নেত্রকোণায় তিন মামলায় নারীসহ ৩ জনের যাবজ্জীবন

আইনজীবী জানান, শিশু হত্যা মামলায় পলাশ; হেরোইন বহনের দায়ে ইয়াসমীন এবং কিংকনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

নেত্রকোণা প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 30 Nov 2023, 09:52 AM
Updated : 30 Nov 2023, 09:52 AM

নেত্রকোণায় শিশু হত্যা ও দুইটি মাদক মামলায় নারীসহ তিনজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত।

নেত্রকোণার অতিরিক্ত জজ এ এফ এম মারুফ চৌধুরী বৃহস্পতিবার তিন আসামির উপস্থিতিতে এ রায় ঘোষণা করেন।

দণ্ডিতরা হলেন- শিশু মেয়ে হত্যায় মামলায় সদর উপজেলার দেওপুর মুক্তিবাজার গ্রামের পলাশ সরকার (৪৩), মাদক মামলায় নেত্রকোণা পৌর শহরের চকপাড়া এলাকার মো. কাইয়ুম ওরফে কিংকন (৪৫) এবং মঈনপুর এলাকার ইয়াসমীন আক্তার (৩৫)।

শিশু হত্যা মামলার বরাত দিয়ে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী কমলেশ কুমার চৌধুরী বলেন, কলমাকান্দা উপজেলার ডোয়ারিয়াকোণা গ্রামের সুমন মল্লিকের বাড়িতে গরু চুরি করতে গিয়ে ধরা পড়েন পলাশ সরকার।

এর জেরে ২০১৩ সালের ২৫ অগাস্ট সকালে ওই বাড়িতে ঢুকে সুমন মল্লিকের ছয় বছর বয়সি মেয়ে বিশাল মল্লিককে ছাদে নিয়ে গিয়ে গলাকেটে হত্যা করে পালিয়ে যায় পলাশসহ তিনজন।

ওই দিনই শিশুটির বাবা সুমন থানায় হত্যা মামলা করেন। তদন্ত শেষে ওই বছরের ২৫ নভেম্বর আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেন তদন্তকারী কর্মকর্তা। বিচার কাজ শেষে আদালত বৃহস্পতিবার পলাশকে দোষী সাব্যস্ত করে রায় দিল।

পলাশের সঙ্গে থাকা অপর দুজন অপ্রাপ্ত বয়সের হওয়ায় শিশু আদালতে তাদের বিচার চলছে বলে জানান আইনজীবী।

মাদক মামলায় বরাত দিয়ে আইনজীবী কমলেশ বলেন, ২০১৮ সালের ২৭ মে  ৫০৭ গ্রাম হেরোইনসহ ইয়াসমীনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

পরে সদর মডেল থানার এসআই সোলায়মান হক বাদী হয়ে ওই দিন থানায় মামলা করেন। একই বছরের ২ অগাস্ট আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেন তদন্তকারী কর্মকর্তা।

এ ছাড়া  ২০১৮ সালে ২৪ জুন ২৩০ গ্রাম হেরোইনসহ মো. কাইয়ুম ওরফে কিংকনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। একই দিন তার বিরুদ্ধে সদর মডেল থানার এসআই আব্দুল্লাহ আল মামুন মামলা করেন।

তদন্ত শেষে ওই বছরের ২১ অগাস্ট অভিযোগপত্র জমা দেন তদন্তকারী কর্মকর্তা। বিচার কাজ শেষে আদালত ইয়াসমীন ও কিংকনকে দোষী সাব্যস্ত করে যাবজ্জীবন সাজার রায় দিয়েছে বলে জানান এই আইনজীবী।