দলীয় সিদ্ধান্তেই জাতীয় পার্টি ভোটে যাচ্ছে: চুন্নু

“আমরা চাই নির্বাচনকালীন সময়ে কেউ অনিয়ম করলে নির্বাচন কমিশন যেন তার বিরুদ্ধে সরাসরি ব্যবস্থা নিতে পারে,” বলেন তিনি।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 23 Nov 2023, 12:57 PM
Updated : 23 Nov 2023, 12:57 PM

জাতীয় পার্টিতে কোনো বিভেদ নেই দাবি করে দলটির মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নু বলেছেন, দলীয় সিদ্ধান্তেই তারা ভোটে যাচ্ছেন।

বৃহস্পতিবার জাপা চেয়ারম্যানের বনানী কার্যালয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে তিনি এ কথা বলেন।

মুজিবুল হক চুন্নু বলেন, “জাতীয় পার্টিতে কোনও বিভেদ নেই। জাতীয় পার্টি জনবন্ধু জি এম কাদেরের নেতৃত্বে ঐক্যবন্ধ আছে।  বেগম রওশন এরশাদ আমাদের প্রধান পৃষ্ঠপোষক ও সম্মানের পাত্র। তিনি নির্বাচন করলে তার জন্য আমরা সব ধরনের সহায়তা অব্যাহত রাখব।”

সংসদে বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ ২০ নভেম্বর ফোন করে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন জানিয়ে জাপা মহাসচিব বলেন, “লোক পাঠালেই আমরা তার মনোনয়ন ফরম দিয়ে দেব। জাতীয় পার্টি নিজস্ব রাজনীতি নিয়ে এগিয়ে চলছে। দলীয় সিদ্ধান্তেই জাতীয় পার্টি নির্বাচনে যাচ্ছে।”

‘সুষ্ঠু’ ভোটের আশ্বাস পাওয়ার কথা জানিয়ে বুধবার জাতীয় পার্টি ৩০০ আসনে প্রার্থী দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে। দলটি গত তিনটি নির্বাচনের মত এবার কোনো জোট বা কারও সঙ্গে আসন সমঝোতায় যাবে না বলে জানিয়েছে।

সেই কথা পুনর্ব্যক্ত করে পরদিনও চুন্নু বলেছেন, “জাতীয় পার্টি ৩০০ আসনেই নিজস্ব প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করবে।  কারণ কোনো জোটে যেতে আমরা নির্বাচন কমিশনকে চিঠি দিইনি। রাজনীতিতে বিভিন্ন কৌশল থাকে। আমরা আমাদের নিজস্ব কৌশল নিয়ে এগিয়ে যাব।”

গত শনিবার নির্বাচন কমিশনে সংসদে বিরোধী দল জাতীয় পার্টির তরফে দুটি চিঠি যায় নির্বাচন কমিশনে।

দলীয় প্যাডের চিঠিতে মহাসচিব চুন্নু জানান, তাদের দলের মনোনয়ন দেওয়ার ক্ষমতাপ্রাপ্ত ব্যক্তি হলেন চেয়ারম্যান জি এম কাদের। তার চারটি নমুনা স্বাক্ষরও উল্লেখ করা হয় এই চিঠিতে।

একই দিন সংসদে বিরোধীদলীয় নেতা ও জাতীয় পার্টির প্রধান পৃষ্ঠপোষক রওশন এরশাদ বলেন, আগের নির্বাচনের মতই তার দলের প্রার্থীরা দলীয় প্রতীকের পাশাপাশি মহাজোটের প্রতীকে ভোটে অংশ নেবেন।

২০০৮ সালের নবম সংসদ নির্বাচন থেকেই আওয়ামী লীগ, ১৪ দল ও জাতীয় পার্টি আসন সমঝোতা করে ভোটে অংশ নিচ্ছে। তবে বুধবার দলটির পক্ষে এককভাবে নির্বাচনের ঘোষণা দেওয়া হয়েছে।

মুজিবুল হক চুন্নু বৃহস্পতিবার বলেন, “আমরা নিরপেক্ষ ভোটের একটি পরিবেশ চেয়েছি। নির্বাচন কমিশন ও সরকারের বিভিন্ন মহল আমাদের আশ্বস্ত করেছে নির্বাচন সুষ্ঠু হবে। তারা বলেছে, যে কোনো মূল্যে নির্বাচনের পরিবেশ সুষ্ঠু রাখবে।

“তারা জানিয়েছেন, ভোটাররা কেন্দ্রে এসে অবাধে ভোট দিতে পারবেন। এই আশ্বাসের জন্যই আমাদের নির্বাচনে অংশ নেওয়ার ঘোষণায় দেরি হয়েছে।”

নির্বাচনী ব্যবস্থা নিয়ে নিজেদের ভাবনার কথা বলতে গিয়ে জাতীয় পার্টির মহাসচিব বলেন, “নির্বাচনে জয়ী হতে পারলে জাতীয় পার্টি দেশে বেকারত্ব দূর করবে, দ্রব্যমূল্য সহনীয় পর্যায়ে রাখবে, সুশাসন দেবে, কর্মমূখী শিক্ষা ব্যবস্থা চালু করবে, দুর্নীতি দূর করবে, সবার জন্য সুচিকিৎসা নিশ্চিত করবে। 

“আমরা নির্বাচিত হলে নির্বাচনী ব্যবস্থা পরিবর্তন করে আনুপাতিক হারে নির্বাচনের পদ্ধতি বাস্তবায়ন করব।”

দ্বাদশ সংসদ নির্বাচন প্রসঙ্গে চুন্নু বলেন, “আমরা চাই নির্বাচনকালীন সময়ে কেউ অনিয়ম করলে নির্বাচন কমিশন যেন তার বিরুদ্ধে সরাসরি ব্যবস্থা নিতে পারে।

“নির্বাচন কমিশন যেভাবে শিডিউল ঘোষণা করেছে, তাতে সংলাপের সুযোগ আছে। সবাই এক টেবিলে বসে আলোচনার মাধ্যমে একটি সিদ্ধান্তে আসতে পারবে।”

আরও পড়ুন:

Also Read: সুষ্ঠু ভোটে বিশ্বাস রেখে ৩০০ আসনে প্রার্থী দিচ্ছে জাপা

Also Read: জাপার মনোনয়ন দেবেন জি এম কাদের, ফের মহাজোটে চোখ রওশনের