নাটোরে চাঁদাবাজির অভিযোগ তুলে রামদা হাতে যুবলীগের মিছিল

প্রকাশ্যে অস্ত্র হাতে মিছিলের ভিডিও ফেইসবুকে ছড়িয়েছে।

নাটোর প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 26 Jan 2024, 04:49 PM
Updated : 26 Jan 2024, 04:49 PM

নাটোরের সিংড়া উপজেলায় শ্রমিক লীগের নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে গণপরিবহনে চাঁদাবাজির অভিযোগ তুলে প্রকাশ্যে রামদা হাতে বিক্ষোভ মিছিল করেছেন যুবলীগ নেতাকর্মীরা।

শুক্রবার দুপুরে বাসস্ট্যান্ড এলাকায় তারা মিছিল বের করেন। কিছুক্ষণ পর পুলিশ এলে বিক্ষোভকারীরা সেখান থেকে চলে যান বলে সিংড়া থানার ওসি আবুল কালাম জানান।

প্রকাশ্যে অস্ত্র হাতে সেই মিছিলের ভিডিও ফেইসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে। ভিডিওতে নাটোর-বগুড়া মহাসড়কে বিক্ষোভকারীদের হাতে দেখা যায় বিভিন্ন দেশীয় অস্ত্র। এ সময় তারা চাঁদাবাজির বিরুদ্ধে বিভিন্ন স্লোগান দিচ্ছিলেন।

পৌর যুবলীগ ও সিএনজি সমিতির সভাপতি লাবু হাসান জনিকে মিছিলে নেতৃত্ব দিতে দেখা যায়।

বিষয়টি স্বীকার করে জনি বলেন, “সিএনজি স্ট্যান্ডের (মালিক সমিতির) সভাপতি সেলিম রেজা ও সেক্রেটারি রঞ্জু আহমেদ বছরের পর বছর ধরে অটোরিকশা চালকদের চুষে খাচ্ছেন। তারা একটি সমিতি তৈরি করে চাঁদাবাজি করেন।

“প্রতিটি সিএনজি থেকে প্রতিদিন ৫০ থেকে ৭০ টাকা চাঁদা আদায় করেন তারা। চালকরা ক্ষুব্ধ হয়ে এই মিছিলের আয়োজন করেছেন। আমিও সেখানে ছিলাম।”

মিছিলে অস্ত্র থাকার বিষয়ে জানতে চাইলে যুবলীগের এ নেতা বলেন, “সমর্থকরা মনে করেছিল আমার উপর আক্রমণ হয়েছে; তাই তারা এগুলো নিয়ে এসেছিল।”

অভিযোগের বিষয়ে প্রশ্ন করলে নাটোর জেলা শ্রমিক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও সিংড়া অটোরিকশা মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক রঞ্জু আহমেদ বলেন, “আমাদের সমিতি সরকার অনুমোদিত। এতদিন কোনো সমস্যা হয়নি। কিন্তু এখন তারা (বিক্ষোভকারীরা) বিনা কারণে উসকানি দিচ্ছে।

“প্রকাশ্যে অস্ত্রসহ মিছিল নিয়ে আমাদের অফিস ভাঙচুর করেছে; আমাকে প্রাণনাশের হুমকি দিয়েছে। এখন পালিয়ে বেড়াচ্ছি।”

সংসদ নির্বাচনে নৌকার পক্ষে ভোট করার কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, “নির্বাচনে আমাদের এক প্রতিবেশী স্বতন্ত্র প্রার্থী ছিলেন। ফলে আত্মীয়-স্বজন অনেকেই স্বতন্ত্রের পক্ষে ভোট করেছেন। সেই রাগে তারা এমন কর্মকাণ্ড করছেন।”

তবে অটোরিকশা স্ট্যান্ডে টাকা তোলা নিয়ে এমন ঘটনা ঘটেছে জানিয়ে ওসি আবুল কালাম বলেন, লাঠিসোঁটা নিয়ে মিছিলের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে তারা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। পৌর মেয়র দুপক্ষকে নিয়ে সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করছেন।

এ ঘটনায় কোনো পক্ষই থানায় লিখিত অভিযোগ করেনি বলে জানান ওসি।