মাস সেরার লড়াইয়ে প্রথমবার কোহলি-মিলার

অক্টোবর মাসের সেরার লড়াইয়ে তাদের সঙ্গী অগাস্টে ‘প্লেয়ার অব দা মান্থ’ স্বীকৃতি জেতা সিকান্দার রাজা।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 3 Nov 2022, 09:11 AM
Updated : 3 Nov 2022, 09:11 AM

মাঝে লম্বা একটা সময় নিজের চেনা চেহারায় ছিলেন না বিরাট কোহলি। কঠিন সেই সময়কে পেছনে ফেলে আসতেই একটি স্বীকৃতির হাতছানি ভারতের এই তারকা ব্যাটসম্যানের সামনে। ‘আইসিসি প্লেয়ার অব দা মান্থ’-এর সংক্ষিপ্ত তালিকায় জায়গা পেয়েছেন তিনি। অক্টোবরের সেরার লড়াইয়ে তার সঙ্গী ডেভিড মিলার ও সিকান্দার রাজা। 

মাস সেরার লড়াইয়ে থাকা নারী ও পুরুষ ক্রিকেটারদের সংক্ষিপ্ত তালিকা বৃহস্পতিবার প্রকাশ করে আইসিসি। 

গত বছর থেকে মাস সেরার পুরস্কার চালু করে আইসিসি। সময়ের সেরা ব্যাটসম্যানদের একজন কোহলি এর সংক্ষিপ্ত তালিকায় জায়গা পেলেন প্রথমবার। একই অভিজ্ঞতা দক্ষিণ আফ্রিকার মিলারের। আর জিম্বাবুয়ের রাজা তো গত অগাস্টের সেরা নির্বাচিত হয়েছে। 

নারীদের মাস সেরার লড়াইয়ে জায়গা করে নেওয়া তিন জনের মধ্যে দুইজনই ভারতের-জেমিমা রদ্রিগেজ ও দিপ্তি শর্মা। তাদের সঙ্গী চিরপ্রতিদ্বন্দী পাকিস্তানের নিদা দার। 

বিরাট কোহলি 

অক্টোবরে স্রেফ চার ইনিংস ব্যাটিং করেই মাস সেরার লড়াইয়ে জায়গা করে নিয়েছেন কোহলি। যেখানে ১৫০.৭৩ স্ট্রাইক রেটে ২০৫ রান করেছেন তিনি। তিন ইনিংসে অপরাজিত থাকায় তার ব্যাটিং গড় ২০৫! 

তার ওই ইনিংসগুলোর মধ্যে রয়েছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে পাকিস্তানের বিপক্ষে খেলা অপরাজিত ৮২ রান। যার সুবাদে হাড্ডাহাড্ডি ম্যাচে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীদের হারায় ভারত। 

এছাড়া ঘরের মাঠে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ২৮ বলে অপরাজিত ৪৯ রান এবং বিশ্বকাপে নেদারল্যান্ডসে সঙ্গে অপরাজিত ৬২ রান করেন কোহলি। 

ডেভিড মিলার 

গত মাসে দুর্দান্ত ছন্দে ছিলেন মিলার। ভারতের মাটিতে ৪৭ বলে ১০৬ রানের ইনিংস খেলার পর বিশ্বকাপে রোহিত শর্মার দলকে হারানোর পথে খেলেছিলেন অপরাজিত ৫৯ রানের ইনিংস। 

ভারত সফরে ওয়ানডেতেও এক ম্যাচে অপরাজিত ৭৫ রান করেন বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান। সীমিত ওভারের দুই সংস্করণে গত মাসে মোট ৭ ম্যাচ খেলে তার রান ৩০৩ গড়ে ৩০৩ রান। 

সিকান্দার রাজা 

বছরটাই দারুণ কাটছে রাজার। জিম্বাবুয়ের এই অলরাউন্ডের তিন মাসের মধ্যে দ্বিতীয়বার মাস সেরার সংক্ষিপ্ত তালিকায় জায়গা করে নিলেন। 

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে জিম্বাবুয়ের সুপার টুয়েলভে ওঠার পথে বড় অবদান রাখেন রাজা। প্রাথমিক পর্বে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ৮২ রানের ইনিংস খেলেন তিনি। স্কটল্যান্ডের সঙ্গে করেন ৪০। দুই ম্যাচেই একটি করে শিকার ধরেন অফ স্পিনে। 

পরে মূল পর্বে পাকিস্তানের বিপক্ষে ঐতিহাসিক জয়ে ২৫ রানে ৩ উইকেট নেন এই অলরাউন্ডার। জিম্বাবুয়ের জেতা তিনটি ম্যাচেই সেরার স্বীকৃতি ওঠে রাজার হাতে। 

জেমিমা রদ্রিগেজ 

এশিয়া কাপে দারুণ খেলার পুরস্কার হিসেবে মাস সেরার লড়াইয়ে জায়গা পেয়েছেন জেমিমা। ভারতীয় ব্যাটসম্যান ছিলেন টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক। দলের শিরোপা জয়ের পথচলায় ৮ ম্যাচে ৫৪.২৫ গড়ে করেন ২১৭ রান। 

কমনওয়েলথ গেমসে ব্যাট হাতে নিজেকে মেলে ধরে গত অগাস্টেও ‘আইসিস প্লেয়ার অব দা মান্থ’-এর সংক্ষিপ্ত তালিকায় জায়গা পেয়েছিলেন এই ব্যাটার। 

দিপ্তি শর্মা 

গত মাসে বাংলাদেশে হওয়া মেয়েদের এশিয়া কাপের টুর্নামেন্ট সেরার পুরস্কার উঠেছিল দিপ্তির হাতে। ৭.৬৯ গড়ে ১৩ উইকেট নিয়েছিলেন তিনি। পাকিস্তানের বিপক্ষে প্রাথমিক পর্বে ও সেমি-ফাইনালে থাইল্যান্ডের বিপক্ষে তিনটি করে শিকার ধরেছিলেন এই অফ স্পিনার। 

নিদা দার 

ব্যাটে-বলে সবশেষ এশিয়া কাপে নিজেকে মেলে ধরেন নিদা। গত মাসে ৭ টি-টোয়েন্টিতে ৭২.৫০ গড়ে ১৪৫ রান করেন তিনি। সঙ্গে নেন ৮ উইকেট। 

আইসিসির ভোটিং একাডেমি ও ক্রিকেট সমর্থকদের যৌথ ভোটে নির্বাচন করা হয় মাসের সেরা দুই ক্রিকেটার। ভোটিং একাডেমিতে আছেন জ্যেষ্ঠ ক্রীড়া সাংবাদিক, সাবেক ক্রিকেটার ও ধারাভাষ্যকাররা। তারা ভোট দেন ই-মেইলে, আইসিসির নিবন্ধিত সমর্থকদের ভোট দিতে হয় আইসিসির ওয়েবসাইটে। 

সেরার রায়ে ভোটিং একাডেমির ভোট বিবেচনায় নেওয়া হয় শতকরা ৯০ ভাগ, সমর্থকদের ভোট বাকি ১০ ভাগ।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক