ফিলিস্তিনে ইসরায়েলের হামলা: সংসদে নিন্দা প্রস্তাব পাস

ফিলিস্তিনি জনগণকে রক্ষা এবং তাদের ন্যায়সঙ্গত স্বাধীন-সার্বভৌম রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠায় কার্যকরভাবে এগিয়ে আসার উদাত্ত আহ্বান জানানো হয় এই প্রস্তাবে

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 30 Oct 2023, 04:26 PM
Updated : 30 Oct 2023, 04:26 PM

ফিলিস্তিনে ইসরায়েলের হামলার নিন্দা জানিয়ে সর্বসম্মত প্রস্তাব পাস হয়েছে জাতীয় সংসদে।

এতে ইসরায়েলি বাহিনীর গণহত্যার নিন্দা জানিয়ে ফিলিস্তিনের জনগণকে রক্ষা করতে এবং স্বাধীন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার ন্যায়সঙ্গত দাবি পূরণে মুসলিম উম্মাহকে এগিয়ে আসার আহ্বানও জানানো হয়েছে।

সোমবার জাতীয় সংসদে এই নিন্দা প্রস্তাবটি তোলেন তোলেন দিনাজপুর-৪ আসনের সংসদ সদস্য সাবেক পররাষ্ট্র মন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী।

প্রস্তাবটি হচ্ছে, “সংসদের অভিমত এই যে, বাংলাদেশ জাতীয় সংসদ ফিলিস্তিনি জনগণের ওপর ইসরাইল কর্তৃক পরিচালিত নৃশংস গণহত্যার তীব্র নিন্দা জ্ঞাপন করছে এবং এই হত্যাকাণ্ড বন্ধের জোর দাবি জানাচ্ছে। ফিলিস্তিনে ইসরাইলের নারকীয় হত্যাযজ্ঞে মানবাধিকারের চরম বিপর্যয় ঘটেছে।

“এই সংসদ ফিলিস্তিনে মানবাধিকার রক্ষায় বিশ্বের সকল বিবেকবান জনগণ, রাষ্ট্র ও প্রতিষ্ঠানকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানাচ্ছে এবং বিশ্বের মুসলিম উম্মাহকে ফিলিস্তিনি জনগণকে রক্ষা এবং তাদের ন্যায়সঙ্গত স্বাধীন-সার্বভৌম রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠায় কার্যকরভাবে এগিয়ে আসার উদাত্ত আহ্বান জানাচ্ছে।”

এরপর সাধারণ আলোচনায় অংশ নেন তোফায়েল আহমেদ, আমির হোসেন আমু, শেখ ফজলুল করিম সেলিম, পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে আব্দুল মোমেন, তথ্য মন্ত্রী হাছান মাহমুদ, হাসানুল হক ইনু, রাশেদ খান মেনন, মসিউর রহমান রাঙ্গা, নজিবুল বশর মাইজ ভাণ্ডারী, রুস্তম আলী ফরাজি।

এরপর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার বক্তব্যে হামলা বন্ধ করতে বিশ্বের সব রাষ্ট্রের প্রতি আহ্বান জানিয়ে ইসরায়েলের দখলদারত্বের বিষয়টি তুলে ধরেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, “এটা বড় দেশ ছিল। ধীরে ধীরে তা দখল করতে করতে এখন ক্ষুদ্র একটি অংশ তাদের। তারপরও একটি প্রস্তুাব ছিল টু স্টেট ফর্মুলা। এটাও তারা মানছে না।

“আমাদের কথা হচ্ছে ফিলিস্তিনের ন্যায্য দাবি যেন মেনে নেওয়া হয়। তাদের রাষ্ট্র যেন তারা ফেরত পায়। সেটা আমরা চাই।” 

গত ৭ অক্টোবর ভোরে গাজা থেকে মুহুর্মুহু রকেট হামলা চালানোর পর সীমান্ত বেড়া ভেঙে প্রায় এক হাজার হামাস যোদ্ধা ইসরায়েলের দক্ষিণাঞ্চলে প্রবেশ করে সীমান্তবর্তী এলাকায় ঢুকে পড়ে।

এই হামলায় এক হাজার ৪০০ ইসরায়েলির প্রাণহানীর পাশাপাশি শ দুয়েক নাগরিকদের ধরে নিয়ে আসে হামাস যোদ্ধারা।

প্রতিশোধ নিতে ওই দিন থেকেই গাজায় তীব্র হামলা চালিয়ে যাচ্ছে ইসরায়েল। রোবার পর্যন্ত ইসরায়েলের হামলায় গাজায় আট হাজারের বেশি মানুষ নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে ফিলিস্তিনি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

গাজায় হাজারো ফিলিস্তিনির মৃত্যুতে গত ২১ অক্টোবর রাষ্ট্রীয় শোক পালন করে বাংলাদেশ। তার আগের দিন জুমার নামাজের পর নিহতদের আত্মার শান্তি ও আহতদের সুস্থতার জন্য সব মসজিদে বিশেষ দোয়া এবং অন্যান্য ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে বিশেষ প্রার্থনা অনুষ্ঠিত হয়।