শিশুর মৃত্যু: ‘গেইটটি নড়বড়ে ছিল’

‘গেইটের ওজন অনুযায়ী উপযুক্ত কবজা ব্যবহার করা হয়নি।’

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 10 August 2022, 10:09 AM
Updated : 10 August 2022, 10:37 AM

খাগড়াছড়ির যে বিদ্যালয়ে গেইটের নিচে চাপা পড়ে শিশুশিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়েছে, সেটি ‘ট্রাকের ধাক্কায় নড়বড়ে হয়ে যাওয়ার পর খুঁটি দিয়ে আটকে রাখা হয়েছিল’ বলে পুলিশ ও শিক্ষা কর্মকর্তা জানিয়েছেন।

বুধবার সকালে সদর উপজেলার খবং পুড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান গেইট হঠাৎ করে পড়ে যায়। এর নিচে চাপা পড়ে মারা যায় শ্রাবণ দেওয়ান নামে প্রাক-প্রাথমিকের এই শিক্ষার্থী।

বিদ্যালয়ের পাশেই স্বনির্ভর পুলিশ ফাঁড়ি।

ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই গোবিন্দ চন্দ্র রায় বলেন, “স্কুলের গেইটটি দীর্ঘদিন ধরে নড়েবড়ে অবস্থায় ছিল। সংস্কার না করে এটি গাছের সঙ্গে খুঁটি দিয়ে আটকে রাখা হয়েছিল।”

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ফাতেমা মেহের ইয়াসমিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে নির্মাণকাজে ত্রুটি চিহ্নিত করেছেন।

তিনি বলেন, “গেইটের যে কন্ডিশন দেখলাম, এর যে পরিমাণ ওজন, সেই অনুযায়ী কবজা ব্যবহার করা হয়নি। যে কবজা দেওয়া হয়েছে তা ভারী গেইট ঝুলিয়ে রাখার মত না।

“তাছাড়া কয়েক দিন আগে বিদ্যালয়ের নির্মাণসামগ্রী বহনের সময় ট্রাকের ধাক্কায় গেইটটি নড়বড়ে হয়ে যায়। প্রধান শিক্ষক বলার পরও ঠিকাদার ব্যবস্থা নেননি।”

স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের অর্থায়নে গেইটটি নির্মাণ করা হয়।

ঠিকাদার এস অনন্ত বিকাশ ত্রিপুরা গেইট নির্মাণ করে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে বুঝিয়ে দিয়েছেন। তিনি ত্রুটির কথা অস্বীকার করেছেন।

তার দাবি, “কর্তৃপক্ষ ত্রুটি নিয়ে কোনো অভিযোগ করেনি। তাছাড়া কয়েক দিন আগে বিদ্যালয়ের নির্মাণসামগ্রী নেওয়ার ট্রাকের ধাক্কায় গেইট ক্ষতিগ্রস্ত হয় বলে শুনেছি।“

সকালে শ্রাবণ তার মায়ের সঙ্গে স্কুলে গিয়েছিল। ভেতরে ঢোকার সময় হঠাৎ করেই গেইটটি তার ওপর পড়ে যায়। স্থানীয়রা তাকে হাসপাতালে নিয়ে গেলেও বাঁচানো যায়নি।

পরিবার অভিযোগ দিলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে খাগড়াছড়ি থানার ওসি মো. আরিফুর রহমান জানিয়েছেন।

Also Read: খাগড়াছড়িতে বিদ্যালয়ের গেইট ভেঙে প্রাণ গেল শিশুর

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক