ফেরত পাওয়া স্বতন্ত্র অপরজন হলেন বগুড়া-৬ আসনের আব্দুল মান্নান আকন্দ। আর যে দুই প্রার্থীর আবেদন মঞ্জুর হয়নি তারা হলেন- স্বতন্ত্র প্রার্থী আশরাফুল আলম ওরফে হিরো আলম এবং সরকার বাদল। 

বগুড়া জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে জানানো হয়েছিল, হলফনামায় দেওয়া তথ্যে নানা রকম গড়মিল থাকায় প্রার্থীদের মনোনয়ন বাতিল করা হয়। এর মধ্যে প্রার্থীদের দেওয়া এক শতাংশ ভোটার তালিকা যাচাই করে একাধিক ব্যক্তির সমর্থন পাওয়া যায়নি।  

পরে প্রার্থীরা ঢাকায় নির্বাচন কমিশনে আপিল করেন। বৃহস্পতিবার আপিলের শুনানি শেষ হয়। রোববার আপিলের ফলাফল প্রত্যেক প্রার্থীকে জানিয়ে দেওয়া হয়। 

বগুড়া-৪ আসনের প্রার্থী কামরুল হাসান সিদ্দিকী জুয়েল বলেন, “আসলে বগুড়া থেকেই এটা সম্ভব ছিল কিন্তু কেন করলেন না বুঝতে পারছি না। নির্বাচন কমিশনও একই ধরনের মন্তব্য করেছে।”  

তিনি বলেন, “হয়রানি হলেও নির্বাচন কমিশনে সঠিক বিচার পেয়েছি। আমার মনোনয়ন বৈধ হওয়ায় ধন্যবাদ জানাই নির্বাচন কমিশনকে।” 

সাবেক বিএনপি নেতা বলেন, “আজ প্রতীকও বরাদ্দ পেয়েছি। কুড়াল প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বী করতে মাঠে আছি।” 

অপরদিকে সদর উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি সরকার বাদল বলেন, “নির্বাচন কমিশনের রায়ের বিরুদ্ধে হাই কোর্টে রিটের প্রস্তুতি নিয়েছি। এক শতাংশ ভোটার স্বাক্ষরে মিল না পাওয়ার অভিযোগ আনা হয়েছিল।  

“নির্বাচন কমিশনে আপিলের পর কমিশন জানিয়েছে, যৌক্তিক কারণ না দেখানোর কারণেই নাকি আমার আপিল খারিজ করা হয়েছে।“ 

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আলোচিত কন্টেন্ট ক্রিয়েটর আশরাফুল আলম ওরফে হিরো আলম বগুড়া-৪ ও বগুড়া-৬ দুটি আসন থেকেই প্রার্থী হয়েছিলেন। 

হিরো আলম জানিয়েছেন, তিনি এরই মধ্যে হাই কোর্টে আপিল করেছেন। 

চার বছর পর গত ১০ ডিসেম্বর সরকারবিরোধী আন্দোলনের মধ্যে সংসদ থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় বিএনপি; যার অংশ হিসেবে বগুড়া-৪ এবং বগুড়া-৬ আসনের সংসদ সদস্যসহ ছয়জন পদত্যাগ করেন। এর মধ্যে একজন সংরক্ষিত মহিলা সদস্য।

নির্বাচন কমিশনের ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, পাঁচটি সংসদীয় আসনে উপ-নির্বাচনের ভোট হবে আগামী ১ ফেব্রুয়ারি। 

আরও পড়ুন:

Also Read: বগুড়ায় ভোটের মাঠে বিএনপির ২ সাবেক নেতা

Also Read: বগুড়ায় বিএনপির সাবেক ২ নেতার মনোনয়ন বাতিল

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক