রাজকোটের হতাশা ভুলে ৩-২ ব্যবধানে সিরিজ জয়ে চোখ স্টোকসের

টানা দুই হারে পিছিয়ে পড়লেও ভারতকে পরের দুই টেস্টে হারিয়ে সিরিজ জয়ের ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী ইংলিশ অধিনায়ক।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 18 Feb 2024, 05:09 PM
Updated : 18 Feb 2024, 05:09 PM

রাজকোটে রান পাহাড়ের নিচে পড়ে ন্যূনতম লড়াইটাও করতে পারেনি ইংল্যান্ড। এমনভাবে বিধ্বস্ত হওয়ার পর আত্মবিশ্বাসে বড় চোট লাগার কথা। পিছিয়ে পড়েছে সিরিজেও। তবে, ইংলিশ অধিনায়ক বেন স্টোকসের কণ্ঠে সেই মরিয়া ভাব, জয়ের তীব্র আকাঙ্ক্ষা। প্রবল আত্মবিশ্বাসে বললেন, প্রতিপক্ষকে পরের দুই ম্যাচে হারিয়ে ট্রফি নিয়েই দেশে ফিরতে চান তারা।

সিরিজের তৃতীয় টেস্টে রোববার ভারতের বিপক্ষে ৪৩৪ রানে হেরেছে ইংল্যান্ড। এশিয়ার দলটির বিপক্ষে রানের হিসেবে এটিই সবচেয়ে বড় হার তাদের। নিজেদের টেস্ট ইতিহাসে দলটির এর চেয়ে বড় ব্যবধানে হারের ঘটনা ৯০ বছরের পুরনো; ১৯৩৪ সালে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ৫৬২ রানে।

ম্যাচের প্রথম দুই দিন ভারতের সঙ্গে চোখে-চোখ রেখে লড়াই করে ইংল্যান্ড। এরপরই তাদের ছন্দপতন। তৃতীয় ও চতুর্থ দিনে কোনো প্রতিদ্বন্দ্বিতাই করতে পারেনি তারা। চতুর্থ দিনে তো তাদেরকে নাকানিচুবানি খাইয়ে ছাড়ে রোহিত শার্মার দল।

ইংল্যান্ডের দুই ইনিংসে সেঞ্চুরি কেবল একটি, বেন ডাকেটের ১৫৩। দলটির আর কোনো ব্যাটসম্যান ফিফটিও করতে পারেননি। দুই ইনিংস মিলিয়ে ইংলিশরা তাদের শেষ ১৮ উইকেট হারায় ২১৭ রানে। যেখানে দ্বিতীয় ইনিংসে ভারতের ইয়াশাসবি জয়সওয়াল একাই করেন অপরাজিত ২১৪ রান।

এছাড়া রোহিত ও রবীন্দ্র জাদেজা পান সেঞ্চুরির উষ্ণ ছোঁয়া। ৯ রানের জন্য কাঙ্ক্ষিত তিন অঙ্ক স্পর্শ করতে পারেননি শুবমান গিল। দুই ইনিংসেই ফিফটির স্বাদ পান অভিষিক্ত সারফারাজ খান।

ইংল্যান্ড দলের সেরা ব্যাটসম্যান জো রুট সিরিজে এখনও নিজেকে মেলে ধরতে পারেননি। ৬ ইনিংসে স্রেফ ৭৭ রান করেছেন তিনি। রাজকোট টেস্টের তৃতীয় দিনের শুরুতে রিভার্স স্কুপ করে স্লিপে ক্যাচ দিয়ে ফেরায় রুটকে নিয়ে হচ্ছে অনেক সমালোচনা। আর ইংল্যান্ডের খেলার ধরন নিয়ে তো চর্চা চলছেই।

ম্যাচ হারের পর স্টোকস বললেন, বাইরের কোনো সমালোচনায় কান দেন না তারা। সঙ্গে জানিয়ে রাখলেন, এখনও শেষ হয়ে যায়নি সিরিজ জয়ের সম্ভাবনা।

“সব বিষয়ে প্রত্যেকেরই একটা ধারণা ও মতামত থাকে। আবারও বলছি, ড্রেসিং রুমের সবার মতামতই আমাদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ।”

“আমরা জানি, সবসময় সবকিছু প্রত্যাশানুযায়ী ঘটে না। তবে সিরিজে আমরা ২-১ ব্যবধানে পিছিয়ে থাকলেও এখনও দুটি ম্যাচ বাকি আছে, তাই আমাদের ৩-২ ব্যবধানে ট্রফি নিয়ে ঘরে ফেরার দারুণ সুযোগ রয়েছে।” 

এবারের ভারত সফরের শুরুটা অবশ্য দুর্দান্ত হয়েছিল ইংল্যান্ডের। হায়দরাবাদ টেস্টে ২৮ রানের অবিশ্বাস্য জয় তুলে নেয় তারা। কিন্তু এরপর বিশাখাপাত্নামে হেরে যায় ১০৬ রানে। আর এবার এই বাজে হার।

স্টোকস অবশ্য সেসব নিয়ে ভাবতে চান না। পেছনের সব হতাশা ভুলে তাদের নজর সামনে।

“কেবল এগিয়ে যাওয়া এবং সামনের ম্যাচে মনোনিবেশ করার বিষয়টি নিশ্চিত করতে চাই। এই সপ্তাহের সব আবেগ এবং হতাশা পেছনে ফেলে আমরা পরের লড়াইয়ে মনোযোগ দেব।”

ভারতের বিপক্ষে স্টোকসদের চতুর্থ টেস্ট শুরু আগামী শুক্রবার, রাঁচিতে।