উইন্ডোজ ১০-এ চালানো যাবে মাইক্রোসফটের কোপাইলট এআই

এ ফিচারে সহজে প্রবেশের জন্য ব্যবহারকারীকে ফিচারটির ‘সর্বশেষ আপডেট যত দ্রুত সম্ভব’ চালু করার পরামর্শ দিয়েছে মাইক্রোসফট।

প্রযুক্তি ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 24 Nov 2023, 10:39 AM
Updated : 24 Nov 2023, 10:39 AM

যেসব ব্যবহারকারী এখনও উইন্ডোজ ১০ অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করছেন, তাদের জন্য জনপ্রিয় এক ফিচার চালু করেছে মাইক্রোসফট।

গেল ফেব্রুয়ারিতে উইন্ডোজ ১০-এ ‘কোপাইলট’ ফিচার চালুর ঘোষণা দিয়েছিল মাইক্রোসফট, যা এখন বাস্তবে রূপ নিয়েছে। ফিচারটির ‘রিলিজ প্রিভিউ বিল্ড’ ইনস্টল করে জেনারেটিভ এআই ব্যবহারের সুযোগও পাবেন ব্যবহারকারী।

তবে, এই প্রিভিউ বিন্ড ইনস্টল করতে ব্যবহারকারীকে ‘উইন্ডোজ ইনসাইডার’ নামের পরীক্ষামূলক প্রকল্পে নিজের নাম তালিকাভুক্ত করতে হবে, যার মাধ্যমে তিনি উইন্ডোজ ১০, হোম বা প্রো’তে কোপাইলট ফিচার ব্যবহারের সুযোগ পেতে পারেন। তবে, এর চ্যাটবটে তাৎক্ষণিকভাবেই প্রবেশের সুবিধা মিলবে কি না, সে নিশ্চয়তা পাওয়া যায়নি।

মাইক্রোসফট বলছে, “উইন্ডোজে এই কোপাইলট ফিচারের যাচাইকরণ নিশ্চিত করতে কিছুটা সময় লাগতে পারে। ফলে, এটি তাৎক্ষণিকভাবে নাও দেখা যেতে পারে।” ডিভাইস যাচাইকরণ নিশ্চিত হওয়ার পর এ ফিচারে সহজে প্রবেশের জন্য ব্যবহারকারীকে ফিচারটির ‘সর্বশেষ আপডেট যত দ্রুত সম্ভব’ চালু করার পরামর্শ দিয়েছে মাইক্রোসফট। আর এমনটি করতে ব্যবহারকারীকে নিজস্ব ডিভাইসের সেটিংয়ে থাকা ‘আপডেট অ্যান্ড সিকিউরিটি’ অপশনে গিয়ে ‘উইন্ডোজ আপডেট’ অপশনটি বাছাই করতে হবে।

এ কোপাইলট চালাতে ব্যবহারকারীর অপারেটিং সিস্টেমে অন্তত চার জিবি’র র্যাম ও ৭২০ পিক্সেল রেজুলিউশনওয়ালা ডিসপ্লে অ্যাডাপ্টার প্রয়োজন। মাইক্রোসফট বলছে, চ্যাটবটের প্রিভিউ সংস্করণটি আপাতত হাতে গোনা কিছু বাজারে পাওয়া যাচ্ছে, যার মধ্যে রয়েছে উত্তর আমেরিকা এবং এশিয়া ও দক্ষিণ আমেরিকার কয়েকটি অংশ। ফলে, এটি ব্যবহারের জন্য ব্যবহারকারীকে ভৌগলিক বিষয়টিও মাথায় রাখতে হবে বলে প্রতিবেদনে লিখেছে প্রযুক্তিবিষয়ক সাইট এনগ্যাজেট।

কোপাইলট ফিচার ইনস্টল করার পর উইন্ডোজ টাস্কবারের ডানপাশে এর একটি আইকন দেখা যাবে, যেটিতে ক্লিক করে এর চ্যাটবট ব্যবহারের সুযোগ পাবেন ব্যবহারকারী। এ চ্যাটবটে বিভিন্ন প্রশ্ন করার পাশাপাশি বিভিন্ন উইন্ডোজ ফিচার সাজানোর ও ডকুমেন্ট খোলার সুবিধা মিলবে।

ভার্জের প্রতিবেদন অনুযায়ী,উইন্ডোজ ১০-এ উইন্ডোজ ১১’র কয়েকটি ফিচার অনুপস্থিত থাকায় এতে কোপাইলট ফিচারটি কিছুটা ভিন্নভাবে কাজ করে। আর নতুন অপারেটিং সিস্টেমের গুরুত্বপূর্ণ অ্যাপগুলোয় এরইমধ্যে জেনারেটিভ এআইভিত্তিক ফিচার রয়েছে।

উইন্ডোজ ১০-এ মাইক্রোসফটের কোপাইলট ফিচার আনার বিষয়টি বড় কোনো রহস্য হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে না। তবে কয়েকটি অনুমানে উঠে এসেছে, এখনও ৬৯ শতাংশ উইন্ডোজভিত্তিক ডেস্কটপে উইন্ডোজ ১০ ব্যবহার করা হয়। ওই তুলনায় উইন্ডোজ ১১ ব্যবহার কেবল ২৬ শতাংশ। এর মানে, এখনও লাখ লাখ পিসি’তে উইন্ডোজ ১০ ব্যবহৃত হচ্ছে।

এদিকে, একশ কোটিরও বেশি কম্পিউটারে কোপাইলট ফিচার রয়েছে, এমন উদাহরণ দেখিয়ে মাইক্রোসফট আরও বেশি বিনিয়োগকারীদের আকৃষ্ট করতে পারে। বর্তমানে উইন্ডোজ ১১ পিসি’র আনুমানিক সংখ্যা ৪০ কোটি।