‘এখন রোহিত-কোহলির ভবিষ্যৎ নিয়ে কথা বলার সময় নয়’

বিষয়টি ভবিষ্যতের হাতে ছেড়ে দিলেন ভারতের কোচ রাহুল দ্রাবিড়।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 10 Nov 2022, 05:32 PM
Updated : 10 Nov 2022, 05:32 PM

ছয় বছর পর আরেকবার টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ফাইনালে খেলার সম্ভাবনা জাগিয়েও ভারতের অভিযান থেমে গেছে সেমি-ফাইনালে। এই সংস্করণের আরেকটি বৈশ্বিক আসর আসতে এখনও বাকি অন্তত দেড় বছর। স্বাভাবিকভাবে তাই প্রশ্ন উঠছে রোহিত শর্মা, বিরাট কোহলির মতো সিনিয়র ক্রিকেটারদের টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের ভবিষ্যৎ নিয়ে। কোচ রাহুল দ্রাবিড় বললেন, বিষয়টি নিয়ে পরে ভাববেন তারা।

অ্যাডিলেইডে বৃহস্পতিবার দ্বিতীয় সেমি-ফাইনালে ইংল্যান্ডের সামনে পাত্তাই পায়নি ভারত। তাদের ১৬৮ রান জস বাটলার ও অ্যালেক্স হেলসের বিধ্বংসী ইনিংসে ইংলিশরা পেরিয়ে যায় ১০ উইকেট ও ৪ ওভার হাতে রেখে।

২০০৭ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রথম আসরের চ্যাম্পিয়ন ভারত পরে আর একবারই ফাইনাল খেলতে পেরেছে। ২০১৪ সালে বাংলাদেশ অনুষ্ঠিত আসরে শিরোপা লড়াইয়ে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে হেরে যায় তারা। ২০১৬ সালে ঘরের মাঠে তাদের পথচলা থেমে যায় এবারের মতো সেমি-ফাইনালে, ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাছে হেরে।

২০ ওভারের বিশ্বকাপের পরবর্তী আসর হবে ২০২৪ সালে, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও যুক্তরাষ্ট্রের যৌথ আয়োজনে।

অধিনায়ক রোহিতের বয়স এখন ৩৫ বছর, কোহলির ৩৪। রবিচন্দ্রন অশ্বিন, মোহাম্মদ শামি, ভুবনেশ্বর কুমারের বয়সও বাড়ছে। তাদের মধ্যে প্রথম চার জনকেই আসছে নিউ জিল্যান্ড সফরের সীমিত ওভারের সিরিজে বিশ্রাম দিয়েছে ভারত।

সেমি-ফাইনালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে হারের পর দ্রাবিড়ের সংবাদ সম্মেলনে প্রশ্ন উঠল এই ক্রিকেটারদের টি-টোয়েন্টির ভবিষ্যৎ নিয়ে। কোচ বললেন, এখনই এসব নিয়ে ভাবছেন না তারা।

“সেমি-ফাইনালে খেলার ঠিক পরই এই বিষয়ে কথা বলাটা বড্ড তাড়াতাড়ি হয়ে যায়। এই ছেলেরা আমাদের জন্য দুর্দান্ত পারফরমার। এখানে খুব ভালো মানের কিছু খেলোয়াড় আছে, তাদের নিয়ে কথা বলার বা ভাবার সঠিক সময় এটা নয়৷ সামনে আমাদের পর্যাপ্ত খেলা আছে, পর্যাপ্ত ম্যাচ আছে। ভারত চেষ্টা করবে এবং পরবর্তী বিশ্বকাপের জন্য প্রস্তুত হবে।”

ব্যক্তিগতভাবে কোহলির জন্য এবারের বিশ্বকাপ কেটেছে দারুণ। ৬ ম্যাচে ৯৮.৬৬ গড় আর ১৩৬.৪০ স্ট্রাইক রেটে ৪ ফিফটিতে ২৯৬ রান করেছেন তিনি; ফাইনালের আগে আসরের সর্বোচ্চ স্কোরারও তারকা এই ব্যাটসম্যান।  

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক