‘গুম, খুন’ দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয় নয়: খসরু

এসব বিষয়ে কূটনীতিকরা কথা বলবে বলে মনে করেন বিএনপি নেতা।

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 25 Nov 2022, 12:23 PM
Updated : 25 Nov 2022, 12:23 PM

জাতিসংঘের সনদে মানবাধিকার, ভোটাধিকার, মৌলক অধিকার বিষয়গুলো রয়েছে উল্লেখ করে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, ‘গুম ও খুন করা’ কোনো দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয় নয়।

জাতিসংঘের সনদগুলোতে বাংলাদেশসহ সব দেশ সই করেছে জানিয়ে তার অভিযোগ, “আপনি গুম করবেন, আপনি খুন করবেন, আপনি মিথ্যা মামলা দেবেন, আপনি ভোটাধিকার কেড়ে নেবেন, আইনের শাসন থাকবে না, জীবনের নিরাপত্তা থাকবে না, আপনি সংবিধানকে পরিবর্তন করতে করতে দলীয় পর্যায়ে নিয়ে যাবেন, বাংলাদেশের মানুষ দুই বেলা খেতে পারবে না- এগুলো অভ্যন্তরীণ বিষয় নয়।”

শুক্রবার দুপুরে এক আলোচনাসভায় খসরু বলেন, “…এগুলো বিশ্ব বিবেক। যেখানে বাংলাদেশ প্রতিশ্রুতবদ্ধ। এগুলো তারা (কূটনীতিকরা) বলবে, এগুলো যখন বিদেশিরা বলে তখন আপনাদের (সরকার) খারাপ লাগে।”

তিনি বলেন, “আমরা বিদেশিদের কাছে বিএনপিকে ক্ষমতায় আনার জন্য তদবির করি না। আমরা যেটা বলি যেটা আমরা তথা বাংলাদেশ প্রতিশ্রুতিবদ্ধ বিশ্ব বিবেকের কাছে সেটা সম্পর্কে বলি। সেটা হচ্ছে- মানবাধিকার, আইনের শাসন, জীবনের নিরাপত্তা, ভোটাধিকার যেগুলো আপনারা কেড়ে নিয়েছেন এগুলো আমাদের বলতে হবে।

“এগুলো বিএনপির বিষয় না, এগুলো দেশের সাধারণ মানুষের বিষয়।”

এসময় মিয়ানমারের সামরিক জান্তার ক্ষমতা দখল এবং সেখানকার মানুষের ভোটাধিকার হরণের বিরুদ্ধে বিশ্ব বিবেক সোচ্চার হওয়ার বিষয়টি তুলে ধরে তিনি বলেন, “এটি মিয়ানমারের অভ্যন্তরীণ বিষয় নয়।”

শুক্রবার সেগুনবাগিচায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি কার্যালয়ে জিয়া পরিষদের উদ্যোগে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ৫৮তম জন্মদিন উপলক্ষে এ আলোচনাসভা হয়।

ক্ষমতার পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে বাংলাদেশের আর্থ সামাজিক ও অর্থনৈতিক পরিবর্তন আনতে হবে বলে মন্তব্য করেন খসরু।

তার ভাষ্য, বাংলাদেশকে শেখ হাসিনা যে গর্তের মধ্যে ফেলেছে, সেটা শুধু খালি পরিবর্তন দিয়ে হবে না, রূপান্তরমূলক পরিবর্তন করতে হবে, ট্রান্সফরম্যাশনাল চেঞ্জ আনতে হবে বাংলাদেশে।

ঢাকার বিভাগীয় সমাবেশ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “১০ ডিসেম্বর ঢাকার সমাবেশ হবে, হবে, হবে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর দায়িত্ব হচ্ছে বিএনপি ও জনগণের যে সাংবিধানিক অধিকার যেটাকে সুরক্ষা করা। আপনারা সুরক্ষা করবেন এই প্রত্যাশা আমি করতে চাই।”

জিয়া পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যাপক আব্দুল কুদ্দুসের সভাপতিত্বে ও যুগ্ম মহাসচিব অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদের সঞ্চালনায় সভায় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, জিয়ার পরিষদের মহাসচিব অধ্যাপক এমতাজ হোসেন, কেন্দ্রীয় নেতা অধ্যাপক লুতফর রহমান, আবদুল্লাহিল মাসুদ, আবুল হাসনাত মো. শামীম, শহীদুল ইসলাম শহীদ, শরীফুজ্জামান খান, অধ্যাপক কামরুল আহসান, অধ্যাপক শামসুল আলম, অধ্যাপক কুদর-ই জাহান, অধ্যাপক দবিরুল ইসলাম, অধ্যাপক আনিসুর রহমান, ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির সাইফুর রহমান মিহির বক্তব্য দেন।

আরও পড়ুন

Also Read: জাপানি দূতকে তলব: ভিয়েনা কনভেনশন মনে করিয়ে দিলেন প্রতিমন্ত্রী

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক