জন্মদিনে দোয়া চেয়ে কাঁদলেন ফারুক

সকলের কাছে দোয়া চেয়ে ভিডিও বার্তায় আবেগাপ্লুত হয়ে কেঁদে ফেলেন ফারুক।

গ্লিটজ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 18 August 2022, 10:11 AM
Updated : 18 August 2022, 10:11 AM

রক্তে সংক্রমণজনিত জটিলতা নিয়ে দেড় বছর ধরে সিঙ্গাপুরে চিকিৎসাধীন বাংলা চলচ্চিত্রের এক সময়ের জনপ্রিয় নায়ক ‘মিয়া ভাই’ আকবর হোসেন পাঠান ফারুক।

বৃহস্পতিবার নিজের ৭৪তম জন্মবার্ষিকী এক ভিডিওবার্তায় দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন এই অভিনেতা, পরিচালক, প্রযোজক ও রাজনীতিবিদ।

হাসাপাতালের বেডে থাকলেও ‘ভালো আছেন’ জানিয়ে ফারুক বলেন, “আমি প্রথমেই আল্লাহপাকের কথা স্মরণ করি। এই পৃথিবী নানান রঙে ভরে আছে। আমাদের সম্মানিত প্রধানমন্ত্রী, তার মতো হৃদয়বান মানুষ এই দেশের জন্য খুবই প্রয়োজন। আমি সবাইকে শুভেচ্ছা জানাই, আমার এই জন্মদিনের জন্য।”

সকলের কাছে দোয়া চেয়ে ভিডিও বার্তায় আবেগাপ্লুত হয়ে কেঁদে ফেলেন ফারুক।

তিনি বলেন, “দেশের মানুষের ভালোবাসা ফারুক কোনোদিন ভুলবে না। এই দেশের মানুষ আমার ভালোবাসার মানুষ। আমি শিগগিরই আসব। সবাইকে শুভেচ্ছা। আপনারা আমার জন্য দোয়া করবেন।”

মুক্তিযুদ্ধের সময়ের সাদা-কালো পর্দা থেকে তিন দশকের বেশি সময় ধরে ঢাকার চলচ্চিত্রে অভিনয়, প্রযোজনা ও পরিচালনার কাজ করেছেন ফারুক। ২০১৮ সালের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হয়ে ঢাকা-১৭ আসনের এমপি হন।

নিয়‌মিত স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য গত বছরের মার্চের প্রথম সপ্তাহে সিঙ্গাপুরে যান। তখন রক্তে সংক্রমণ ধরা পড়লে মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে ভর্তি হন।

সিঙ্গাপুরে নেওয়ার পর প্রায় চার মাস ধরে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) রেখে চিকিৎসা দিতে হয়েছিল তাকে। শারীরিক অবস্থার উন্নতি হওয়ায় মাস ছয়েক আগে তাকে কেবিনে নেওয়া হয়।

আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত বছরের এপ্রিলে একবার ফারুকের মৃত্যুর গুজব ছড়িয়েছিল ফেইসবুকে। চলতি বছরের এপ্রিলেও ফের ফারুকের মৃত্যুর গুজব ছড়ায়।

এ ধরনের গুজবে কান না দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন এই অভিনেতা। ভিডিও বার্তায় তিনি বলেন, “গুজবে কান দেবেন না। আমি আল্লাহর রহমতে ভালো আছি। ইনশাল্লাহ, খুব শিগগিরই আমি দেশে ফিরব।”

সিঙ্গাপুর থেকে ফারুকের স্ত্রী ফারহানা ফারুক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “ফারুককে এখন হাসপাতালের কেবিনে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। তার অবস্থা ভালো।”

সারেং বউ, লাঠিয়াল, নয়নমণি, গোলাপী এখন ট্রেনে, দিন যায় কথা থাকে, জনতা এক্সপ্রেস, সাহেব, মিয়াভাই, নাগরদোলা, সুজনসখী’, ঘরজামাই, ভাইভাই, বিরাজবৌ এর মতো অসংখ্য চলচ্চিত্রে অভিনয় করে বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের ইতিহাসে এক অনন্য জায়গা দখলে রেখেছেন খ্যাতিমান এই অভিনেতা। জীবনের ৭৪টি বছর শেষে ৭৫-এ পা দিচ্ছেন তিনি।

১৯৪৮ সালের ১৮ অগাস্ট পুরান ঢাকায় তার জন্ম, সেখানেই বেড়ে ওঠা। পুরো নাম আকবর হোসেন পাঠান দুলু হলেও ফারুক নামেই সবার কাছে পরিচিত তিনি।

এক সময় ছাত্রলীগের সক্রিয় কর্মী ছিলেন। ১৯৬৬ সালে বঙ্গবন্ধুর ডাকে ছয় দফা আন্দোলনে যোগ দেন। অসংখ্য মামলায় ব্যাপক পুলিশী হয়রানিরে শিকার হন সেসময়। উনসত্তরের গণ আন্দোলনেও সক্রিয় কর্মী। পরবর্তীতে মুক্তিযুদ্ধে যোগ দিয়ে বীরত্বের সঙ্গে যুদ্ধ করেন।

মুক্তিযুদ্ধ শুরুর আগেই তিনি চলচ্চিত্রে অভিনয় শুরু করেছিলেন এই অভিনেতা। ১৯৭১ সালে মুক্তি পায় তার অভিনীত প্রথম ছবি ‘জলছবি’।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক