সৌম্যর মানসিক প্রস্তুতি ২২ গজ ঘিরে

মাশরাফি বিন মুর্তজা বলেছেন, বিশ্বকাপের আগে সবার মানসিক প্রস্তুতি সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। অধিনায়কের কথাটি শুনেছেন সৌম্য সরকার। শুরু হয়ে গেছে তার মানসিক প্রস্তুতি। ‘গেম অ্যাওয়ারনেস’ বা পরিস্থিতি সচেতনতা বাড়াতে চান আরও। উইকেটে গিয়ে ইনিংস গড়ায় রাখতে চান আরও পরিকল্পনার ছাপ।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 28 March 2019, 12:06 PM
Updated : 28 March 2019, 12:06 PM

সৌম্যর ব্যাটিং নিয়ে সবচেয়ে বড় অভিযোগ কিংবা আক্ষেপ, অথবা তার দুর্বলতা, ঠিক এই জায়গাতেই। চোখধাঁধানো সব শট খেলতে পারেন, নিজের দিনে গুঁড়িয়ে দিতে পারেন যে কোনো বোলারকে। কিন্তু ধারাবাহিকতার অভাব প্রবল। অনেকবারই দারুণ শুরুর পর উইকেট ছুঁড়ে এসেছেন দলের অবস্থা, ম্যাচের পরিস্থিতি উপলব্ধি না করে।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে যেমন, তেমনি ঘরোয়া ক্রিকেটেও নিয়মিত দেখা গেছে সৌম্যর এই প্রবণতা। নিউ জিল্যান্ড সফর থেকে ফিরে এবারের ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে তিন ম্যাচ খেলেছেন, রান করেছেন ৩৩, ৩৬ ও ৪৩।

বিশ্বকাপের আগে ঢাকা লিগে আবাহনীর হয়ে খেলবেন আরও বেশ কিছু ম্যাচ। বৃহস্পতিবার মিরপুরে দলের অনুশীলনের ফাঁকে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে সৌম্য বললেন, কাটিয়ে উঠতে চান এই সমস্যা। বাইরে থেকে যতটা ভাবছেন, তার মতে, বেশি গুরুত্বপূর্ণ উইকেটে গিয়ে ওই সময়ে পরিস্থিতি উপলব্ধি করতে পারা।

“ঘরোয়া ক্রিকেট চলছে, যে ম্যাচগুলো পাব, চেষ্টা করব লম্বা সময় ব্যাটিং করার। যেটা হোক, বল বেশি খেলি বা রান বেশি করি, মাঝখানে (উইকেটে) যে পরিস্থিতি থাকে, সেটি নিয়ে একটু বেশিক্ষণ চিন্তা করা, ওর ভেতরেই। আর দলের পরিস্থিতি অনুযায়ী খেলা গুরুত্বপূর্ণ। আমি যদি এভাবে খেলতে থাকি, সেসব তাহলে আমার মধ্যে বেশি গড়ে উঠবে।”

“আমার কাছে মনে হয়, অনেকের মধ্যে অনেক ঘাটতি থাকে। অনেকের আবার বাড়তি থাকে। আমার কাছে ম্যাচ প্রস্তুতি অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। সঙ্গে, উইকেটে থাকার সময় পরিকল্পনা অনেক ভালো থাকতে হবে। আমি যে ৩০-৪০ করে আউট হয়ে যাচ্ছি, ম্যাচের পরিস্থিতিতে কিভাবে ওই জায়গা থেকে বের হওয়া যায়। বাইরে থেকে চিন্তা না করে আমি যদি ওই সময় অন্যভাবে খেলি। এই ধরনের পরিকল্পনা করছি।”

লিগের এই তিন ম্যাচে একটিতে ৩৩ বলে ৩৬ করেছেন সৌম্য। বাকি দুটিতে চেষ্টা করেছেন উইকেটে লম্বা সময় থাকার। করেছেন ৫৭ বলে ৩৩ ও ৫৪ বলে ৪৩। বড় ইনিংস এখনও খেলতে পারেননি, তবে পথটা খুঁজে পেয়েছেন, দাবি সৌম্যর।

“উইকেটের মধ্যে থেকেই শেখার চেষ্টা করছি। হয়তো হচ্ছে না এখনও। তবে শিখছি। শেষ তিন ম্যাচেও দেখেছেন, যে পরিকল্পনা নিয়ে খেলেছি, আমার মনে হয় সেটি ভালো। হয়তো বড় রান হয়নি, সবগুলো ভালো বলে আউট হয়েছি। তবে পথটা ভালো ছিল।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক