‘ফারাজ’ ধামাচাপা দেবেন কীভাবে, প্রশ্ন ফারুকীর

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 11 Jan 2023, 07:05 AM
Updated : 11 Jan 2023, 07:05 AM

আগামী ২ ফেব্রুয়ারির মধ্যে ‘শনিবার বিকেল’ সিনেমাটি বাংলাদেশের মানুষের সামনে হাজির করতে চান এর নির্মাতা মোস্তফা সরয়ার ফারুকী, সেজন্য সেন্সর ছাড়পত্র চাওয়ার পাশাপাশি তথ্য মন্ত্রণালয়ের সামনে তিনি তিনটি প্রশ্ন রেখেছেন। 

তার প্রথম প্রশ্ন: “ফেব্রুয়ারির ৩ তারিখ যে ফারাজ মুক্তি পাবে, এখন আপনি কীভাবে ওইটা ধামাচাপা দেবেন?”

গুলশানের হোলি আর্টিজান বেকারিতে জঙ্গি হামলার গল্পের প্রেক্ষাপটে ‘শনিবার বিকেল’ সিনেমাটি বানিয়েছেন নির্মাতা ফারুকী। বিদেশে সিনেমাটির প্রদর্শনী হলেও বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডের ছাড়পত্র না মেলায় এখনও দেশের দর্শক সিনেমাটি দেখার সুযোগ পাননি।

একই রকম প্রেক্ষাপটে নির্মিত ভারতীয় সিনেমা ‘ফারাজ’ মুক্তি পাচ্ছে ৩ ফেব্রুয়ারি। অথচ ফারুকীর সিনেমা ‘শনিবার বিকেল’ চার বছরের বেশি সময় ধরে আটকে আছে সেন্সর জটিলতায়। এ নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরেই সোশাল মিডিয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করে চলেছেন তিনি।

ভারতীয় সিনেমা ‘ফারাজ’ এর মুক্তির তারিখ ঘোষণার পর ফারুকীর ক্ষোভ ও হতাশার প্রকাশ যেন আরও বাড়ছে। মঙ্গলবার এক ফেইসবুক পোস্টে তিনি লিখেছেন, “ফেব্রুয়ারির ২ তারিখের মধ্যে শনিবার বিকেল বাংলাদেশের মানুষের সামনে হাজির করতে দিতে হবে। কথা আমাদের একটাই।

“এর আগে আমাদেরকে আড়েঠাড়ে বলা হয়েছে, উনারা চান না বহির্বিশ্বের মানুষের কাছে শনিবার বিকেল ছবিটা যাওয়ার মাধ্যমে ওই দুঃসহ স্মৃতি আবার ফিরে আসুক। আই মিন সিরিয়াসলি? ইউটিউবে এই বিষয়ে হাজার হাজার ভিডিও আছে, আর উনারা ভাবছেন একটা সিনেমা আটকাইয়া এই ঘটনা ধামাচাপা দিবেন। আর শনিবার বিকেল তো বিদেশে দেখানোই হচ্ছে। কোথাও ভাবমূর্তি খসে পড়ার ঘটনাতো শুনি নাই।”

বিদেশি সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত সিনেমাটির রিভিউ দেশের ভাবমূর্তি বরং উজ্জ্বল করেছে বলে ফারুকীর দাবি। 

তিনি লিখেছেন, “হলিউড রিপোর্টারতো তাদের রিভিউতে আপনাদের নিয়া হাসাহাসি করছে। তারা বলছে, এই ছবি দেইখা তারা বুঝে নাই ভাবমূর্তি কেমনে খসবে। তাদের মনে হইছে ভাবমূর্তির যদি কিছু হয় এই ছবির ফলে সেটা হইতে পারে ভাবমূর্তি বৃদ্ধি।”

ফেইসবুকে ওই পোস্টে ফারুকী যে তিনটি প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়েছেন, তার শেষ দুটি হল–·        
শনিবার বিকেলের প্রথম সেন্সর প্রদর্শনীর পর সেন্সর বোর্ড ছবির প্রশংসা করে বলেছিল দ্রুত সার্টিফিকেট দেওয়া হবে। কার ইশারায় এটার সেটার প্রদর্শনী হল? সেই তদন্ত কি কোনো দিন হবে না?

·         বিদেশি কলা কুশলী আনার জন্য শুটিংয়ের আগে তথ্য মন্ত্রণালয়ে আবেদন করতে হয়েছিল। যেখানে শনিবার বিকেলের স্ক্রিপ্ট জমা দিতে হয়েছিল। স্ক্রিপ্ট পড়ে সরকারের সংশ্লিষ্ট দপ্তর থেকে অনুমোদন দেওয়া হয়েছিল, উৎসাহ দেওয়া হয়েছিল। যেটা আজ অনুমোদন পায়, কাল সেটা নিষিদ্ধ হয় কীসের ভিত্তিতে?

একই দিন আরেকটি ফেইসবুক পোস্টে তথ্য মন্ত্রণালয়কে উদ্দেশ্য করে ফারুকী লিখেছেন, “প্রিয় বাংলাদেশ। প্রিয় তথ্য মন্ত্রণালয়। গুলশানের হোলি আর্টিজান নিয়ে নির্মিত ভারতীয় ছবি ‘ফারাজ’ মুক্তি পাচ্ছে ফেব্রুয়ারির ৩ তারিখ। আর এই বঙ্গদেশের এক অধম ফিল্মমেকার ওই ঘটনার অনুপ্রেরণা নিয়ে ‘শনিবার বিকেল’ বানিয়ে আজকে চার বছর সেন্সরে আটকা। আমাদের ছবি আর্টিজানের ঘটনা পুনর্নির্মাণ করে নাই, এমন কি ওই ক্যাফের ভিতরের কোনো চরিত্র পুনর্নির্মাণও করে নাই।

“এই সাজা পাওয়ার একমাত্র কারণ কি এই দেশের নাগরিক হওয়া? ধন্যবাদ সব কিছুর জন্য। ইতিহাস নিষ্ঠুর। সে সব কিছু মনে রাখে।”

বাংলাদেশ-ভারত-জার্মানি এই তিন দেশের যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত হয়েছে ‘শনিবার বিকেল’। বাংলা ভাষা ছাড়াও ইংরেজি ভাষায় হয়েছে ডাবিং। টানা ১৫ দিন মহড়ায় মাত্র ৭ দিনেই শেষ হয় ছবির শুটিং। ‘শনিবারের বিকেল’ সিনেমায় অভিনয় করেছেন জাহিদ হাসান, পরমব্রত, তিশা, ইরেশ যাকের এবং ফিলিস্তিনি অভিনেতা ইয়াদ হুরানি।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক