উচ্চ মাধ্যমিক: শতভাগ পাস ও ফেলের প্রতিষ্ঠান এবার কমেছে

এবার ৪২টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কোনো পরীক্ষার্থী পাস করতে পারেনি; সব শিক্ষার্থী পাস করেছে এমন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ৯৫৩টি।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 26 Nov 2023, 12:49 PM
Updated : 26 Nov 2023, 12:49 PM

উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় শতভাগ পরীক্ষার্থী ফেল করা এবং শতভাগ পরীক্ষার্থী পাস করা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা এবার কমেছে। 

২০২৩ সালের উচ্চ মাধ্যমিক ও সমমানের পরীক্ষায় অংশ নেওয়া ৯ হাজার ১৮৭ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৪২টির কোনো পরীক্ষার্থীই পাস করতে পারেনি। আর সব শিক্ষার্থী পাস করেছে এমন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ৯৫৩টি। 

২০২২ সালে কেউ পাস করতে পারেনি এমন প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ছিল ৫০টি। সেই হিসাবে এবার শতভাগ ফেল প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা কমেছে ৮টি। 

পরীক্ষায় অংশ নেওয়া সব শিক্ষার্থীই পাস করেছে, এমন প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ২০২২ সালে ছিল ১ হাজার ৩৩০টি। এবার সেই সংখ্যা ৯৫৩। অর্থাৎ শতভাগ শিক্ষার্থী পাস করা প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা কমেছে ৩৭৭টি। 

বরিশাল, সিলেট ও কারিগরি বোর্ডে শতভাগ শিক্ষার্থী ফেল করেছে এমন কোনো প্রতিষ্ঠান নেই। ১৬টি প্রতিষ্ঠানে শূন্য পাসের বিবেচনায় শীর্ষে রয়েছে দিনাজপুর বোর্ড। 

ঢাকা শিক্ষাবোর্ডের ৫টি, রাজশাহী ও ময়মনসিংহ শিক্ষাবোর্ডে ৪টি করে মোট ৮টি, কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ডের একটি, যশোর শিক্ষা বোর্ডের ৭টি, চট্টগ্রামের বোর্ডে ৩টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সব পরীক্ষার্থী ফেল করেছে এবার। 

সব শিক্ষার্থী ফেল করেছে এমন প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা এবার মাদ্রাসা বোর্ডে ২টি। আর শতভাগ পাস করা ৯৫৩টি শিক্ষাবোর্ডের মধ্যে সবচেয়ে বেশি ৬৬১টি প্রতিষ্ঠান মাদ্রাসা বোর্ডের অধীনে। এছাড়া কারিগরি বোর্ডের ১৪০টি প্রতিষ্ঠান থেকে শতভাগ শিক্ষার্থী পাস করেছে। 

ঢাকা বোর্ডে ৪৬টি, রাজশাহীতে ৩৭টি, কুমিল্লায় ১৭টি, যশোরে ১০টি, চট্টগ্রামে ১২টি, বরিশালে ১৩টি, সিলেট ও ময়মনসিংহে ২টি করে এবং দিনাজপুরে ১৩টি করে প্রতিষ্ঠানের সব শিক্ষার্থী ২০২৩ সালের এইচএসসি পরীক্ষায় পাস করেছে। 

মাদ্রাসা বোর্ডে গত বছর শতভাগ পাস করেছে এমন প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ছিল ১ হাজার ৩৩০টি। আর কারিগরি বোর্ডের ২১৯টি প্রতিষ্ঠান থেকে গতবছর শতভাগ শিক্ষার্থী পাস করেছে।‍

শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি রোববার দুপুরে ঢাকার আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটে এবারের উচ্চ মাধ্যমিকের ফলাফলের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন। 

এ বছর এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় পাসের হার কমে ৭৮ দশমিক ৬৪ শতাংশ হয়েছে, যা ২০২২ সালে ছিল ৮৫ দশমিক ৯৫ শতাংশ। 

এছাড়া, জিপিএ-৫ পাওয়া শিক্ষার্থীর সংখ্যা ২০২২ সালের ১ লাখ ৭৬ হাজার ২৮২ জন

থেকে কমে এবার হয়েছে ৯২ হাজার ৫৯৫ জন। 

২০২১ সালে মাদ্রাসা বোর্ডে শতভাগ পাস করেছে এমন প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ছিল ১ হাজার ৩টি। ওই বছর কারিগরি বোর্ডের ১৯৫টি প্রতিষ্ঠান থেকে শতভাগ শিক্ষার্থী পাস করে। 

২০২০ বছর মহামারীর কারণে উচ্চ মাধ্যমিকে পরীক্ষা না নিয়ে জেএসসি ও এসএসসি পরীক্ষা মিলিয়ে মূল্যায়ন ফল প্রকাশ করা হয়। তাতে শতভাগ ছাত্রছাত্রী পাস করে। 

আর তার আগে, ২০১৯ সালের পরীক্ষায় ৯০৯টি প্রতিষ্ঠান থেকে পরীক্ষায় অংশ নেওয়া সব শিক্ষার্থীই পাস করে, ৪১টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কোনো শিক্ষার্থী পাস করতে পারেনি।