টিকটক থেকে গান সরিয়ে নিচ্ছে ইউনিভার্সাল মিউজিক

এই পদক্ষেপের সম্ভাব্য মানে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমটিতে এখন থেকে টেইলর সুইফট, দ্য উইকএনড ও ড্রেকের মতো জনপ্রিয় শিল্পীদের গান আর ব্যবহার করার সুযোগ মিলবে না।

প্রযুক্তি ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 31 Jan 2024, 10:12 AM
Updated : 31 Jan 2024, 10:12 AM

টিকটক থেকে নিজেদের লাখ লাখ গান সরিয়ে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বহুজাতিক কোম্পানি ইউনিভার্সাল মিউজিক, যার আগে কোম্পানি দুটির মধ্যে অর্থ পরিশোধ সংশ্লিষ্ট আলোচনা ভেস্তে যায়।

এই পদক্ষেপের সম্ভাব্য মানে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমটিতে এখন থেকে টেইলর সুইফট, দ্য উইকএনড ও ড্রেকের মতো জনপ্রিয় শিল্পীদের গান আর ব্যবহার করার সুযোগ মিলবে না।

টিকটকের বিরুদ্ধে ‘বুলিংয়ের’ অভিযোগ তুলে ইউনিভার্সাল বলেছে, তাদের বিশাল গানের ভাণ্ডারে প্রবেশাধিকার পেতে অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম যে পরিমাণ অর্থ দেয়, সে তুলনায় ‘খুবই সামান্য’ অর্থ পরিশোধ করতে চেয়েছিল বাইটড্যান্স মালিকানাধীন কোম্পানিটি।

এর বিপরীতে টিকটক বলেছে, ইউনিভার্সাল ‘ভুল তথ্য দিয়ে একটি বানোয়াট গল্প’ উপস্থাপন করছে।

কোনো স্ট্রিমিং সাইট বা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিভিন্ন মিউজিক কোম্পানির গান বাজানো হলে তারা এর জন্য একটি রয়্যালটি পেয়ে থাকে।

মিউজিক লেবেল কোম্পানিটির দাবি, গোটা বিশ্বে একশ কোটিরও বেশি টিকটক ব্যবহারকারী থাকলেও তা অবদান রাখছে ইউনিভার্সালের সামগ্রিক আয়ের কেবল এক শতাংশে।

গোটা বিশ্বের সংগীত খাতের এক তৃতীয়াংশ নিয়ন্ত্রণ করা ইউনিভার্সাল শিল্পী ও গীতিকারদের উদ্দেশ্যে লেখা এক খোলা চিঠিতে দাবি করেছে, “দিন শেষে টিকটক এমন মিউজিকভিত্তিক ব্যবসা গড়ে তোলার চেষ্টা করছে, যেখানে তারা মিউজিকের জন্য ন্যায্যমূল্যই পরিশোধ করছে না।”

ইউনিভার্সাল এও বলেছে, তারা ‘শিল্পী ও গীতিকারদের ন্যায্য ভর্তুকি দিতে’ চাপ সৃষ্টির পাশাপাশি ‘এআইয়ের ক্ষতিকারক দিক থেকে শিল্পীদের সুরক্ষা ও অনলাইনে টিকটক ব্যবহারকারীদের নিরাপত্তা নিয়েও’ শঙ্কিত।

কোম্পানিটি বলেছে, ৩১ ডিসেম্বর টিকটকের সঙ্গে চুক্তির মেয়াদ শেষ হলে তারা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমটিতে নিজস্ব কনটেন্টের লাইসেন্স দেওয়া বন্ধ করে দেবে।

এদিকে টিকটক বলেছে, “ইউনিভার্সাল মিউজিক গ্রুপ যে শিল্পী ও গীতিকারের স্বার্থের চেয়ে নিজস্ব লোভকে বড় করে দেখছে, তা খুবই দুঃখজনক ও হতাশাজনক।”

“ইউনিভার্সাল বানোয়াট গল্প ছড়ালেও সত্য কথা হল, তারা এমন এক প্ল্যাটফর্ম থেকে চলে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে, যেখানে একশ কোটির বেশি ব্যবহারকারী তাদের কনটেন্ট বিনামূল্যে প্রচারের মাধ্যমে বিভিন্ন শিল্পীর মেধা অন্বেষন করে।”

কোনো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম থেকে ইউনিভার্সালের গান সরিয়ে নেওয়ার প্রথম ঘটনা এটি।

বৈশ্বিক সংগীত খাতে ইউনিভার্সাল বেশ প্রভাবশালী, যেখানে বিটলস, এলটন জন ও কোল্ডপ্লে থেকে শুরু করে অ্যাডেলে, বিটিএস ও ব্ল্যাক পিংকের মতো বাঘা বাঘা শিল্পী ও ব্যান্ডের গানের স্বত্ব তাদের দখলে।

এছাড়া, ব্রিটিশ গীতিকার এলিস-বেক্সটরের ‘মার্ডার অন দ্য ডান্সফ্লোর’ গানের স্বত্বও ইউনিভার্সালের কাছে, যা সম্প্রতি টিকটকে ব্যাপক আলোড়ন তুলেছে।

এদিকে, গত বছরের জুলাইয়ে টিকটকের সঙ্গে নতুন লাইসেন্সিং চুক্তি সেরেছে বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম মিউজিক রেকর্ড কোম্পানি ওয়ার্নার মিউজিক।