জীবন পেয়ে অস্ট্রেলিয়াকে জেতালেন ওয়েড

বাজে ফিল্ডিংয়ের মাশুল দিয়ে সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে হারল ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 5 Oct 2022, 12:13 PM
Updated : 5 Oct 2022, 12:13 PM

৫ উইকেট হাতে নিয়েও শেষ ১৮ বলে ১৯ রানের সমীকরণ মেলাতে গিয়ে হিমশিম খেল অস্ট্রেলিয়া। ম্যাথু ওয়েড জীবন না পেলে হয়তো তীরে এসে তরীই ডুবত তাদের। তবে ফিল্ডিংয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের নিদারুণ ব্যর্থতায় রোমাঞ্চকর লড়াইয়ে জিতে গেল অস্ট্রেলিয়া।

কারারা ওভালে বুধবার প্রথম টি-টোয়েন্টিতে ৩ উইকেটে জিতেছে বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। ওয়েস্ট ইন্ডিজের ১৪৫ রান পেরিয়ে গেছে ১ বল বাকি থাকতে।

ম্যাচে ত্রিশের ঘর ছাড়াতে পেরেছেন কেবল আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে প্রথমবার চারে নামা অ্যারন ফিঞ্চ। ৫৩ বলে ৬ চারে ৫৮ রানের দায়িত্বশীল ইনিংস খেলা অস্ট্রেলিয়া অধিনায়কই জিতেছেন ম্যাচ সেরার পুরস্কার।

তবে তার চেয়ে কোনো অংশে কম গুরুত্বপূর্ণ নয় ওয়েডের ইনিংস। ৫ চারে ২৯ বলে এই কিপার-ব্যাটসম্যান করেন ৩৯ রান। শেষ ওভারে জীবন পেয়ে ১১ রানের সমীকরণ মেলানোয় তিনিই রাখেন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা।

২০তম ওভারে শেলডন কটরেলের প্রথম বলে বাউন্ডারি মারেন ওয়েড। পরের বলে ডিপ কাভারে রেমন রিফারকে ক্যাচ দিয়ে বেঁচে যান তিনি, পান ২ রান।

তৃতীয় বলে সিঙ্গেল নিয়ে প্রান্ত বদল করেন ওয়েড। শেষ ৩ বলে প্রয়োজন ছিল ৪ রান। চতুর্থ বলে আকাশে তুলে দিয়ে বেঁচে যান মিচেল স্টার্ক, এবার ক্যাচ ছাড়েন কাইল মেয়ার্স। পরের বলে ২ রান নিয়ে সমীকরণ মিলিয়ে ফেলেন দুই ব্যাটসম্যান। দ্বিতীয় রান নেওয়ার সময় রান আউট হতে পারতেন স্টার্ক, বেঁচে যান ফিল্ডারের ব্যর্থতায়।

এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই জনসন চার্লসকে হারায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। আরেক প্রান্তে মেয়ার্স টানেন দলকে। তার আক্রমণাত্মক ব্যাটিংয়ে পাওয়ার প্লেতে ৫৩ রান করে ক্যারিবিয়ানরা।

দশম ওভারে চমৎকার এক ডেলিভারিতে বোল্ড করে মেয়ার্সকে ফেরান প্যাট কামিন্স। সফরকারী ওপেনার এক ছক্কা ও পাঁচ চারে ৩৬ বলে করেন ৩৯। প্রথম সাত ব্যাটসম্যানের মধ্যে কেবল তিনিই ছাড়াতে পারেন বিশের ঘর।

মিডল অর্ডারে হাল ধরতে পারেননি নিকোলাস পুরান, রভম্যান পাওয়েল ও জেসন হোল্ডার। শেষ দিকে ১৭ বলে ২৭ রানের ইনিংসে দলকে দেড়শ রানের কাছে নিয়ে যান ওডিন স্মিথ।

৩৫ রানে ৩ উইকেট নেন জশ হেইজেলউড। কামিন্স ২ উইকেট নেন কেবল ২২ রানে। মিচেল স্টার্কও ২ উইকেট নেন, ৪০ রান দিয়ে। লেগ স্পিনার অ্যাডাম জাম্পা ৪ ওভারে দেন কেবল ২১ রান।   

রান তাড়ায় বিস্ফোরক শুরু করেন দলে ফেরা ডেভিড ওয়ার্নার। তবে থেমে যান কেবল তিনটি চার মেরেই। তিনে নেমে ব্যর্থ মিচেল মার্শ।

ফিঞ্চের সঙ্গে ৩৭ রানের জুটি গড়ে বিদায় নেন ক্যামেরন গ্রিন। তার বিদায়ের পর শূন্য রানে গ্লেন ম্যাক্সওয়েল ও টিম ডেভিড ফিরে গেলে চাপে পড়ে যায় অস্ট্রেলিয়া। ৫৮ রানে ৫ উইকেট হারানো দলকে উদ্ধার করেন ফিঞ্চ ও ওয়েড।

তাদের ব্যাটে এক সময়ে জয় মনে হচ্ছিল সময়ের ব্যাপার। শেষ ৩ ওভারে প্রয়োজন ছিল স্রেফ ১৯ রান। ম্যাচ তখন পুরোপুরি অস্ট্রেলিয়ার মুঠোয়। ১৮তম ওভারের ফিঞ্চকে ফিরিয়ে ৬৯ রানের জুটি ভাঙেন জোসেফ। পরের ওভারে বিদায় নেন কামিন্স।

এরপর শেষ ওভারের ওই নাটকীয়তায় অস্ট্রেলিয়াকে জয়ের বন্দরে নিয়ে যান ওয়েড ও স্টার্ক।

আগামী শুক্রবার ব্রিজবেনে হবে দ্বিতীয় ও শেষ টি-টোয়েন্টি।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

ওয়েস্ট ইন্ডিজ: ২০ ওভারে ১৪৫/৯ (মেয়ার্স ৩৯, চার্লস ৩, কিং ১২, রিফার ১৯, পুরান ২, পাওয়েল ৭, হোল্ডার ১৩, স্মিথ ২৭, জোসেফ ৭, কারাইয়াহ ১*; স্টার্ক ৪-০-৪০-২, হেইজেলউড ৪-০-৩৫-৩, কামিন্স ৪-০-২২-২, গ্রিন ২-০-১৬-১, জ্যাম্পা ৪-০-২১-০, ম্যাক্সওয়েল ২-০-৮-০)

অস্ট্রেলিয়া: ১৯.৬ ওভারে ১৪৬/৭ (ওয়ার্নার ১৪, গ্রিন ১৪, মার্শ ৩, ফিঞ্চ ৫৮, ম্যাক্সওয়েল ০, ডেভিড ০, ওয়েড ৩৯*, কামিন্স ৪, স্টার্ক ৬*; মেয়ার্স ১-০-১১-০, কটরেল ৩.৫-০৪৯-২, জোসেফ ৪-০-১৭-২, হোল্ডার ৪-০-৩০-১, কারাইয়াহ ৪-০-১৫-১, স্মিথ ৩-০-১৯-১)

ফল: অস্ট্রেলিয়া ৩ উইকেটে জয়ী

সিরিজ: ২ ম্যাচের সিরিজে ১-০তে এগিয়ে অস্ট্রেলিয়া

ম্যান অব দা ম্যাচ: অ্যারন ফিঞ্চ

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক