যশোরে বিএনপি নেতার আড়তে প্রকৌশলীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

রফিকুল ইসলাম চৌধুরী যশোর নগর বিএনপির সভাপতি।

যশোর প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 25 March 2024, 04:54 PM
Updated : 25 March 2024, 04:54 PM

যশোরে বিএনপি নেতার চালের আড়তে এক ডিপ্লোমা প্রকৌশলীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় একজনকে আটক করা হয়েছে। 

রোববার গভীর রাত ৩টার দিকে শহরের বড় বাজার লোন অফিস পাড়ায় বিএনপি নেতা রফিকুল ইসলাম চৌধুরী ওরফে মুল্লুক চাঁদের চালের আড়ত থেকে ওই যুবকের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয় বলে যশোর কোতোয়ালি থানার ওসি আব্দুর রাজ্জাক জানান।  

নিহত বায়েজিদ হাসান (৩০) খুলনার বানরগাতির হাজি ইসমাইল লেনের মৃত নজরুল ইসলামের ছেলে। তিনি একসময় রফিকুল ইসলাম চৌধুরীর ভাই রকিবুল ইসলাম চৌধুরী সঞ্জয়ের নির্মাণ প্রতিষ্ঠানে কর্মরত ছিলেন। 

রফিকুল ইসলাম চৌধুরী যশোর নগর বিএনপির সভাপতি। 

বায়েজিদ হাসানের মা দিলরুবা বেগম সাংবাদিকদের বলেন, রোববার বিকাল ৪টার দিকে একটি প্রাইভেটকারে মুল্লুক চাঁদ ও সঞ্জয়ের ৪-৫ জন কর্মচারী তাদের বাড়িতে যান। তারা ঢাকা থেকে বাড়িতে আসা তার ছেলে বায়েজিদকে খুলনা সিটি করপোরেশনের স্থানীয় কাউন্সিলরের কাছে নিয়ে যাচ্ছেন বলে ডেকে নিয়ে যান। 

তিনি বলেন, সন্ধ্যায় ইফতারের সময় বায়েজিদকে ফোন দেন। তখন বায়েজিদ জানায়, যশোরের কেশবপুর এলাকায় আছেন। 

“রাত ১০টার সময় অন্য মোবাইল নম্বর থেকে ছেলে আমাকে জানায়, যশোরে তাকে মারধর করা হচ্ছে। এ সময় ছেলের কাছ থেকে ফোন নিয়ে অন্য একজন বলেন, তারা নাকি আমার ছেলের কাছে পাঁচ লাখ টাকা পাবেন”, বলেন দিলরুবা। 

যশোর কোতোয়ালি থানার ওসি আব্দুর রাজ্জাক বলেন, “যে নম্বর থেকে বায়েজিদের মাকে ফোন দেওয়া হয় সেটি বিএনপি নেতা রফিকুল ইসলাম চৌধুরীর। এ ঘটনায় পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আড়তের নৈশপ্রহরীকে হেফাজতে নিয়েছে।” 

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক সার্কেল) জুয়েল ইমরান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে বলেন, “প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, বায়েজিদকে পিটিয়ে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে। এ বিষয়ে রফিকুল ইসলাম চৌধুরীর সঙ্গে কথা হয়েছে। তিনি পাওনা টাকার বিষয়টি স্বীকার করেছেন। কিন্তু হত্যা কে বা কারা করেছে সে বিষয়ে কিছুই জানেন না বলে জানিয়েছেন। 

“এ ছাড়া রফিকুল ইসলাম চৌধুরীর যশোরের বাইরে রয়েছে বলে জানিয়েছেন। এ ঘটনায় পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে। মামলার প্রক্রিয়া চলছে”, বলেন জুয়েল ইমরান। 

এ ব্যাপারে জানতে রফিকুল ইসলাম চৌধুরীর মোবাইলে কল করলে সেটি বন্ধ পাওয়া যায়।