কুমিল্লায় কাউন্সিলর সোহেল হত্যা: ৬ হামলাকারীকে শনাক্ত

কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের ওয়ার্ড কাউন্সিলর আওয়ামী লীগ নেতা সৈয়দ মো. সোহেল ও শ্রমিক লীগ নেতা হরিপদ সাহা হত্যাকাণ্ডে অংশ নেওয়া ছয় জনকে শনাক্ত করার কথা জানিয়েছেন পুলিশ।

কুমিল্লা প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 29 Nov 2021, 04:42 PM
Updated : 29 Nov 2021, 04:42 PM

সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে ও গ্রেপ্তার আসামিদের কাছে পাওয়া তথ্য থেকে এদের নাম ও পরিচয় শনাক্ত করা হয় বলে সোমবার কুমিল্লার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো. সোহান সরকার জানান।

এরা হলেন শাহ আলম [এজাহারভুক্ত আসামি], সাজেন [এজাহারভুক্ত আসামি], সাব্বির [এজাহারভুক্ত আসামি], জেল সোহেল [এজাহারভুক্ত আসামি], নাজিম এবং ফেনী থেকে আগত একজন [পরিচয় অজ্ঞাত]।

এদিকে, সোমবার পুলিশ ঘটনার সময় হত্যাকাণ্ডে অংশ নেওয়া কয়েকজনকে দেখা যাচ্ছে এমন একটি ভিডিও ও একটি ছবি গণমাধ্যমে প্রকাশ করেছে। একটি সংবাদ বিজ্ঞপ্তিও গণমাধ্যমকর্মীদের সরবরাহ করেছে।

গত সোমবার (২২ নভেম্বর) বিকালে কুমিল্লা শহরের পাথুরিয়াপাড়ায় ১৭ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি সৈয়দ মো. সোহেলের সিমেন্টের দোকান থ্রি স্টার এন্টারপ্রাইজে হামলা চালায় একদল মুখোশধারী। সেখানে থাকা সোহেল এবং তার সহযোগী ওয়ার্ড শ্রমিক লীগ সভাপতি হরিপদ সাহাকে তারা গুলি করে হত্যা করে।

এই ঘটনায় পরদিন (২৩ নভেম্বর) গভীর রাতে সোহেলের ছোট ভাই সৈয়দ মোহাম্মদ রুমান কুমিল্লা কোতোয়ালি মডেল থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

মামলায় ১১ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা আরও দশ জনকে আসামি করা হয়েছে। এই পর্যন্ত ছয় জন গ্রেপ্তার হয়েছেন। 

গ্রেপ্তারদের মধ্যে মোহাম্মদ রাব্বি ইসলাম অন্তু (১৯) সোমবার [২৯ নভেম্বর] কুমিল্লার আদালতে ফৌজদারি কার্যবিধির ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন৷ 

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) সোহান সরকার বলেন, গ্রেপ্তার হওয়া নগরের সংরাইশ এলাকার বাদল মিয়ার ছেলে মোহাম্মদ রাব্বি ইসলাম অন্তু আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন। 

পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদের বরাতে সোহান সরকার বলেন, রাব্বি ইসলাম অন্তু এই হত্যাকাণ্ডের হিট স্কোয়াডের সদস্যদের ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা ভাড়া করে দিয়েছিলেন।

“গ্রেপ্তারদের জিজ্ঞাসাবাদ ও সিসিটিভি ফুটেজ পর্যালোচনাসহ তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় ওই ঘটনায় হিট স্কোয়াডের ৬ জনকে শনাক্ত করা সম্ভব হয়েছে।”

সোহান সরকার বলেন, প্রাথমিকভাবে জানা যায়, আসামিরা ঘটনার আগের রাতে আসামি সাজেনের বাসায় বৈঠক করেন এবং ঘটনার দিন বিকাল ৪টায় একটি ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা ভাড়া করে কাউন্সিলর সোহেলের অফিসের দিকে রওনা দেন।

সোমবার সন্ধ্যায় পুলিশ গণমাধ্যমে একটি ভিডিও ও একটি ছবি পাঠিয়েছে।

ভিডিওতে দেখা যায়, দৌড়ে ফাঁকা গুলি ছুড়তে ছুড়তে দুই ব্যক্তি কাউন্সিলর সোহেলের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থ্রি স্টার এন্টারপ্রাইজের দিকে যাচ্ছে। এরপর দেখা যায় দুজনের পেছনের ব্যক্তি গুলি করে সড়ক ধরে পূর্বদিকে চলে যাচ্ছে।

ছবিতে দেখা যায়, কালো পোশাক, মাথায় কালো কাপড় বাঁধা ও কালো মুখোশ পরা দুই ব্যক্তির হাতে পিস্তল। প্রথমে শাহ আলম ও তার পেছনে নাজিমকে চিহ্নিত করা ছবিতে।

আরও পড়ুন

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক