গাজায় ইসরায়েলের হামলায় নিহতের সংখ্যা ১৭ হাজার ছাড়িয়েছে

গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ইসরায়েলিদের হামলায় শুধু গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৩৫০ জন ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে। 

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 8 Dec 2023, 05:02 AM
Updated : 8 Dec 2023, 05:02 AM

ফিলিস্তিনি ছিটমহল গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ভূখণ্ডটিতে ইসরায়েলি হামলায় দুই মাসে নিহতের সংখ্যা ১৭১৭৭ জনে দাাঁড়িয়েছে, আহত হয়েছে ৪৬ হাজার। নিহতদের মধ্যে বেশ কয়েক হাজার শিশু রয়েছে।

গত ৭ অক্টোবর গাজা শাসনকারী ফিলিস্তিনি স্বাধীনতাকামী গোষ্ঠী হামসের যোদ্ধাদের হামলার জবাবে গাজায় ব্যাপক বোমাবর্ষণ ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা ও পরে স্থল অভিযান শুরু করে ইসরায়েলি বাহিনী।

তাদের হামলায় শুধু গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৩৫০ জন ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে বলে গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আশরাফ আল-কিদরা জানিয়েছেন।

ইসরায়েল বলেছে, তারা অবশ্যই গাজা থেকে ‘হামাসের অস্তিত্ব মুছে ফেলবে’ আর এ সময় বেসামরিকদের রক্ষার সম্ভাব্য সব ধরনের চেষ্টা করে যাচ্ছে তারা।

বৃহস্পতিবারও গাজার বৃহত্তম শহরগুলোতে ইসরায়েলি বাহিনীর সঙ্গে হামাস যোদ্ধাদের লড়াই হয়েছে। তবে ইসরায়েলের আক্রমণ এখন প্রধানত গাজার দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর খান ইউনিসকে ঘিরে আবর্তিত হচ্ছে। বাসিন্দারা জানিয়েছেন, খান ইউনিসের পূর্ব দিকে দু’পক্ষের মধ্যে তীব্র লড়াই হচ্ছে। শহরটির উত্তর দিকেও দু’পক্ষের মধ্যে লড়াই হচ্ছে। ইসরায়েলি বাহিনী শহরটির অনেক ভেতরে ঢুকে পড়েছে। 

এ পরিস্থিতির মধ্যে সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া কিছু ছবিতে বহু ফিলিস্তিনি পুরুষকে শুধু আন্ডারওয়্যার পরে মাটিতে হাঁটু গেড়ে বসে থাকা অবস্থায় দেখা গেছে, ইসরায়েলি সেনারা তাদের ঘিরে রেখেছে। অন্য ছবিগুলোতে তাদের সামরিক ট্রাকে তুলে নিয়ে যেতে দেখা গেছে বলে জানিয়েছে বিবিসি।

ইসরায়েলের শীর্ষ সামরিক মুখপাত্র ড্যানিয়েল হাগারি জানিয়েছেন, তারা কয়েকশ ‘সন্দেহভাজন সন্ত্রাসীকে’ আটক করেছেন এবং তাদের অনেক আত্মসমর্পণ করেছে। কিন্তু যাদের আটক করা হয়েছে তাদের মধ্যে একজন বহুল পরিচিত ফিলিস্তিনি সাংবাদিককে শনাক্ত করা হয়েছে।

রয়টার্স জানিয়েছে, ইসরায়েলের টেলিভিশনে দেখানো ভিডিও ফুটেজে গাজা সিটির রাস্তায় শুধু আন্ডারওয়্যার পরা, পেছনে হাত বাঁধা ও মাথা নিচু করে থাকা বহু পুরুষকে দেখা গেছে; ইসরায়েলি সেনারা তাদের পাহারা দিচ্ছে। ইসরায়েলের টেলিভিশনগুলোতে তাদের আটক ‘হামাস যোদ্ধা’ বলা হলেও রয়টার্স তা যাচাই করতে পারেনি।  

কিছু ফিলিস্তিনি এদের মধ্যে তাদের কিছু আত্মীয়কে শনাক্ত করে জানিয়েছেন, তারা হামাস বা অন্য কোনো গোষ্ঠীর সঙ্গে জড়িত নয়। যুক্তরাষ্ট্রের ভার্জিনিয়ায় বসবাস করা ফিলিস্তিনি হানি আলমাধুন ওইসব ছবিতে তার আত্মীয়দের দেখেছেন। তিনি রয়টার্সকে বলেছেন, “তারা নিরপরাধ বেসামরিক। তাদের সঙ্গে হামাস বা অন্য কোনো দলের কোনো সম্পর্ক নেই।

“মার্কেট এলাকায় নিজেদের বাড়ি থেকে তাদের ধরে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। ইসরায়েলি সেনারা আমার ভাই মাহমুদ (৩২), তার ছেলে ওমর (১৩), আমার আরেক ভাতিজা আবউদ (২৭) ও আমার ৭২ বছর বয়সী বাবাসহ কয়েকজন আত্মীয়কে ধরে নিয়ে গেছে।”

ইসরায়েলি হামলায় ইতোমধ্যে গাজার প্রায় ২০ লাখ বাসিন্দা বাস্তুচ্যুত হয়েছে। তারা হন্য হয়ে নিরাপদ আশ্রয়ের খোঁজ করছে। পুরো গাজাজুড়ে খাবার ও আশ্রয়ের সঙ্কট মারাত্মক আকার ধারণ করেছে।

গাজায় অবস্থানরত বিবিসির এক সাংবাদিক জানিয়েছেন, সেখানে কোনো খাবার, কোনো বিদ্যুৎ নেই আর পানির তীব্র সংকট চলছে।   

আরও পড়ুন:

Also Read: খান ইউনিসে আরও এগিয়েছে ইসরায়েল, নিরাপদ আশ্রয়ের খোঁজে মানুষ