‘নির্যাতনের’ জবাব আসবে আন্দোলনে: ফখরুল

ধানমণ্ডির ল্যাবএইড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার সকালে মারা যান পটুয়াখালীর বিএনপি নেতা শাহজাহান খান, যিনি নভেম্বরের শুরুতে হামলায় আহত হয়েছিলেন।

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 28 Nov 2022, 10:57 AM
Updated : 28 Nov 2022, 10:57 AM

সরকারের ‘নির্যাতনের’ জবাব জনগণ আন্দোলনের ভাষাতেই দেবে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। 

পটুয়াখালী-৩ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য শাহজাহান খান সোমবার সকালে ঢাকার ধানমণ্ডির ল্যাবএইড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেলে সেখানে গিয়ে সাংবাদিকদের সামনে এ কথা বলেন মির্জা ফখরুল। 

তিনি বলেন, “আওয়ামী সন্ত্রাসীদের অত্যাচার-নির্যাতনের কথা আপনারা জানেন। ইতোমধ্যে এই চলমান আন্দোলনে আমাদের ৭ জন গুলিবিদ্ধ হয়ে প্রাণ হারিয়েছেন, দুইজন আওয়ামী লীগের নির্যাতনে প্রাণ হারিয়েছেন। আর আজকে একজন সাবেক সংসদ সদস্য, তাদের নির্যাতনে আজকে তার জীবন চলে গেল। 

“এই অত্যাচার-নির্যাতনের বিরুদ্ধে জনগণ জেগে উঠেছে। আমরা বিশ্বাস করি এই আন্দোলনের মধ্য দিয়ে শাহজাহান খানের এই যে মৃত্যু এটার আমরা পরিশোধ করতে সক্ষম হব, জনগণ এর উপযুক্ত জবাব দেবে।” 

গত ৪ নভেম্বর পটুয়াখালী থেকে বরিশালে বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশে যাওয়ার পথে তেলিখালী এলাকায় ‘সন্ত্রাসী হামলায়’ গুরুতর আহত হন শাহজাহান খান। পরে তাকে ঢাকায় ল্যাবএইড হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। 

মির্জা ফখরুল বলেন, “এই মৃত্যু কোনো স্বাভাবিক মৃত্যু নয়। তিনি আওয়ামী সন্ত্রাসীদের হাতে আক্রান্ত হযেছেন এবং তাকে পিটিয়ে মারাত্মকভাবে সেদিন আহত করা হয়েছিল। তার কিডনি ফেটে যায়… তার সমস্ত শরীরে বিষাক্ত রক্ত আসে।” 

শাহজাহান খানের মৃত্যু দক্ষিণাঞ্চলে বিএনপির রাজনীতিতে ‘বিরাট শূন্যতা’ সৃষ্টি করবে বলে মন্তব্য করেন মির্জা ফখরুল। 

তিনি বলেন, “আজীবন সংগ্রামী, ত্যাগী রাজনৈতিক এই নেতা জনগণে কাছে একজন অভিভাবক হিসেবে পরিচিত ছিলেন। আমরা বিএনপির পক্ষ থেকে.. গভীর শোক প্রকাশ করছি এবং তার পরিবারের প্রতি আমাদের সমবেদনা প্রকাশ করছি।” 

বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা আমিরুজ্জামান শিমুল, আইনজীবী ফোরামের নুরুল ইসলাম জাহিদসহ পটুয়াখালীর নেতারা ল্যাবএইডে মির্জা ফখরুলের সঙ্গে ছিলেন। পরে দলের জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীও হাসপাতালে যান।   

শাহজাহান খানের ছেলে শিপলু খান বলেন, “পটয়াখালী-বরিশাল মহাসড়কের গাবুয়া এলাকা পার হওয়ার সময় বাবার গাড়িতে ছাত্রলীগ-যুবলীগের সন্ত্রাসীরা অতর্কিতে হামলা চালায়। তারা বাবাকে লাঠি, রড় ও লোহার পাইপ দিয়ে পিটিয়ে শরীরের বিভিন্ন জায়গায় গুরুতর জখম করে।” 

পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছিলেন, সোমবার জোহরের পর পল্টনে জানাজা হবে শাহজাহান খানের। পরে তার মরদেহ নিয়ে যাওয়া হবে পটুয়াখালীতে। 

মঙ্গলবার সকাল ৯টায় পটুয়াখালী জেলা বিএনপির কার্যালয়ের সামনে, ১১টায় দশমিনা উপজেলায়, বাদ জোহর গলাচিপা উপজেলায় এবং বিকাল ৩টায় চিকনিকান্দি ইউনিয়নে জানাজা হবে শাজাহান খানের। এরপর মায়ের কবরে এই রাজনীতিবিদকে দাফন করা হবে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক