খাদের কিনারা থেকে ঘুরে দাঁড়িয়ে আশায় রইল জার্মানি

জার্মানদের কাছে পয়েন্ট হারালেও নকআউট পর্বে ওঠার খুব কাছে স্পেন।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 27 Nov 2022, 07:58 PM
Updated : 27 Nov 2022, 07:58 PM

আসরের শুরুতে অঘটনের শিকার জার্মানি এখানেও অনেকটা সময় নিজেদের খুঁজে ফিরল। গোল হজম করে আরও কোণঠাসা হয়ে পড়ল। স্পেন শিবিরে তখন নকআউটে পর্বের হাওয়া। দেয়ালে পিঠ ঠেকে যাওয়া জার্মানরা এরপরই ঘুরে দাঁড়াল। বদলি খেলোয়াড় নিকলাস ফুয়েলখুগের গোলে বিশ্বকাপে টিকে থাকার আশা একটু উজ্জ্বল হলো চারবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের।

আল বাইত স্টেডিয়ামে রোববার ‘ই’ গ্রুপের ম্যাচটি ১-১ গোলে ড্র হয়েছে। স্পেনের গোলটিও আসে বদলি খেলোয়াড়ের পা থেকে, আলভারো মোরাতা।

এখানে ১ পয়েন্ট পেলেও গ্রুপের শেষ ম্যাচে জার্মানির সমীকরণ অবশ্য খুব একটা পাল্টাচ্ছে না। কোস্টা রিকার বিপক্ষে তাদের জিততে তো হবেই, সঙ্গে তাকিয়ে থাকতে হবে অন্য ম্যাচের দিকেও।

৪ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপের শীর্ষে আছে স্পেন। ৩ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে জাপান। তাদের সমান পয়েন্ট নিয়ে তিন নম্বরে কোস্টা রিকা। ১ পয়েন্ট নিয়ে তলানিতে জার্মানি।    

কোস্টা রিকাকে সাত গোলের বন্যায় ভাসানো স্পেন এ দিন শুরুতেই গোল পেতে পারত। ডি-বক্সের বাইরে থেকে দানি ওলমোর বুলেট গতির শট গোলরক্ষক মানুয়েল নয়ারের হাতে লেগে ক্রসবারে বাধা পায়।

অবশ্য গোলটি হলে দায় এড়াতে পারতেন না নয়ার। বলে যথেষ্ট গতি থাকলেও তার আয়ত্ত্বেই ছিল এবং অনায়াসে ধরা উচিত ছিল; কিন্তু বলের গতি-প্রকৃতি যেন বুঝতেই পারেননি ২০১৪ বিশ্বকাপ জয়ের নায়কদের একজন এই নয়ার।

৩৪তম মিনিটে ওলমোর পাস বক্সে দারুণ পজিশনে পেয়েই উড়িয়ে মারেন ফেররান তরেস। লাইন্সম্যান যদিও তোলেন অফসাইডের পতাকা। পাঁচ মিনিট পর আন্টোনিও রুডিগার হেডে বল জালে পাঠালে উল্লাসে মাতে জার্মানি, তবে ভিএআরে অফসাইডের সিদ্ধান্তে থেমে যায় তাদের উদযাপন।

বল দখলে স্পেন আধিপত্য করলেও দ্বিতীয়ার্ধের শুরু থেকে দুই দলই সমানতালে আক্রমণ করতে থাকে। যদিও নিশ্চিত সুযোগ তৈরি করতে পারছিল না কেউ।

আক্রমণে ধার বাড়াতে আগের ম্যাচে জোড়া গোল করা তরুণ ফেররান তরেসকে ৫৪তম মিনিটে বসিয়ে অভিজ্ঞ মোরাতাকে নামান স্পেন কোচ।

এর দুই মিনিট পরই এগিয়ে যেতে পারত জার্মানি। তবে জসুয়া কিমিখের জোরাল শট ঝাঁপিয়ে কর্নারের বিনিময়ে ঠেকিয়ে দেন উনাই সিমোন। ম্যাচে এই প্রথম কর্নার পায় জার্মানরা।

তিন দিন আগে গোল উৎসবের ম্যাচে কোস্টা রিকার জালে শেষ গোলটি করা মোরাতা এবার মাঠে নামার আট মিনিটের মাথায় এগিয়ে নেন দলকে। বাঁ দিক থেকে জর্দি আলবার পাস বক্সে পেয়ে দুর্দান্ত এক ফ্লিকে গোলটি করেন আতলেতিকো মাদ্রিদ ফরোয়ার্ড।

বিশ্বকাপের ইতিহাসে ষষ্ঠ খেলোয়াড় হিসেবে টানা দ্বিতীয় ম্যাচে বদলি নেমে গোল করলেন মোরাতা। স্পেনের হয়ে প্রথম।

দুই মিনিট পর ম্যাচের নিয়ন্ত্রণও নিতে পারত তারা। কিন্তু ওলমোর পাস বক্সের বাইরে ফাঁকায় পেয়ে উড়িয়ে মারেন মার্কো আসেনসিও। বল ধরে জায়গা বানিয়ে শট নিতে পারতেন তিনি, কিন্তু অসাধারণ কিছুর চেষ্টায় দলকে হতাশ করেন রিয়াল মাদ্রিদ ফরোয়ার্ড।

এর পরপরই তাকে তুলে মিডফিল্ডার কোকে এবং তরুণ মিডফিল্ডার গাভিকে বসিয়ে আরেক তরুণ নিকো উইলিয়ামসকে নামান কোচ এনরিকে।  

৭২ ও ৭৪তম মিনিটে ভালো দুটি আক্রমণ করে জার্মানি; কিন্তু ব্যর্থতার জাল ছিঁড়তে পারেনি তারা। আগের মিনিটেই বদলি নামা ফুয়েলখুগের উদ্দেশ্যে ডান দিক থেকে ছয় গজ বক্সের মুখে বল বাড়ান জামাল মুসিয়ালা, প্রস্তুত ছিলেন ডিফেন্ডার রদ্রি। পরেরটিতে ১৯ বছর বয়সী মুসিয়ালা ওয়ান-অন-ওয়ানে গোলরক্ষক সিমোন বরাবর শট নেন।

ম্যাচে ফিরতে মরিয়া হয়ে ওঠা জার্মানি ৮৩তম মিনিটে পায় সাফল্যের দেখা। ঝড়ের বেগে ডি-বক্সে ঢুকে মুসিয়ালার থেকে বল ধরে জোরাল শটে সমতা টানেন ভার্ডার ব্রেমেনের ফরোয়ার্ড ফুয়েলখুগ।

শেষ দিকে আরেকটি দারুণ আক্রমণ শাণায় জার্মানি। দ্রুত গতিতে বক্সে ঢুকে গোলরক্ষককেও ফাঁকি দেন লেরয় সানে, কিন্তু বলে শেষ ছোঁয়াটা একটু জোরে হয়ে যায়। ভেস্তে যায় জয়ের শেষ চেষ্টা।

বিশ্বকাপের ইতিহাসে এই প্রথমবার কোনো এক আসরে গ্রুপ পর্বের প্রথম দুই ম্যাচে জয়শূন্য রইল জার্মানি।  

২০১৮ সালের রাশিয়া বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্ব থেকেই ছিটকে পড়েছিল জার্মানরা। সেই হতাশার পুনরাবৃত্তি এড়াতে শেষ ম্যাচে জয় চাই তাদের, সঙ্গে কামনা করতে হবে স্পেনের জয়।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক