বরিশালে বহিষ্কৃত জামায়াত কর্মীর নেতৃত্বে বিএনপির কমিটি, কার্যালয়ে তালা

১৫ সেপ্টেম্বর ফেসবুক আইডি থেকে বরিশাল সদর উপজেলার আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করেন দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহ্বায়ক।

বরিশাল প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 17 Sept 2022, 01:36 PM
Updated : 17 Sept 2022, 01:36 PM

বরিশালে বহিষ্কৃত জামায়াত কর্মীকে সদর উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক করে কমিটি ঘোষণার প্রতিবাদে দলীয় কার্যালয়ে তালা দিয়েছে বিক্ষুদ্ধ নেতাকর্মীরা। 

শনিবার দুপুরে নগরীর সদর রোডে জেলা ও মহানগর দলীয় কার্যালয়ে তালা দেওয়া হয় বলে জানিয়েছেন ঘোষিত কমিটির ১ নম্বর সদস্য জিয়াউল ইসলাম সাবু। 

কার্যালয়ে তালা দেওয়ার আগে ঘোষিত কমিটি বিলুপ্তির দাবিতে বরিশাল রিপোর্টার্স ইউনিটিতে সংবাদ সম্মেলন করেন বিএনপির নেতাকর্মীদের একটি অংশ। 

সংবাদ সম্মেলনে সদর উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট কাজী এনায়েত হোসেন বাচ্চু, ঘোষিত কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক মন্টু খান, সদস্য মামুন অর রশিদ, আনোয়ার হোসেন, আব্দুর জব্বার শিকদার উপস্থিত ছিলেন। 

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, বৃহস্পতিবার দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট মুজিবুর রহমান নান্টু তার ফেইসবুক আইডি থেকে সদর উপজেলার আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করেন।

কমিটিতে জামায়াত থেকে বহিষ্কৃত ‘বিতর্কিত’ নুরুল আমিনকে আহ্বায়ক করা হয়েছে। তিনি একসময় জামায়াতে ইসলামীর রুকন ছিলেন। পরে বিতর্কিত কর্মকাণ্ডের কারণে দল থেকে বহিষ্কৃত হন। এরপর তিনি বিএনপিতে যোগ দেন। তবে নুরুল আমিন এর আগে বিএনপির সদর উপজেলা কমিটির সদস্যও ছিলেন না বলে সংবাদ সম্মেলনে উল্লেখ করা হয়। 

বিএনপি নেতা জিয়াউল ইসলাম সাবু বলেন, এর আগে নুরুল আমিন কড়াপুর ইউনিয়ন বিএনপির আহ্বায়কের দায়িত্ব নিলে সভাপতি-সম্পাদকসহ ১৯২ জন নেতা পদত্যাগ করেন। ২০১৮ সালের সংসদ নির্বাচনে নুরুল আমিন ইউনিয়ন বিএনপির নেতা হয়েও আওয়ামী লীগের প্রার্থীর সমর্থনে কাজ করেন। 

“চরমোনাই ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থীর প্রধান সমন্বয়কারী আ. ছালাম রাঢ়ীকে বর্তমান আহ্বায়ক কমিটির সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক করা হয়েছে। আহ্বায়ক কমিটিতে অনেক অঙ্গসংগঠনের লোকদের সদস্য করা হয়েছে, যাদের কেউ চেনে না।” 

এ ছাড়া কমিটিতে অনেককে যথাযথ স্থানে রাখা হয়নি; তাই কমিটি বিলুপ্ত দাবি করে সাবু বলেন, ঘোষিত কমিটিতে সদর উপজেলা বিএনপির পরীক্ষিত ত্যাগী জেল-জুলুম ও অত্যাচার সহ্যকারী নেতাকর্মীরা হতাশ, নিরাশ এবং হতবাক। এ নিয়ে নেতাকর্মীদের অসন্তোষ চরম আকার ধারণ করেছে। 

সংবাদ সম্মেলন থেকে নেতারা, আগামী তিন দিনের মধ্যে কমিটি বাতিলের দাবি জানান। দাবি না মানলে লাগাতার কর্মসূচি দিয়ে অবাঞ্চিত কমিটিকে হঠাতে বাধ্য করা হবে বলেও হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়। 

এ ছাড়া বরিশাল জেলা বিএনপির মেয়াদ উত্তীর্ণ কমিটি পুনঃগঠনের দাবি জানানো হয়েছে সংবাদ সম্মেলনে। 

এদিকে, সংবাদ সম্মেলন শেষে নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে দলীয় কার্যালয়ে গিয়ে তালা দেয়। 

এ বিষয়ে সাবু বলেন, বিক্ষুদ্ধ নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে দলীয় কার্যালয়ে তালা দিয়েছে। তবে বিষয়টি জানার পর তালা খুলে দেওয়া হয়েছে। 

এ ব্যাপারে বরিশাল দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট মজিবুর রহমান নান্টু বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “১৪ বছর ধরে নুরুল আলম বিএনপির রাজনীতি করে। তিনি তো এখন জামায়াত নেই। জামায়াত নেতা হলেও কী?” 

“তিনি তো এ দেশের নাগরিক। দেশের সকল কিছু মেনে নিয়ে রাজনীতি করেন। কে কী বলল না বলল এ নিয়ে মাথা ঘামানোর সময় নেই।” 

এ ব্যাপারে বিএনপির সদর উপজেলা কমিটির আহ্বায়ক নুরুল আমিন রাতে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “আমি ২০১১ সালে বিএনপিতে যোগদান করি। তখন দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে আমাকে জামায়াত থেকে বহিষ্কার করে।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক