সৌদি খেজুরে লাভের আশায় ফরিদপুরের জামাল

৫২ শতাংশ জমিতে সৌদি আরবের খেজুর গাছের চারা রোপন করেছেন তিনি।

ফরিদপুর প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 29 July 2022, 08:36 AM
Updated : 29 July 2022, 08:36 AM

চাকরির পেছনের না ছুটে ব্যবসার পাশাপাশি ফলের বাগান করেছেন ফরিদপুরের নগরকান্দার জামাল হোসেন মুন্সী। প্রথমে ড্রাগন ফল চাষে লাভের মুখ দেখার পর সৌদি আরবের খেজুরের বাগান করেছেন তিনি। এখন খেজুর থেকেও লাভের আশা তার।

উপজেলার চরযশোরদী ইউনিয়নের নিখোঁরহাটি গ্রামের আয়নাল হক মুন্সীর ছেলে জামাল বাড়ির পাশে ৫২ শতাংশ জমিতে সৌদি আরবের খেজুর গাছের চারা রোপন করেছেন। খেজুর দেখতে প্রতিদিন বিভিন্ন এলাকা থেকে মানুষ আসছেন তার বাড়িতে।

বাগান মালিক জামাল বলেন, “বাড়ির পাশে একটি জমিতে কয়েক বছর আগে প্রথমে ড্রাগন ফল গাছের চারা রোপন করি। এরপর সৌদি আরবের কয়েকটি উন্নত জাতের খেজুর গাছের চারা রোপন করি। বাগানের ড্রাগন ফল বিক্রি করে প্রচুর লাভবান হয়েছি। এখন সৌদি খেজুরের বাগান করেও আশার আলো দেখতে পাচ্ছি। ”

জামাল লেখাপড়া শেষ করে ঢাকায় নিজেই ব্যবসা শুরু করেন। এশিয়ান পাওয়ারটেক কোম্পানি লিমিটেড নামের একটি প্রতিষ্ঠাননের পরিচালক তিনি। ব্যবসার পাশাপাশি গ্রামের বাড়িতে ফলের আবাদ শুরু করেন জামাল।

জামাল জানান, ৫২ শতাংশ জমিতে ‘বারহি’, ‘মরিয়ম’ ও ‘খুনেজি’ জাতের খেজুরের চাষ করেছেন তিনি। গাছ রোপনের সাড়ে তিন বছরের মধ্যে গাছগুলোতে ‘পর্যাপ্ত’ খেজুর ধরতে শুরু করেছে। এরই মধ্যে ফল পাকতেও শুরু করেছে।

এ বছর গাছে প্রচুর খেজুর ধরেছে জানিয়ে এ বাগান মালিক বলেন, “খেজুরের মান ও ফলন খুবই ভালো হয়েছে। আশা করছি, খেজুর বিক্রি করেও লাভবান হতে পারবো। আমি এলাকায় এ ধরনের আরও কয়েকটি বাগান করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।”

এ বিষয়ে ফরিদপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর উপ-পরিচালক হযরত আলী বলেন, শিক্ষিত যুবক জামাল চাকরির পেছনে না ছুটে নিজেই সাবলম্বী হয়েছেন। এখন অনেকেই তাকে অনুসরণ করছে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক