লাইন ফেটে নেত্রকোণা শহরে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ

শনিবার সকালে ঢাকা থেকে যন্ত্রপাতি গেলে ফেটে যাওয়া পাইপলাইন মেরামতের কাজ শুরু হবে।

নেত্রকোণা প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 2 Feb 2024, 06:20 PM
Updated : 2 Feb 2024, 06:20 PM

সরবরাহ লাইন ফেটে যাওয়ায় নেত্রকোণা জেলা শহরে পাইপলাইনে তিতাসের গ্যাসের সরবরাহ বন্ধ রাখা হয়েছে।

শুক্রবার সন্ধ্যায় এই ঘটনা ঘটে। যেসব বাড়িতে পাইপলাইনের গ্যাসে রান্না হয়, সেসব বাড়িতে ভোগান্তিতে পড়ে মানুষ। খাবারের খোঁজে ভিড় বাড়ে হোটেলে। কিন্তু বাড়তি প্রস্তুতি না থাকায় খাবার শেষ হয়ে যায় দ্রুতই।

তিতাস গ্যাসের নেত্রকোণা আঞ্চলিক অফিসের প্রকৌশলী সুমঙ্গল গোলদার জানান, ময়মনসিংহের গৌরীপুরে পানি উন্নয়ন বোর্ডের উন্নয়ন কাজের জন্য মাটি কাটার সময় নেত্রকোণায় গ্যাস সরবরাহের মূল লাইন ফেটে যায়। দুর্ঘটনার আশঙ্কায় তাৎক্ষণিক ময়মনসিংহ থেকে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ রাখা হয়।

লাইনটির ফাটলের স্থানটিকে রাতে প্রাথমিক মেরামত করা হলেও গ্যাস সরবরাহ স্বাভাবিক হতে সময় লাগবে বলে জানান এই কর্মকর্তা।

তিনি বলেন, “শনিবার সকালে ঢাকা থেকে সকালে যন্ত্রপাতি এসে পৌঁছার পর মেরামত করা হবে। এরপর গ্যাস সরবরাহ স্বাভাবিক হবে।”  

নেত্রকোণা শহরে তিতাস গ্যাসের সাড়ে ৫ হাজার আবাসিক ও বাণিজ্যিক গ্রাহক আছে।

শহরের সাতপাই এলাকার বাসিন্দা শিল্পী সরকার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে রান্না বসাতে গিয়ে দেখি চুলা জ্বলছে না। কিছুই বুঝে উঠতে পারছিলাম না। পরে খোঁজ নিয়ে দেখি পাশের সবার বাসাতেই গ্যাস নাই।

“রাতে মেয়ে ও স্বামীকে নিয়ে রাত ৯টার দিকে হোটেলে খেয়ে এসেছি। হোটেলেও পর্যাপ্ত খাবার ছিল না। কারণ, সবাই হোটেলে খেতে গিয়েছিল।”

নাগড়া এলাকার মীর মনিরুজ্জামান বলেন, “আম্মা সন্ধ্যার দিকে রান্না ঘরে ঢুকে দেখেন গ্যাস নাই। পরে খবর পাই লাইন ফেটে গেছে। আমরা একান্নভুক্ত পরিবারের ১২ জন সদস্য। এত মানুষের খাবার জোগাড় করা কঠিন। সকালেও গ্যাস না আসলে কাল কীভাবে রান্না হবে, কীভাবে খাব?“

নিউটাউন এলাকার হোমিও চিকিৎসক কল্পনা সূত্রধর বলছিলেন, “বাসায় লাকড়ি দিয়ে রান্না করার কোনো ব্যবস্থা নাই। ছেলে মেয়েদের নিয়ে রাতে হোটেল থেকে আনিয়ে খেয়েছি। সকালে কীভাবে খাওয়াব বুঝতে পারছি না।”