পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় ২ জনের, বিদ্যুৎস্পৃষ্টে ১ জনের মৃত্যু

তিনজনই হাসপাতালে মারা যান।

কেরানীগঞ্জ-দোহার-নবাবগঞ্জ প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 15 Jan 2023, 05:19 AM
Updated : 15 Jan 2023, 05:19 AM

ঢাকার দোহার ও নবাবগঞ্জ উপজেলায় পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় দুইজনের প্রাণ গেছে। কেরানীগঞ্জে আরও একজনের মৃত্যু হয়েছে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে।

দোহারের কার্তিকপুর এলাকায়, নবাবগঞ্জের গালিমপুর-জয়পাড়া আঞ্চলিক সড়কে এবং কেরানীগঞ্জের বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় এসব ঘটনা ঘটে।

মৃতরা হলেন-শেরপুর জেলার ঝিনাইগাতি থানা এলাকার নির্মাণ শ্রমিক মো. সাজু আহমেদ (২৫), দোহার উপজেলার কুসুমহাটি ইউনিয়নের সুন্দরীপাড়া গ্রামের আব্দুল মান্নানের ছেলে মো. ইমরান (১৫) ও নবাবগঞ্জের গালিমপুর ইউনিয়নের গালিমপুর চাঁনহাটি গ্রামের বাহা উদ্দিনের ছেলে আলী হাসান (২৩)।

নিহত সাজুর এক সহকর্মীর বরাতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক বাচ্চু মিয়া বলেন, শনিবার বিকালে কেরানীগঞ্জের বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় একটি ভবনের দ্বিতীয় তলায় নির্মাণ কাজ করার সময় বিদ্যুৎস্পৃষ্টে অচেতন হয়ে পড়েন সাজু।

“সঙ্গে সঙ্গে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে গেলে চিকিৎসক সন্ধ্যায় তাকে মৃত ঘোষণা করেন।”

নিহতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতালের মর্গে রাখা রয়েছে বলে জানান বাচ্চু।

প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাতে দোহার থানার ওসি মোস্তফা কামাল বলেন, শনিবার বিকালে ইমরান মোটরসাইকেল চালিয়ে বাড়ি থেকে জয়পাড়া যাচ্ছিলেন। পথে কার্তিকপুর এলাকায় বিপরীত দিক থেকে আসা একটি পিকআপ ভ্যানের সঙ্গে সংঘর্ষ হলে ছিটকে পড়েন তিনি।

“এ সময় একই দিক থেকে আসা একটি সিএনজি চালিত আটোরিকশার ধাক্কায় গুরুতর আহত হন তিনি। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।”

স্বজনরা লাশ বাড়ি নিয়ে গেছে জানিয়ে ওসি বলেন, নিহতের পরিবার এখনও কোনো অভিযোগ করেননি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেবেন তারা।

নবাবগঞ্জের ঘটনায় প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শুক্রবার দুপুরে বাড়ি থেকে মোটরসাইকেলে করে গালিমপুর যাচ্ছিল আলী হাসান। গালিমপুর-জয়পাড়া সড়কে দ্রুতগতিতে চালিয়ে যাওয়ার সময় বিপরীত দিক থেকে আসা একটি রিকশাকে ধাক্কা দেন। এ সময় ছিটকে পড়ে গুরুতর আহত হন তিনি।

নবাবগঞ্জের গালিমপুর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের পরিদর্শক আমিনুল ইসলাম বলেন, স্থানীয়রা আলীকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকার মিটফোর্ড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার বিকালে তার মৃত্যু হয়।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক