নেপালে বিধ্বস্ত উড়োজাহাজ থেকে ‘জীবিত উদ্ধার হয়নি কেউ’

পর্যটন নগরী পোখরার নতুন উদ্বোধন করা বিমানবন্দরে নামার সময় উড়োজাহাজটি একটি পাহাড়ি নদীখাতে বিধ্বস্ত হয়।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 16 Jan 2023, 03:38 AM
Updated : 16 Jan 2023, 03:38 AM

নেপালের সেনাবাহিনী জানিয়েছে, পর্যটন নগরী পোখরার যেখানে যাত্রীবাহী উড়োজাহাজটি বিধ্বস্ত হয়েছে সেখানে কোনো আরোহীকে জীবিত পাননি তারা।  

রোববার স্থানীয় সময় সকাল ১১টার দিকে ৭২ জন আরোহী নিয়ে ইয়েতি এয়ারলাইন্সের দুই ইঞ্জিন বিশিষ্ট উড়োজাহাজ এটিআর ৭২-৫০০ পোখরায় অবতরণের চেষ্টার সময় বিধ্বস্ত হয়।

সোমবার নেপাল সেনাবাহিনীর মুখপাত্র কৃষ্ণ প্রাসাদ ভাণ্ডারি বলেছেন, “দুর্ঘটনাস্থল থেকে আমরা কাউকে জীবিত উদ্ধার করিনি।” 

পোখরার নতুন উদ্বোধন করা বিমানবন্দরে নামার সময় উড়োজাহাজটি একটি নদীখাতে বিধ্বস্ত হয়। এর সকল আরোহী মারা গেছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে, জানিয়েছে বার্তা সংস্থা এশিয়ান নিউজ ইন্টারন্যাশনাল (এএনআই) ।

নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডু থেকে পোখারাগামী অভ্যন্তরীণ রুটের ওই উড়োজাহাজটির আরোহীদের মধ্যে ৬৮ জন যাত্রী, বাকিরা ক্রু। যাত্রীদের মধ্যে ১৫ জন বিদেশি নাগরিক ছিলেন। তাদের পাঁচজন ভারতীয়, চারজন রুশ, দুজন দক্ষিণ কোরীয় এবং আয়ারল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, ফ্রান্স ও আর্জেন্টিনার একজন করে।

উদ্ধারকারীরা উড়োজাহাজের ধ্বংসাবশেষের কাছে একটি মোবাইল ফোন খুঁজে পেয়েছেন। তাতে উড়োজাহাজটি পড়ে যাওয়ার ঠিক আগ মূহুর্তের ভিডিও পাওয়া গেছে বলে মনে করা হচ্ছে।

এরইমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মধ্যামে ভাইরাল হওয়া ভিডিওটির সত্যাসত্য নির্ধারণ করা যায়নি। এতে এক যাত্রীকে জানালা দিয়ে নিচের পোখরা শহর ও সহযাত্রীদের ভিডিও করতে দেখা যায়। এই ভিডিওতে উড়োজাহজাটির ভেতরের শেষ মূহুর্তের অবস্থা উঠে এসেছে।  

ভিডিটির প্রথমদিকে যাত্রীদের বলা কথা ও হাসি শোনা যায়, একজন যাত্রীর চেহারা স্পষ্ট দেখা যায়, সম্ভবত তিনিই ভিডিওটি করছিলেন। আনন্দঘন পরিবেশ হঠাৎই ছন্দপতন হয়, উড়োজাহাজটি পড়ে যেতে থাকলে ঝাঁকুনিতে সম্ভবত মোবাইলটি ‍ওই যাত্রীর হাত থেকে পড়ে যায়। যাত্রীদের চিৎকার, বিস্ফোরণের শব্দ ও জানালার বাইরে ভয়ানক আগুনের শিখা দেখা যায়।

নেপালের কাসকি জেলার পোখারা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর এবং পুরনো বিমানবন্দরের মাঝামাঝি এলাকায় উড়োজাহাজটি যখন বিধ্বস্ত হয় তখন আকাশ একদম পরিষ্কার এবং রোদ ঝলমলে ছিল। কী কারণে উড়োজাহাজটি বিধ্বস্ত হয়েছে তা শেখ খবর পর্যন্ত পরিষ্কার হয়নি।

ঘটনার পর নেপালের প্রধানমন্ত্রী পুষ্প কমল দহল মন্ত্রিপরিষদের জরুরি বৈঠক ডেকেছেন। 

ঘটনা খতিয়ে দেখতে নেপাল সরকার পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিশন গঠন করেছে এবং আগামী ৪৫ দিনের মধ্যে তাদের তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

তিন দশকের মধ্যে এটাই নেপালে সবচেয়ে প্রাণঘাতী বিমান দুর্ঘটনা।

আরও পড়ুন:

Also Read: নেপালে বিধ্বস্ত উড়োজাহাজের উদ্ধারকাজ স্থগিত, এখনো নিখোঁজ ৪ জন

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক