‘বাংলাদেশিদের’ নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য, ক্ষমা চাইলেন পরেশ রাওয়াল

গুজরাটের জনগণ তাদের পাশের ঘরে ‘বাংলাদেশি বা রোহিঙ্গাদের’উপস্থিতি সহ্য করতে পারবে না, বলেছিলেন তিনি।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 2 Dec 2022, 10:37 AM
Updated : 2 Dec 2022, 10:37 AM

গুজরাটের বিধানসভা নির্বাচনের ঠিক আগে বিজেপির হয়ে প্রচারে নেমে বাংলাদেশি ও বাঙালিদের নিয়ে করা মন্তব্যের জন্য ক্ষমা চেয়েছেন বলিউড অভিনেতা পরেশ রাওয়াল।

মঙ্গলবার রাজ্যটির ভালসাদে ভারতের ক্ষমতাসীন দলের এক সমাবেশে তিনি বলেন, গুজরাটের জনগণ মূল্যস্ফীতি সহ্য করতে পারে কিন্তু পাশের ঘরে ‘বাংলাদেশি বা রোহিঙ্গাদের’ সহ্য করতে পারবে না।

তার ওই মন্তব্য তুমুল সমালোচনার জন্ম দিলে শুক্রবার তিনি ক্ষমা চেয়ে টুইট করেন বলে জানিয়েছ ভারতীয় গণমাধ্যম।

ওই সমাবেশে পরেশ বলেন, “গ্যাস সিলিন্ডারের দাম বেড়েছে, দাম কমে আসবে। লোকজন চাকরিও পাবে। কিন্তু কী হবে, যদি রোহিঙ্গা শরণার্থী আর বাংলাদেশিরা আপনাদের চারপাশে বসবাস শুরু করে, দিল্লির মতো? গ্যাস সিলিন্ডার দিয়ে আপনারা কী করবেন? বাঙালিদের জন্য মাছ রাঁধবেন?

“গুজরাটের জনগণ মূল্যস্ফীতি সহ্য করতে পারে, কিন্তু এগুলো নয়।”

ভারতের পশ্চিমাঞ্চলীয় শিল্প প্রধান এই রাজ্যটিতে ১৯৯৫ সাল থেকে একটানা ক্ষমতায় আছে বিজেপি। রাজ্যের ক্ষমতাসীন দলের পক্ষ নিয়েই পরেশ নির্বাচনী জনসভায় এসব কথা বলেন।

সমাবেশে পরেশ আম আদমি পার্টির নেতা দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালেরও কড়া সমালোচনা করেন। গুজরাট রাজ্য বিধানসভার নির্বাচনে বিজেপির বড় প্রতিদ্বন্দ্বী আম আদমি পার্টি (এএপি) । 

আম আদমির আমলে দিল্লিতে ‘বাংলাদেশি ও রোহিঙ্গায়’ ভরে গেছে আর গুজরাটে দলটি জিতলে সেখানেও এমন পরিস্থিতি তৈরি হতে পারে, এমন ইঙ্গিত করেই পরেশ ওসব কথা বলেন বলে ভাষ্য ভারতীয় গণমাধ্যমের। 

তার এ বক্তব্যের পরপরই ভারতজুড়ে শোরগোল শুরু হয়। বাঙালিদের নিয়ে পরেশের মন্তব্যকে অনেকে ‘বিদ্বেষমূলক’ অ্যাখ্যা দেন। কেউ কেউ বলেন, বাংলাদেশি ও রোহিঙ্গাদের টেনে তিনি ‘জাতি অবমাননা’ করেছেন।

পরেশ রাওয়ালের মন্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় তৃণমূল কংগ্রেসের মুখপাত্র নীলাঞ্জন দাস টুইটারে লেখেন, “বাঙালি= অবৈধ বাংলাদেশি ও রোহিঙ্গা শরণার্থী? ধন্যবাদ, পরেশ রাওয়াল, ভারতের অন্যতম বৃহৎ জাতি-ভাষাভিত্তিক সম্প্রদায়ের বিষয়ে বিজেপির মানসিকতা প্রকাশ করার জন্য।”

তৃণমূল নেতা ডেরেক ও’ব্রায়েনকে ট্যাগ করে অনির্বাণ সাহা নামে এক ব্যবহারকারী লিখেছেন, “আপনারা কী বাঙালিদের জন্য মাছ রাঁধবেন?- এই ছোট ক্লিপে পরেশ রাওয়াল মাছখেকো সকলকে বাঙালি এবং সকল বাঙালিকে অবৈধ বাংলাদেশি ও রোহিঙ্গা মুসলিমদের তুল্য হিসেবে হাজির করেছেন। এভাবেই বিদ্বেষ ছড়ায়। পরে অবশ্য ভয় পেয়ে তিনি ক্ষমা চেয়েছেন।”

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তুমুল সমালোচনার মুখে পরেশ রাওয়াল পরে শুক্রবার সকালে ক্ষমা চেয়ে টুইট করেন।

“মাছের প্রসঙ্গ আসাই উচিত হয় নি, তার ব্যাখ্যা দেওয়া উচিত”- এক ব্যবহারকারীর এমন দাবির মুখে বলিউডের এ অভিনেতা ওই পোস্ট দেন।

সেখানে তিনি লেখেন, “অবশ্যই মাছ এখানে কোনো বিষয় নয়, কারণ গুজরাটিরাও মাছ রান্না করে ও খায়। বাঙালি বলতে কী বুঝিয়েছি, তার ব্যাখ্যা দিচ্ছি। বাঙালি বলতে আমি অবৈধ বাংলাদেশি ও রোহিঙ্গাদের বুঝিয়েছি। এরপরও যদি আমি আপনাদের আবেগ-অনুভূতিতে আঘাত দিয়ে থাকি,তাহলে আমি ক্ষমা প্রার্থী।”

আরও পড়ুন:

Also Read: গুজরাটের বিধানসভার নির্বাচন, মোদীর জনপ্রিয়তার ‘সহজ পরীক্ষা’

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক