লোমকূপ আবদ্ধ হওয়া ঠেকাতে

ধুলাবলিতে লোমকূপ বদ্ধ হলে ত্বকে দেখা দেয় ব্রণ ও ফুসকুড়ি।

লাইফস্টাইল ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 31 July 2022, 02:15 PM
Updated : 31 July 2022, 02:15 PM

লোমকূপে ময়লা ও জীবাণু আটকে গিয়ে ব্রণ সৃষ্টি করতে পারে।

বিশেষ করে গরমে, আর্দ্র মৌসুমে এই সমস্যা বেশি দেখা দেয়।

ভারতের দেগা অর্গানিক্স’য়ের প্রতিষ্ঠাতা অর্থি রগুরাম বলেন, “ত্বকে ফুসকুড়ি বা ছত্রাকের সংক্রমণও ঘটতে পারে বদ্ধ লোমকূপের কারণে। তাই লোমকূপ পরিষ্কার রাখলে বর্ষাকালীন ত্বকের সমস্যা কমে যাবে।”

ফেমিনা ডটইন’য়ে প্রকাশিত প্রতিবেদনে তিনি আরও বলেন, “ধারাবাহিকভাবে নিয়মিত ত্বকের যত্ন নিলে আমূল পরিবর্তন আনে।”

লোমকূপ আবদ্ধ হওয়া ঠেকাতে বেশ কয়েকটি পন্থাও দেন তিনি।

ত্বক পরিষ্কার করা: লোমকূপ আবদ্ধ হওয়া ঠেকাতে মুখ ভালো মতো পরিষ্কার করা জরুরি। দিনে দুবার অবশ্যই মৃদু পরিষ্কারক দিয়ে আলতোভাবে মুখ ধুয়ে নিতে হবে।

ফেইসওয়াশ হিসেবে মৃদু উপকরণ সমৃদ্ধ পণ্য বাছাই করা উচিত। এতে ত্বকের প্রকৃতিক তেল বজায় থাকবে। টি-জোনের লোমকূপ আবদ্ধ হওয়ায় ঝুঁকি বেশি থাকে। তাই ত্বকের এইসব জায়গা পরিষ্কারের দিকে মনোযোগ দেওয়া জরুরি।

স্ক্রাব করা: ত্বকে ব্রণের প্রবণতা কমাতে তা এক্সফলিয়েট করা জরুরি। সপ্তাহে দুবার স্ক্রাব করে মৃত কোষ দূর করা লোমকূপ আবদ্ধ হওয়ার প্রবণতা কমায়। এর ফলে ত্বক গভীর থেকে পরিষ্কার হয়, রূপচর্চার প্রসাধনী সহজে ত্বকে প্রবেশ করে ও ঠিক মতো কাজ করতে পারে।

ত্বকের ধরন ও পছন্দ অনুযায়ী রাসায়নিক ও ‘ফিজিক্যাল এক্সফলিয়েটর’ ব্যবহার করা যেতে পারে।

ফেইস মাস্ক: নিয়মিত ফেইস মাস্ক ব্যবহার ত্বককে গভীর থেকে পরিষ্কার করে এবং লোমকূপ উন্মুক্ত করে।

গ্রিন টি, চন্দনের গুঁড়া এবং নিম ইত্যাদি ত্বকে খুব ভালো কাজ করে। এগুলো ব্যাক্টেরিয়া নাশক এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ যা বাড়তি তেলের উৎপাদন কমায় এবং ত্বক পরিষ্কার রাখে।

টোনার ব্যবহার: ত্বকের নিয়মিত যত্নে টোনার ব্যবহার উপকারী। লোমকূপ পরিষ্কার করতে বাড়তি তেল ও ময়লা শুষে নিতে টোনার ব্যবহৃত হয়। স্যালিসাইলিক অ্যাসিড, গ্রিন টি বা শসার নির্যাস বর্ষায় ত্বকের জন্য উপকারী।

এছাড়াও গোলাপ জল ব্যহার করা ত্বকের জন্য ভালো।

ভাপ নেওয়া: সপ্তাহে একবার মুখে ভাপ নেওয়া উপকারী। ঘাম ও তেল উৎপাদন হয় গরমে ও বর্ষার সময়। গরম পানির ভাপ লোমকূম খুলতে সাহায্য করে। ফলে পরিষ্কার করা সহজ হয়।

ময়েশ্চারাজার: এই সময়ে ময়েশ্চারাইজার বাদ দেওয়া ত্বকের ক্ষতি করে। ত্বক শুষ্ক হয় ও লোমকূপে ময়লা জমে। তাই জেল বা পানি ভিত্তিক ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার বেশি উপকারী।

তেল চিটচিটে হয় না এমন ‘নন-কমেডোজেনিক ময়েশ্চারাইজার’ বা লোশন ব্যবহার ত্বকের জন্য ভালো।

হালকা মেইকআপ: মেইকআপ ত্বকের লোমকূপে আবদ্ধ হয়ে থাকে। ফলে ব্রণ সৃষ্টি হয়। বর্ষাকালে যতটা সম্ভব কম মেইকআপ করা উচিত।

ভারী মেইকআপ, ক্রিম বা ফাউন্ডেশনের বদলে পাউডার ধর্মী পণ্য ব্যবহার করা ভালো।

আর দিন শেষে বাসায় ফিরে ভালো মতো মুখ পরিষ্কার করতে হবে। নয়তো ত্বকে নানান সমস্যা দেখা দেবে।

ছবির মডেল: আশা। আলোকচিত্র: রাইনা মাহমুদ। বিন্যাস ও পরিকল্পনা: আলি আফজাল নিকোলাস। সৌজন্যে: ত্রয়ী ফটোগ্রাফি স্টুডিও।

আরও পড়ুন

Also Read: উন্মুক্ত লোমকূপ সমস্যার সমাধান

Also Read: লোমকূপ ছোট দেখানোর উপায়

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক