ইফতিখার-সাকিবের বিধ্বংসী ব্যাটিংয়ে রেকর্ড আর রেকর্ড

রংপুর রাইডার্সের বোলারদের তুলাধুনা করে পঞ্চম উইকেট জুটিতে বিশ্ব রেকর্ড গড়েছেন সাকিব আল হাসান ও ইফতিখার আহমেদ।

ক্রীড়া প্রতিবেদকচট্টগ্রাম থেকেবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 19 Jan 2023, 03:08 PM
Updated : 19 Jan 2023, 03:08 PM

শেষ ১০ ওভারে ১৬৫। শেষ ৩ ওভারে ৭৩। রংপুর রাইডার্সের বিপক্ষে ফরচুন বরিশালের শেষ দিকের ব্যাটিং তান্ডবের খানিকটা নমুনা এই সংখ্যাগুলি। শুরুতে যে দল ছিল প্রবল চাপে, সেই দলই পরে সাকিব আল হাসান ও ইফতিখার আহমেদের উত্তাল ব্যাটিংয়ে ঝড় তুলল রেকর্ড বইয়ে। জুটির বিশ্বরেকর্ড যেমন হলো, তেমনি ধরা দিল তাদের ব্যক্তিগত অর্জনও। 

চট্টগ্রামে বৃহস্পতিবার টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে পাওয়ার প্লেতে ৪৬ রান তুলতেই ৪ উইকেট হারিয়ে ফেলে বরিশাল। বাকি ১৪ ওভারে আর কোনো সাফল্যই পায়নি রংপুর। অবিচ্ছিন্ন জুটিতে ১৯২ রান যোগ করেন সাকিব ও ইফতিখার। 

পঞ্চম উইকেটে এটি বিপিএলের সেরা জুটি তো বটেই, টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটেই বিশ্বরেকর্ড! 

আগের রেকর্ড ছিল ১৭১ রানের। ২০২০ সালের সেপ্টেম্বরে ইংল্যান্ডের টি-টোয়েন্টি ব্লাস্টে বার্মিংহামের হয়ে নর্থ্যাম্পটনশায়ারের বিপক্ষে ২০ রানে ৪ উইকেট পড়ার পর ১৭১ রানের জুটি গড়েন অ্যাডাম হোস ও ড্যান মুজলি। 

বিপিএলে পঞ্চম উইকেটে আগের সেরা ছিল গত আসরে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের হয়ে চাডউইকট ওয়ালটন ও মেহেদী হাসান মিরাজের ১১৫ রানের জুটি। 

সব জুটি মিলিয়ে বিপিএলে সাকিব-ইফতিখারের চেয়ে বড় জুটি আছে আর কেবল দুটি। ২০১৭ আসরে দ্বিতীয় উইকেটে ২০১ রানের জুটি গড়েন ক্রিস গেইল ও ব্রেন্ডন ম্যাককালাম, ২০১৩ সালে উদ্বোধনী জুটিতে ১৯৭ রান তোলেন লু ভিনসেন্ট ও শাহরিয়ার নাফীস। 

টর্নেডো ব্যাটিংয়ে এ দিন ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরি করেন ইফতিখার। ২৯ বলে ৫০ ছোঁয়ার পর ১৬ বলে পরের ৫০ রান করেন পাকিস্তানি ব্যাটসম্যান। ৬ চারের সঙ্গে ৯টি বিশাল ছয়ে ৪৫ বলে ১০০ রানে অপরাজিত থাকেন তিনি। 

এই ম্যাচের আগে টি-টোয়েন্টিতে ১৯৮ ম্যাচ খেলে ৩ হাজার ৭০৯ রান ছিল ইফতিখারের। ২৩ বার ফিফটি পেরিয়ে সর্বোচ্চ ছিল ৯০। 

বিপিএলের সব আসর মিলিয়ে সেঞ্চুরি এখন ২৮টি। কিন্তু একটি জায়গায় ইফতিখারই প্রথম। এই ইনিংস খেলেছেন তিনি ছয়ে নেমে। বিপিএলে চার নম্বর পজিশনের নিচে নেমে এই প্রথম শতরান পেলেন কোনো ব্যাটসম্যান।

ইফতিখারের মতো নিজেকে ছাড়িয়ে যান সাকিবও। ৩৮৭ ম্যাচ খেলে প্রায় সাড়ে ৬ হাজার রান করার পথে তার সর্বোচ্চ ছিল ৮৬। সেই প্রথম বিপিএলে ২০১২ সালে ইনিংসটি খেলেছিলেন তিনি খুলনা রয়্যাল বেঙ্গলসের হয়ে। এবার তার ব্যাট থেকে আসে ৯ চার ও ৬ ছয়ে ৮৯ রানের ইনিংস। ৩৩ বলে ফিফটি করার পর ১০ বলে আরও ৩৬ রান যোগ করেন বরিশাল অধিনায়ক। 

দুজনের তাণ্ডবে এবারের বিপিএলে সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহ পেলেও স্রেফ ১ রানের জন্য টুর্নামেন্টের ইতিহাসে রেকর্ড গড়তে পারেনি বরিশাল। ২০১৯ সালের জানুয়ারিতে চিটাগং ভাইকিংসের বিপক্ষে ৪ উইকেটে ২৩৯ রান করেছিল রংপুর রাইডার্স।  

ওই বছরের ডিসেম্বরের পরের আসরে কুমিল্লা ওয়ারিয়র্সের বিপক্ষে ৪ উইকেটে ২৩৮ রান করে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স। এবার রংপুরের বিপক্ষে ঠিক ৪ উইকেট হারিয়েই ২৩৮ রান করল বরিশাল।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক