রাশিয়ায় কিম-পুতিন সাক্ষাৎ, আলোচনা হবে স্যাটেলাইট নিয়েও

উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম নিজের সাঁজোয়া ট্রেনে করে মঙ্গলবার সকালে সীমান্ত অতিক্রম করে রাশিয়ায় প্রবেশ করেন।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 30 Jan 2024, 03:34 AM
Updated : 30 Jan 2024, 03:34 AM

রাশিয়ার দূর প্রাচ্যের একটি কসমোড্রোমে প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন। বুধবার সকালে ভস্তোচনি কসমোড্রোমে তাদের বৈঠক হয় বলে খবর এসেছে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমে।

ইস্টার্ন ইকোনোমিক ফোরামের সম্মেলন উপলক্ষে পুতিন রাশিয়ার পূর্বাঞ্চলীয় বন্দরশহর ভ্লাদিভস্তকে ছিলেন দুই দিন। সেখান থেকে বুধবার তিনি ভস্তোচনিতে যান। আর উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম নিজের সাঁজোয়া ট্রেনে করে মঙ্গলবার সকালে সীমান্ত অতিক্রম করে রাশিয়ায় প্রবেশ করেন। ওই ট্রেনে করেই তিনি ভস্তোচনিতে যান।  

বুধবার টেলিগ্রাম অ্যাপে ক্রেমলিনের শেয়ার করা একটি ভিডিওতে দেখা যায়, ভস্তোচনি কসমোড্রোমে কিমকে স্বাগত জানাচ্ছেন পুতিন। সে সময় ৪০ সেকেন্ড ধরে করমর্দন করেন দুই নেতা।

পুতিন জানিয়েছেন, তিনি এবং কিম অন্যান্য বিষয়ের সঙ্গে পিয়ংইয়ংয়ের স্যাটেলাইট কর্মসূচি নিয়েও আলোচনা করবেন, উত্তর কোরিয়াকে কৃত্রিম উপগ্রহ বানাতে সহায়তা করবে রাশিয়া। চলতি বছর উত্তর কোরিয়া দুইবার দুটি কৃত্রিম উপগ্রহ উৎক্ষেপণের চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়।

দুই দেশের মধ্যে কোনো সামরিক চুক্তি হবে কিনা, এমন প্রশ্নে পুতিন বলেন, তারা ‘সব বিষয়’ নিয়েই আলোচনা করবেন।

পশ্চিমা দেশগুলোর আশঙ্কা, এই বৈঠকে ইউক্রেইন যুদ্ধের জন্য উত্তর কোরিয়া থেকে মস্কোকে অস্ত্র ও গোলাবারুদ সরবরাহের বিষয়ে চুক্তি হতে পারে। এমন কোনো চুক্তির বিষয়ে হুঁশিয়ারি দিয়ে রেখেছে ওয়াশিংটন। কিন্তু মস্কো বলেছে, তারা ওয়াশিংটনের হুঁশিয়ারি নিয়ে ‘মাথা ঘামাচ্ছে না’।    

দুই নেতার বৈঠকের শুরুতে পুতিন বলেন, “প্রিয় চেয়ারম্যান, আপনাকে রাশিয়ায় দেখে ও অতিথ্য দিতে পেরে আমি অত্যন্ত খুশি।”

এর জবাবে কিম বলেন, “রাশিয়ায় আমাদের ভ্রমণের বিষয়ে আপনি এমন মনোযোগ দেওয়ায় আমি অত্যন্ত কৃতজ্ঞ। আমি নিশ্চিত, সাম্রাজ্যবাদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে আমরা একসঙ্গেই থাকব।” 

এ সময় কিম বলেন, রাশিয়া তার সার্বভৌমত্ব ও নিরাপত্তা রক্ষায় ‘আধিপত্যবাদী একটি শক্তির বিরুদ্ধে লড়াই করছে’, এ বিষয়ে পুতিনের ‘সব সিদ্ধান্তকে সমর্থন করে’ উত্তর কোরিয়া। এর মাধ্যমে কিম ইউক্রেইন যুদ্ধে রাশিয়ার প্রতি সমর্থন জানালেন বলে মনে করা হচ্ছে। 

এ বৈঠকের কয়েক ঘণ্টা আগে উত্তর কোরিয়া দুটি স্বল্প পাল্লার ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করে। বুধবার ভোরে রাজধানী পিয়ংইয়ংয়ের নিকটবর্তী একটি এলাকা থেকে ক্ষেপণাস্ত্র দুটি ছোড়া হয়, সেগুলো উপকূলীয় সাগরে গিয়ে পড়ে বলে দক্ষিণ কোরিয়ার সামরিক বাহিনী ও জাপানের সরকার জানিয়েছে।

বিশ্লেষকরা বলছেন, কিম দেশের বাইরে থাকার সময় এই প্রথম উত্তর কোরিয়া ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করল।

সংবাদসূত্র: বিবিসি, রয়টার্স

(প্রতিবেদনটি প্রথম ফেইসবুকে প্রকাশিত হয়েছিল ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২৩ তারিখে: ফেইসবুক লিংক)