নওফেলের ‘সমর্থনকারী’ হচ্ছেন আ জ ম নাছির

সাবেক মেয়র নাছির যে তিন আসনে দলের মনোনয়নপত্র নিয়েছিলেন তার মধ্যে শিক্ষা উপমন্ত্রীর চট্টগ্রাম-৯ আসনও ছিল।

চট্টগ্রাম ব্যুরোবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 29 Nov 2023, 03:38 PM
Updated : 29 Nov 2023, 03:38 PM

মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার আগে শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল দেখা করেছেন চট্টগ্রাম নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের সঙ্গে। 

বুধবার দুপুরে চট্টগ্রামের রাজনীতিতে দুই ধারার অনুসারী হিসেবে পরিচিত এ দুজন আসন্ন নির্বাচন নিয়ে আলোচনার পাশাপাশি একসঙ্গে দুপুরের খাওয়া দাওয়া করেছেন।

চট্টগ্রাম-৯ আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী নওফেলের মনোনয়নপত্রে সমর্থনকারীও হচ্ছেন নাছির, যা তিনি পরে নিজেই বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানিয়েছেন।

আর প্রস্তাবকারী হবেন মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী। এদিন তার সঙ্গেও বিকালে দেখা করেন নওফেল।

বুধবার দুপুরে নগরীর আগ্রাবাদে আ জ ম নাছিরের সঙ্গে দেখা করেন নওফেল। শিক্ষা উপমন্ত্রীকে স্বাগত জানিয়ে কোলাকুলি করেন নাছির। দুপুরে উপস্থিত নেতারা সেখানে মধ্যাহ্নভোজ করেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন নগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ইব্রাহীম হোসেন বাবুল, চট্টগ্রাম-৮ আসনের সংসদ সদস্য ও নগর কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক নোমাল আল মাহমুদ, সাংগঠনিক সম্পাদক শফিক আদনান, প্রচার সম্পাদক শফিকুল ইসলাম ফারুক এবং তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক চন্দন ধর।

আ জ ম নাছির বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “এটা খুব স্বাভাবিক বিষয়। নওফেল আমার কাছে আসবে। আমি যাব। সুজন আমার বাসায় যাবেন, আমি উনার বাসায় যাব। এটা স্বাভাবিক সৌজন্যতা। আমরা একই দল করি।

“নওফেলের মনোনয়নপত্রে আমি তার সমর্থনকারী। আগামীকাল আমরা একসাথে মনোনয়নপত্র জমা দিব।”

নগর আওয়ামী লীগের রাজনীতি দীর্ঘদিন ধরে দুটি ধারায় বিভক্ত। এর একটি অংশের নেতৃত্বে আছেন আ জ ম নাছির। অন্য অংশটির নেতৃত্বে ছিলেন সাবেক মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী। মহিউদ্দিনের মৃত্যুর পর তার অনুসারীরা আছেন তার ছেলে নওফেলের সঙ্গে।

সাবেক মেয়র নাছির এবার চট্টগ্রাম-৯, চট্টগ্রাম-১০ ও চট্টগ্রাম-১১ আসনে দলের মনোনয়ন চেয়েছিলেন। তবে এই তিন আসনে দলের মনোনয়ন পেয়েছেন যথাক্রমে নওফেল, মহিউদ্দিন বাচ্চু ও এম এ লতিফ। তারা তিনজনই নগরের রাজনীতিতে নাছির বিরোধী হিসেবে পরিচিত।

নাছির-নওফেলের অনুসারী নেতাকর্মীরা নানা সময় বিভিন্ন ইস্যুতে পরস্পরের বিরুদ্ধে অবস্থান নেন। তবে এ দুই নেতাকে সচরাচর একে অন্যের বিরুদ্ধে সরাসরি মন্তব্য করতে শোনা যায়নি। বরং একাধিকবার তাদের দু’জনকে সৌহার্দ্যপূর্ণ পরিবেশে দেখা গেছে।

নওফেল মনোনয়নপত্রে নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদককে যেমন সমর্থনকারী হিসেবে পাচ্ছেন, তেমনি তার প্রস্তাবের পক্ষে পাচ্ছেন নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি মাহতাবকে।

এদিন বিকালে নগরীর দামপাড়ায় মাহতাবের বাসায় যান নওফেল। তখন সেখানে নগর কমিটির সহ-সভাপতি নঈম উদ্দিন চৌধুরীসহ অন্য নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি বলেন, “মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ব্যারিস্টার নওফেলকে দ্বিতীয় বারের মতো মনোনীত করেছেন। আপনাকে নির্বাচিত করতে আমরা আমাদের সর্বোচ্চ কাজ করব।

“ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল মহান মুক্তিযুদ্ধের একজন বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান, তিনি অসাম্প্রদায়িক ও মেধাবী ব্যক্তিত্ব। তাকে নির্বাচিত করে জননেত্রী শেখ হাসিনাকে আমরা চট্টগ্রাম-৯ আসন উপহার দেব। নির্বাচনকে সামনে রেখে বিএনপি-জামায়াতের সকল অপচেষ্টা প্রতিহত করে উপযুক্ত জবাব দিতে নগর আওয়ামী লীগের রাজপথে প্রস্তুত আছে।”

আরও পড়ুন:

Also Read: নাছির-নওফেল শুভেচ্ছা বিনিময়

Also Read: কেন ৩ আসনের মনোনয়ন ফরম নিলেন, ব্যাখ্যা দিলেন নাছির

Also Read: ভিন্ন মত থাকলে দলীয় ফোরামে বলুন: নাছির