ছিনতাইকারীর ‘নজর’ ব্যাংকের ভেতরেও

ব্যাংক থেকে টাকা তুলে বাড়ি ফেরার পথে গ্রাহকরা ছিনতাইয়ের কবলে পড়েন বলে জানায় পুলিশ।

মাদারীপুর প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 29 March 2024, 06:39 AM
Updated : 29 March 2024, 06:39 AM

মাদারীপুরের রাজৈরে ব্যাংক থেকে টাকা তুলে ফেরার পথে ছিনতাইয়ের একটি ঘটনা তদন্ত করতে গিয়ে একটি চক্রের সন্ধান পেয়েছে পুলিশ।

আইন শৃঙ্খলা বাহিনীটি জানিয়েছে, এই চক্রের কিছু সদস্য থাকে ব্যাংকের ভেতরে। কারা টাকা তুলছে সেই তথ্য পাঠায় অন্যদের কাছে। এরপর বাইরে থাকা সদস্যরা র‌্যাব ও পুলিশ সদস্য পরিচয়ে ছিনিয়ে নেয় টাকা।

বুধবার দুপুরে নিজ কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এই তথ্য জানিয়েছেন মাদারীপুর পুলিশ সুপার মাসুদ আলম খান।

তিনি জানান, গত ১৩ অগাস্ট ইশিবপুরের আল মুমিন মোল্লার কাছ থেকে ১২ লাখ টাকা ছিনিয়ে নেওয়ার পর তদন্তে নামে পুলিশ।

এরপর এই ঘটনার হোতা হিসেবে চিহ্নিত মিজানুর রহমান বাচ্চুকে বরিশালের উজিরপুরের মালিকান্দা গ্রামে নিজের বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।

তার কাছ থেকে জানা যায়, রাজৈরের টেকেরহাট বন্দরের বিভিন্ন ব্যাংক থেকে টাকা তুলে বাড়ি ফেরার পথে গ্রাহকের টাকা ছিনতাই করে চক্রটি। এতে জড়িত সাত জনের একটি দল।

পুলিশ সুপার জানান, ব্যাংকে কেউ বড় অঙ্কের টাকা তুলেছে- এমন তথ্য পাওয়ার পর বাইরে অবস্থানকারী ছিনতাইকারীরা র‌্যাব-পুলিশ পরিচয়ে প্রাইভেটকারে তোলে সেই গ্রাহককে। পরে টাকা ছিনিয়ে নিয়ে হাত-পা ও মুখ বেঁধে মহাসড়কে তাকে ফেলে রাখা হয়।

বাচ্চু দীর্ঘদিন ধরে এমন অপরাধের সঙ্গে জড়িত জানিয়ে মাসুদ আলম বলেন, “তার বিরুদ্ধে রয়েছে ডজনখানেক মামলা। বিভিন্ন মামলায় গ্রেপ্তারের পর জামিনে বেরিয়ে এসে আবার একই কাজ করছেন তিনি।”

অন্য একটি মামলা তদন্ত করতে গিয়ে ইজিবাইক চোর চক্রের নারীসহ সদস্যসহ পাঁচজনকে গ্রেপ্তারের কথা জানিয়েছে গোয়েন্দা পুলিশ। যাত্রীবেশে চালককে চেতনানাশক খাইয়ে এই ছিনতাই করা হয়।

পাঁচ জনকেই ধরা হয় ফরিদপুরের ভাঙ্গা থেকে। উদ্ধার করা হয় দুটি ইজিবাইক ও মালামাল।

[প্রতিবেদনটি প্রথম প্রকাশিত হয়েছিল ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২৩ তারিখে: ফেইসবুক লিংক]